র‌্যাব মহাপরিচালক : নাশকতার তথ্য নেই তবুও সর্বোচ্চ সতর্ক অবস্থায় রয়েছি

আগের সংবাদ

বাংলাদেশের গর্ব, বিশ্বের বিস্ময় : জাতীয়-আন্তর্জাতিক ষড়যন্ত্রের জাল ছিন্ন করে যেভাবে ডানা মেলল স্বপ্নের পদ্মা

পরের সংবাদ

২৪ ঘণ্টায় ১২ মৃত : আসামে বন্যায় প্রাণহানি বেড়ে ১০০

প্রকাশিত: জুন ২৪, ২০২২ , ১২:০০ পূর্বাহ্ণ আপডেট: জুন ২৪, ২০২২ , ১২:০০ পূর্বাহ্ণ

কাগজ ডেস্ক : ভারতের আসাম রাজ্যে বন্যায় মৃত্যুর মিছিল ক্রমশ বাড়ছে। গত ২৪ ঘণ্টায় আবারো প্রাণহানির ঘটনা ঘটেছে সেখানে। চার শিশুসহ আরো ১২ জনের মৃত্যু হয়েছে। এ নিয়ে চলতি মৌসুমে আসামে বন্যায় মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়াল ১০০। আসামে মৌসুমি আর্দ্রতা কিছুটা কমলেও ব্রহ্মপুত্র-বরাকের মতো প্রধান নদনদীগুলোর পানি এখনো বিপৎসীমার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। ফলে নতুন নতুন এলাকায় বন্যার পানি ছড়িয়ে পড়ছে।
আসামের দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা কর্তৃপক্ষের (এএসডিএমএ) তথ্যমতে, রাজ্যের বন্যাকবলিত ৩২ জেলায় পানিবন্দি হয়ে পড়েছেন ৫৫ লাখের বেশি মানুষ। এর মধ্যে ২৬ লাখ লোক ঘর ছেড়ে আশ্রয় কেন্দ্রে থাকতে বাধ্য হচ্ছেন। সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে বারপেটা জেলা। এএসডিএমএর মুখপাত্র জানান, রাজ্যের ৫ হাজার ১২৩টি গ্রাম বন্যার পানিতে তলিয়ে গেছে। এতে ১ লাখ ৮ হাজার হেক্টরেরও বেশি কৃষিজমির ফসল নষ্ট হয়ে গেছে।
জানা গেছে, আসামের বাজালি, বাকসা, বারপেটা, বিশ্বনাথ, বোঙ্গাইগাঁও, কাছাড়, চিরাং, দররাং, ধেমাজি, ধুবরি, ডিব্রুগড়, ডিমা-হাসাও, গোয়ালপাড়া, গোলাঘাট, হাইলাকান্দি, হোজাই, কামরুপ, কামরুপ মেট্রোপলিটন, কার্বি আংলং পশ্চিম, করিমগঞ্জ, কোকরাঝাড়, লখিমপুর, মাজুলি, মরিগাঁও, নগাঁও, নলবাড়ী, শিবসাগর, সোনিতপুর, দক্ষিণ সালমারা, তামুলপুর, তিনসুকিয়া এবং উদালগুড়ি জেলাগুলো বন্যার পানিতে তলিয়ে গেছে।
কপিলি ও ডিসাং নদীর পানি বিভিন্ন স্থানে বিপৎসীমার ওপর দিয়ে বইছে। ভারতের সেনাবাহিনীর পাশাপাশি জাতীয় বিপর্যয় মোকাবিলা বাহিনী (এনডিআরএফ), রাজ্য বিপর্যয় প্রতিক্রিয়া বাহিনী (এসডিআরএফ) এবং আসাম পুলিশের ফায়ার এন্ড ইমার্জেন্সি সার্ভিস ত্রাণ ও উদ্ধারের কাজে দিনরাত কাজ করে চলেছে। আসামের মুখ্যমন্ত্রী হিমন্ত বিশ্ব শর্মা এর মধ্যে নগাঁও পরিদর্শন করেছেন। পরিস্থিতি পর্যালোচনা করতে হিমন্ত ট্রেনে করে নগাঁও যান। তিনি একটি নৌকা নিয়ে বিভিন্ন বন্যাকবলিত এলাকা পরিদর্শন করেন এবং কামপুর কলেজ ও রাহা উচ্চ মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ত্রাণ শিবিরে আশ্রয় নেয়া মানুষের সঙ্গে কথা বলেন।

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়