ওয়ারী থেকে উদ্ধার : মারা গেল সেই নবজাতকটি

আগের সংবাদ

বিদ্রোহের ভারেই নৌকাডুবি

পরের সংবাদ

ওমিক্রন ঠেকাতে চার সুপারিশ

প্রকাশিত: নভেম্বর ২৯, ২০২১ , ১২:০০ পূর্বাহ্ণ আপডেট: নভেম্বর ২৯, ২০২১ , ১২:০০ পূর্বাহ্ণ

** সংক্রমিত দেশ থেকে যাত্রী আসা বন্ধ ** কোয়ারেন্টাইন বাধ্যতামূলক ** সামাজিক সুরক্ষা নিশ্চিত করা ** চিকিৎসাব্যবস্থা শক্তিশালী করা **
কাগজ প্রতিবেদক : কোভিড-১৯ এর বিরুদ্ধে প্রায় দুবছর ধরে লড়ছে পুরো বিশ্ব। কখনো আলফা (ব্রিটেন), বিটা (দক্ষিণ আফ্রিকা), গামা (ব্রাজিল), ডেল্টা (ভারত) কিংবা ডেল্টা প্লাস নাম নিয়ে। আর এখন দাপট দেখিয়ে চলছে ভাইরাসটির নতুন ধরন ‘ওমিক্রন’। দক্ষিণ আফ্রিকা থেকে পৃথিবীর বিভিন্ন দেশে ছড়িয়ে পড়ছে ওমিক্রন। যুক্তরাজ্য, হংকং, বেলজিয়াম, ইসরায়েল, জার্মানি, জিম্বাবুয়ে, নামিবিয়া, বোতসোয়ানা, নেদারল্যান্ডস, সোয়াজিল্যান্ডসহ কয়েকটি দেশে নতুন এই ধরনে আক্রান্ত রোগীর হদিশ মিলেছে। খুব দ্রুতই ধরনটি ছড়িয়ে পড়ছে। বাড়ছে আশঙ্কাও। ভাইরাসের নতুন এই ধরন ঠেকাতে আগাম পদক্ষেপের ওপরই জোর দিচ্ছেন বিশেষজ্ঞরা।
বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা নতুন ধরনটিকে ‘ভ্যারিয়েন্ট অব কনসার্ন’ বা উদ্বেগজনক হিসেবে শ্রেণিভুক্ত করেছে। গত শুক্রবার এই ঘোষণার পর বিভিন্ন দেশ দক্ষিণ আফ্রিকার সঙ্গে যাতায়াতে নিষেধাজ্ঞা দিচ্ছে। এ ক্ষেত্রে ব্যতিক্রম নয় বাংলাদেশও। তাই ইতোমধ্যেই সতর্কতা হিসেবে আফ্রিকার সঙ্গে যোগাযোগ স্থগিতের সিদ্ধান্ত নেয়ার কথা শনিবারই জানিয়েছিলেন স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণমন্ত্রী জাহিদ মালেক। ওমিক্রন প্রতিরোধে করণীয় সম্পর্কে বিশেষজ্ঞরা বৈঠকে বসেছিলেন গতকাল রবিবার। কোভিড-১৯ বিষয়ক জাতীয় কারিগরি পরামর্শক কমিটির ৪৮তম সভায় এ বিষয়ে বিশদ আলোচনার পর ৪ দফা সুপারিশ করেন। এই চার সুপারিশের মধ্যে রয়েছে- ওমিক্রনের বিস্তার রোধে যেসব দেশে নতুন এই ধরন সংক্রমণ ছড়িয়েছে সেসব দেশ থেকে যাত্রী আসা বন্ধ করা; কোনো ব্যক্তির এসব দেশে ভ্রমণের সাম্প্রতিক (বিগত ১৪ দিনে) ইতিহাস থাকলে তাকে বাংলাদেশে ১৪ দিন প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টাইন বাধ্যতামূলক করা; করোনা পরীক্ষায় পজেটিভ হলে আইসোলেশন বাধ্যতামূলক করা; দেশের প্রতিটি প্রবেশপথে (স্থল, সমুদ্র, বিমান ও রেলওয়ে) পরীক্ষা, সামাজিক সুরক্ষা সংক্রান্ত ব্যবস্থা আরো কঠোরভাবে পালন করা (স্কুল-কলেজসহ), চিকিৎসাব্যবস্থা শক্তিশালী করা ও বিভিন্ন (রাজনৈতিক, সামাজিক, ধর্মীয়) সমাবেশে জনসমাগম সীমিত করার সুপারিশ করা হয়। এছাড়া করোনা পরীক্ষায় জনগণকে উৎসাহিত করার জন্য বিনামূল্যে

পরীক্ষা করারও সুপারিশ করা হয়েছে।
করোনা পরিস্থিতি নিয়ে গতকাল স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের ভার্চুয়াল বুলেটিনে অধিদপ্তরের মুখপাত্র ও পরিচালক (রোগ-নিয়ন্ত্রণ) অধ্যাপক ডা. নাজমুল ইসলাম বলেন, বর্তমানে দেশের করোনা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে থাকলেও আত্মতুষ্টিতে ভোগার কোনো কারণ নেই। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা করোনা ভাইরাসের নতুন ধরনটিকে ‘ভ্যারিয়েন্ট অব কনসার্ন’ হিসেবে চিহ্নিত করেছে এবং এটি প্রতিরোধে বিভিন্ন দেশ নানা ধরনের পদক্ষেপ নিয়েছে। এজন্য স্বাস্থ্য বিভাগ থেকে দেশের সব প্রবেশপথে সতর্কবার্তা পাঠানো হয়েছে। দেশের সবার জন্য মঙ্গলজনক হয় এমন প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে। রাজনীতিবিদ, জনপ্রতিনিধি, সামাজিক প্রতিনিধি ও উন্নয়ন সহযোগী সবার প্রত্যক্ষ-পরোক্ষ সহযোগিতা ও অংশগ্রহণের মধ্য দিয়েই করোনা নিয়ন্ত্রণ ও প্রতিরোধের কাজটি আরো বেগবান হবে।
এদিকে বিশ্বব্যাপী ওমিক্রনের গুরুত্ব অনুধাবন করে এ বিষয়ে জরুরি নির্দেশনা ও করণীয় ঠিক করতে সরকারি সফর বাদ দিয়ে দেশে ফিরেছেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক। ?শনিবার সুইজ্যারল্যান্ডে সরকারি অনুষ্ঠানে যোগ দেয়ার উদ্দেশ্যে রওয়ানা হয়েও দুবাই থেকেই ভিন্ন আরেকটি ফ্লাইটে রাত ১১টায় দেশে ফিরে আসেন তিনি।? সকালে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের এক বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, খুব দ্রুতই দেশে ওমিক্রন মোকাবিলা করার বিষয়টি নিয়ে জাতীয় পরামর্শক কমিটির সঙ্গে জরুরি বৈঠক করে ওই দিনই গণমাধ্যমকে স্বাস্থ্য খাতের প্রস্তুতির সবশেষ তথ্য দেশবাসীকে জানাবেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী।
রোগতত্ত্ব, রোগ নিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা প্রতিষ্ঠানের (আইইডিসিআর) উপদেষ্টা ও সাবেক প্রধান বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা ডা. মুশতাক হোসেন বলেন, করোনার নতুন ধরনটি ঠেকাতে বাংলাদেশের আগাম পদক্ষেপ নেয়া দরকার। আগাম পদক্ষেপ নেয়া না গেলে করোনা নিয়ন্ত্রণে যতটুকু এগিয়েছি, আবারো পিছিয়ে যাব। ভাইরাস রূপ বদলাবেই। এটা স্বাভাবিক বিষয়। আর তাই সব সময় স্বাস্থ্যবিধি মানতে হবে। এর কোনো বিকল্প নেই। প্রতিটা কেসের জিনোম সিকোয়েন্স করা দরকার। এটা ছাড়া নতুন ধরন শনাক্ত করা যাবে না।

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়