র‌্যাব মহাপরিচালক : নাশকতার তথ্য নেই তবুও সর্বোচ্চ সতর্ক অবস্থায় রয়েছি

আগের সংবাদ

বাংলাদেশের গর্ব, বিশ্বের বিস্ময় : জাতীয়-আন্তর্জাতিক ষড়যন্ত্রের জাল ছিন্ন করে যেভাবে ডানা মেলল স্বপ্নের পদ্মা

পরের সংবাদ

সিরাজুল ইসলাম চৌধুরী : একাত্তরে আমার মৃত্যুর সংবাদ ছাপা হয়েছিল

প্রকাশিত: জুন ২৪, ২০২২ , ১২:০০ পূর্বাহ্ণ আপডেট: জুন ২৪, ২০২২ , ১২:০০ পূর্বাহ্ণ

কাগজ প্রতিবেদক : লেখক, গবেষক, বরেণ্য বুদ্ধিজীবী ও সমাজতান্ত্রিক চিন্তাবিদ ইমেরিটাস অধ্যাপক সিরাজুল ইসলাম চৌধুরীর ৮৭তম জন্মদিন ছিল গতকাল। এ উপলক্ষে বাংলা একাডেমির আবদুল করিম সাহিত্যবিশারদ মিলনায়তনে একক আত্মজৈবনিক বক্তৃতা অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। অনুষ্ঠানের শুরুতে বিভিন্ন ব্যক্তি ও সংগঠনের পক্ষ থেকে তাকে ফুল দিয়ে শুভেচ্ছা জানানো হয়। এর মধ্যে উল্লেখযোগ্য হলেন বাংলা একাডেমি মহাপরিচালক কবি মুহম্মদ নূরুল হুদা, ড. আনু মুহাম্মদ, অধ্যাপক মুনতাসীর মামুন, মুজাহিদুল ইসলাম সেলিম, কবি মোহাম্মদ সাদেক, আন্দালিব রাশদী, কথাসাহিত্যিক আনোয়ারা সৈয়দ হক, মাজহারুল ইসলাম বাবলা প্রমুখ।
অধ্যাপক আজফার হোসেনের সঞ্চালনায় আত্মজৈবনিক বক্তৃতায় সিরাজুল ইসলাম চৌধুরী বলেন, আমার বাবা ছিলেন আমলাতান্ত্রিক, মা ছিলেন গণতান্ত্রিক। বাবা ছিলেন আশাবাদী, মা তার বিপরীত। অর্থাৎ জীবনের সব ক্ষেত্রে খুব বাস্তববাদী। ফলে আমি যতটা না বাবার সন্তান তার চেয়ে অধিক মায়ের সন্তান। মায়ের অনেক গুণ পেয়েছি, আর তা বুঝলাম ধীরে ধীরে চলতে চলতে।
সিরাজুল ইসলাম চৌধুরী এভাবে শৈশব, কৈশোরের নানা গল্প একে একে বলতে থাকেন। শিক্ষা জীবনে বাবা-মায়ের ভূমিকা, দেশ-বিদেশে উচ্চশিক্ষার অভিজ্ঞতা, শিক্ষক হিসেবে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের স্মৃতি, মুক্তিযুদ্ধের ভয়াবহ সময় মোকাবিলা- প্রায় দুই ঘণ্টা ধরে সবই তুলে ধরেন ধারাবাহিকভাবে। একাত্তরে তিনি মারা গেছেন এমন সংবাদ ছাপা হয়েছে বিদেশে তার বিশ্ববিদ্যালয়ের নিউজ লেটারে- এমন অসামান্য কিছু স্মৃতিও উপস্থিত অগণিত দর্শকের সামনে সাবলীলভাবে বলে যান তিনি।
অনুষ্ঠানে সিরাজুল ইসলাম চৌধুরীর নির্বাচিত সাক্ষাৎকারভিত্তিক বই ‘আজ ও আগামীকাল’-এর মোড়ক উন্মোচন করা হয়। বইটি প্রকাশ করেছে ডেইলি স্টার বুকস, সম্পাদনা করেছেন ইমরান মাহফুজ।
উল্লেখ্য, সিরাজুল ইসলাম চৌধুরী ১৯৩৬ সালের ২৩ জুন বিক্রমপুরের বাড়ৈখালীতে জন্মগ্রহণ করেন। বাবার কর্মসূত্রে তার শিক্ষাজীবনের প্রথমভাগ কেটেছে রাজশাহীতে। পরে ঢাকা, কলকাতা ও যুক্তরাজ্যে। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ইংরেজি বিভাগের অধ্যাপক ছিলেন তিনি।

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়