লাইসেন্স ছাড়াই ৭ বছর ট্রাক চালায় জসিম

আগের সংবাদ

ফাইভ-জিতে অনাগ্রহ কেন : তরঙ্গ নিলামের শর্ত ও নীতিমালা চূড়ান্ত হয়নি > ‘বুঝে-শুনে আগে বাড়তে চায় বেসরকারি অপারেটররা

পরের সংবাদ

ইনফান্তিনোর প্রস্তাবে অসন্তুষ্ট উয়েফা ও কনমেবল

প্রকাশিত: জানুয়ারি ২৯, ২০২২ , ১২:০০ পূর্বাহ্ণ আপডেট: জানুয়ারি ২৯, ২০২২ , ১২:০০ পূর্বাহ্ণ

কাগজ ডেস্ক : অভিবাসনপ্রত্যাশী ১৮ জনের মৃত্যুর খবর জানিয়েছে স্পেন। এক্ষেত্রে অভিবাসনপ্রত্যাশীদের লক্ষ্য ছিল স্পেনের মূল ভূখণ্ড থেকে অনেক দূরের ক্যানারি দ্বীপপুঞ্জ। আটলান্টিক মহাসাগরে অবস্থিত আফ্রিকার নিকটবর্তী এই দ্বীপপুঞ্জে যাওয়ার চেষ্টারত তিন শতাধিক মানুষকে বিভিন্ন নৌকা থেকে উদ্ধার করেছে স্প্যানিশ কর্তৃপক্ষ। তারা যাত্রা শুরু করেছিলেন উত্তর আফ্রিকা থেকে। কিছুদিন পরপরই খোলা সাগরের জন্য অনুপযুক্ত নৌকায় চড়ে আফ্রিকা থেকে ইউরোপে পাড়ি জমানোর আশায় মৃত্যুর খবর ধাক্কা দেয় সবাইকে। সম্প্রতি ফ্রান্সের স্ত্রাসবুরে ইউরোপীয় কাউন্সিলের সংসদীয় পরিষদে ফিফা সভাপতি বলেন, পুরো বিশ্বকে সঙ্গী করার উপায় খুঁজতে হবে আমাদের। আফ্রিকানদের আশা জোগাতে হবে যেন তারা ভালো জীবনের আশায় ভূমধ্যসাগর পাড়ি দিতে গিয়ে মৃত্যুবরণ না করে। অভিবাসনপ্রত্যাশীদের মৃত্যুর হার কমাতে দুই বছর পর পর বিশ্বকাপ আয়োজনের দাবি তুলেছেন ফিফা সভাপতি ইনফান্তিনো। তার যুক্তি দুই বছর পর পর বিশ্বকাপ হলে সুবিধাবঞ্চিত ফেডারেশনগুলো লাভবান হবে। অংশগ্রহণের সুযোগও বাড়বে। ফুটবলের মাধ্যমে উন্নয়ন হবে আফ্রিকা ও এশিয়ার অনগ্রসর জনগোষ্ঠীর। তিনি বলেন, ‘আমাদের উচিত সুযোগ দেয়া, সম্মান দেয়া, দান নয়।
জৌলুশ আর অর্থের টানে লাতিন আমেরিকা ও আফ্রিকা থেকে দলে দলে ফুটবলার ছুটে আসেন ইউরোপের ক্লাব ফুটবলে। ইনফান্তিনো এর সমাপ্তি চান। তিনি বলেন, ইউরোপে আর নতুন সম্ভাবনা ও অনুষ্ঠানের দরকার নেই। ফুটবলের উচিত নয় সারা বিশ্বকে বলা- তোমরা সব টাকা আর সেরা খেলোয়াড়দের আমাদের দিয়ে দাও, আর খেলা টিভিতে দেখ। আমাদের উচিত ফুটবলকে বৈশ্বিক করা, আমাদের উচিত ইউরোপে যে মান সৃষ্টি করা হয়েছে, সেটা সারা বিশ্বে ছড়িয়ে দেয়া।’
ইনফান্তিনোর এমন পরিকল্পনার বিরোধিতা আগেই করেছে ইউরোপিয়ান ফুটবলের সর্বোচ্চ সংস্থা উয়েফা ও লাতিন আমেরিকার নিয়ন্ত্রক সংস্থা কনমেবল। দুই বছর পর পর বিশ্বকাপ হলে খেলোয়াড়দের ওপর দিয়ে ধকল যাবে তাতে নিশ্চিতভাবেই ক্ষতিগ্রস্ত হবে ক্লাবগুলো। আর্থিকভাবেও লাভবান হবে না উয়েফা ও কনমেবল। তাই প্রথম থেকেই এর বিপক্ষে অবস্থান নিয়েছে সংস্থা দুটি। ২০১৬ সালে ফিফার সভাপতি নির্বাচিত হওয়ার পর থেকেই আর্থিক দিকে নজর দিয়েছেন ইনফান্তিনো। সে সঙ্গে ইউরোপিয়ান ফুটবল ফেডারেশনের (উয়েফা) ক্ষমতা খর্ব করে পুরো বিশ্বে ছড়িয়ে দেয়ার চেষ্টা করছেন এই সুইস ফিফা কর্মকর্তা। দুই লক্ষ্য একসঙ্গে অর্জনের উদ্দেশ্যে ৩২ দলের ফুটবল বিশ্বকাপকে ৪৮ দলের করা হয়েছে।
এবার চেষ্টা চালাচ্ছেন দুই বছর পরপর বিশ্বকাপ আয়োজনের। এতে ফিফার অপেক্ষাকৃত দুর্বল সদস্য দেশগুলো যেন আগ্রহী হয়ে পক্ষে ভোট দেয় সেটা নিশ্চিত করতে, বড় অঙ্কের প্রলোভন দেয়া হয়েছে। জানানো হয়েছে, এই প্রস্তাবের ফলে ৪ বছরে অন্তত ২ কোটি ৫০ লাখ ডলার (২১৪ কোটি ২৮ লাখ টাকা) পাবে সব ফেডারেশন। কিন্তু ফুটবলের সবচেয়ে সফল দুটি অঞ্চল ইউরোপ ও দক্ষিণ আমেরিকা এই প্রস্তাবে রাজি নয়। এরই মধ্যে বিশ্বকাপ বয়কটের হুমকি দিয়ে রেখেছে দুই ফেডারেশন। তারকা ফুটবলাররা বাড়তি টুর্নামেন্টের ফলে নানা সম্ভাব্য ক্ষতির কথা তুলে ধরছেন সুযোগ পেলেই।

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়