বিজিএমইএ নির্বাচন মার্চে

আগের সংবাদ

জাপার আসনে নৌকা প্রত্যাহার! ৩০ থেকে ৩৫ আসন প্রত্যাশা জাতীয় পার্টির > চলছে দেনদরবার

পরের সংবাদ

গাজা পরিস্থিতি : হামাসকে সুড়ঙ্গে ডুবিয়ে মারতে চায় ইসরায়েল!

প্রকাশিত: ডিসেম্বর ৬, ২০২৩ , ১২:০০ পূর্বাহ্ণ
আপডেট: ডিসেম্বর ৬, ২০২৩ , ১২:০০ পূর্বাহ্ণ

কাগজ ডেস্ক : অবরুদ্ধ গাজা উপত্যকার নিচে ফিলিস্তিনের সশস্ত্রগোষ্ঠী হামাসের ব্যবহৃত টানেল প্লাবিত করতে একটি বড় পাম্প সিস্টেম বসিয়েছে ইসরায়েল। হামাস যোদ্ধাদের সুড়ঙ্গ থেকে তাড়ানোর জন্যেই এমন ব্যবস্থা করা হয়েছে। মার্কিন কর্মকর্তাদের বরাত দিয়ে ওয়াল স্ট্রিট জার্নাল এই খবর জানিয়েছে।
নভেম্বরের মাঝামাঝি সময়ে আল-শাতি শরণার্থী শিবিরের প্রায় এক মাইল উত্তরে কমপক্ষে ৫টি পাম্প স্থাপনের কাজ সম্পন্ন করেছে ইসরায়েলের সেনাবাহিনী। এই পাম্পগুলো প্রতি ঘণ্টায় কয়েক হাজার ঘনমিটার পানি সরাতে পারবে, যা কয়েক সপ্তাহের মধ্যেই গাজার ভূগর্ভস্থ টানেলগুলো প্লাবিত করে ফেলবে। হামাসের হাতে থাকা ইসরায়েলের সব জিম্মি মুক্তি পাওয়ার আগেই ইসরায়েল পাম্পগুলো ব্যবহার করার কথা ভাবছে কিনা- তা পরিষ্কার নয়। এর আগে হামাস জানিয়েছিল, জিম্মিদের তারা ‘নিরাপদ স্থান ও সুড়ঙ্গে’ লুকিয়ে রেখেছে।
জানতে চাইলে এক মার্কিন কর্মকর্তা বলেন, সুড়ঙ্গগুলোকে অকার্যকর করতে ইসরায়েলের যে প্রচেষ্টা তা বাস্তবসম্মত। সেটি বাস্তবায়ন করতে বিভিন্ন উপায় অনুসন্ধান করছে দেশটি। গত মাসে ইসরায়েল প্রথম যুক্তরাষ্ট্রকে সুড়ঙ্গ প্লাবিত করার পরিকল্পনার কথা জানিয়েছিল।
গাজা উপত্যকা দীর্ঘদিন ধরে অবরুদ্ধ রয়েছে। সেখানে পণ্য ও ব্যক্তির প্রবেশ কিংবা সেখান থেকে বের হওয়ার জন্য ইসরায়েলের অনুমতি দরকার হয়। এমন পরিস্থিতিতে গাজায় গোপনে পণ্য আনা-নেয়ার জন্য গুরুত্বপূর্ণ উপায় এসব সুড়ঙ্গ। যদিও ইসরায়েল দাবি করে, হামাসের সশস্ত্র কর্মকাণ্ড পরিচালনার অন্যতম কেন্দ্র সুড়ঙ্গগুলো।
গত ৭ অক্টোবর গাজার সীমান্তসংলগ্ন ইসরায়েলের দক্ষিণাঞ্চলে হামলা চালায় হামাস। হামলায় ১২০০ জন নিহত হয়। এ সময় দুই শতাধিক মানুষকে বন্দী করে গাজায় নিয়ে জিম্মি করে হামাস। হামাসের হামলার প্রতিশোধ নিতে ওই দিন থেকেই গাজায় অবিরাম বোমাবর্ষণ শুরু করে ইসরায়েল। মাঝের ৭ দিন যুদ্ধবিরতি বাদ দিলে প্রতিদিনই গাজা উপত্যকায় নির্বিচার হামলা চালানো হচ্ছে। এ পর্যন্ত নিহতের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১৫ হাজার ৮৯৯ জনে।
লেবাননে ইসরায়েলের বিমান হামলা : ইসরায়েলের বিমান বাহিনী লেবাননের গেরিলাগোষ্ঠী হিজবুল্লাহর বেশ কয়েকটি নিশানায় হামলা চালিয়েছে। ইসরায়েলের উত্তরের সীমান্তে এর আগে লেবানন থেকে হামলার জবাবে এ হামলা চালানো হয়েছে বলে জানিয়েছে দেশটির সামরিক বাহিনী।
ইসরায়েল ডিফেন্স ফোর্সেস (আইডিএফ)-এর মুখপাত্র ড্যানিয়েল হ্যাগারি বলেন, সন্ত্রাসী অবকাঠামো, অবস্থান এবং সামরিক বিভিন্ন স্থাপনা যেখানে অস্ত্র জমা থাকে সেসব জায়গায় হামলা চালানো হয়েছে।
গত অক্টোবরে গাজায় ইসরায়েলের যুদ্ধ শুরুর পর থেকেই দেশটির উত্তরের সীমান্তে ইরান-সমর্থিত মিলিশিয়া বাহিনী হিজবুল্লাহ হামলা চালিয়ে আসছে। ফিলিস্তিনি মুক্তিকামী সশস্ত্র সংগঠন হামাসও বলেছে, তারা লেবানন থেকে ইসরায়েলে রকেট হামলা চালিয়েছে। ইসরায়েল ওই এলাকা থেকে হাজার হাজার বেসামরিক মানুষকে সরিয়ে নিয়েছে। তবে এই সংঘাত এখনো পুরোপুরি যুদ্ধে রূপ নেয়নি।

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়