লাইসেন্স ছাড়াই ৭ বছর ট্রাক চালায় জসিম

আগের সংবাদ

ফাইভ-জিতে অনাগ্রহ কেন : তরঙ্গ নিলামের শর্ত ও নীতিমালা চূড়ান্ত হয়নি > ‘বুঝে-শুনে আগে বাড়তে চায় বেসরকারি অপারেটররা

পরের সংবাদ

ইতিহাসের দ্বারপ্রান্তে নাদাল

প্রকাশিত: জানুয়ারি ২৯, ২০২২ , ১২:০০ পূর্বাহ্ণ আপডেট: জানুয়ারি ২৯, ২০২২ , ১২:০০ পূর্বাহ্ণ

কাগজ ডেস্ক : আর মাত্র এক ম্যাচ। এ ম্যাচে জিতলেই ইতিহাসে জায়গা করে নেবেন স্প্যানিশ টেনিস তারকা রাফায়েল নাদাল। গতকাল অস্ট্রেলিয়ান ওপেনের সেমিফাইনালে বেরেত্তিনিকে ৬-৩, ৬-২, ৩-৬, ৬-৩ গেমে হারিয়ে নিজের ২১তম গ্র্যান্ড সøাম জয়ের পথে আরো এক ধাপ এগিয়ে যান নাদাল। ফাইনাল জিতলেই তার সামনে রেকর্ডের হাতছানি। পুরুষ তারকা হিসেবে সবচেয়ে বেশি গ্র্যান্ড সøাম জয়ের রেকর্ডটা এককভাবে হয়ে যাবে তার।
মেলবোর্নের রড লেভার অ্যারেনায় গতকাল সেমিফাইনালে ৩৫ বছর বয়সি এই স্প্যানিশ তারকার দাপটের সামনে দাঁড়াতেই পারেনি ইতালিয়ান তারকা বেরেত্তিনি। এই অ্যারেনায় এটি ছিল তার ৭৫তম জয়। ৩-১ সেটে জেতার ম্যাচে সপ্তম বাছাই বেরেত্তিনিকে একরকম উড়িয়েই দিয়েছেন নাদাল। বেরেত্তিনির ব্যাকহ্যান্ড দুর্বলতাকে কাজে লাগিয়ে প্রথম দুই সেটে সহজেই জয় পান স্প্যানিশ তারকা। প্রথম সেটে ৬-৩ গেমে জিততে মাত্র ৪৩ মিনিট সময় নিয়েছেন নাদাল। এরপর দ্বিতীয় সেটে ৬-২ গেমে সহজেই জিতেছেন আরো কম সময় নিয়ে। নাদালের ক্লান্তির সুযোগে তৃতীয় সেটে ৩-৬ গেমে হারিয়ে কিছুটা আশা জাগিয়েছিলেন বেরেত্তিনি। কিন্তু শেষ সেটে আর দাঁড়াতেই দেননি বেরেত্তিনিকে। জিতে নিয়েছেন ৬-৩ গেমে। জয়ের পর নাদালের উদযাপনও ছিল দেখার মতো। যেন দেখিয়ে দিলেন ৩৫ বছর বয়সে এসে আরো একটি রেকর্ডের মালিক হওয়ার পথে আর একটি ম্যাচ দূরে তিনি। অস্ট্রেলিয়ান ওপেন ফাইনালে ওঠার মাধ্যমে নিজের ২৯তম গ্র্যান্ড সøামের ফাইনালেও পৌঁছালেন তিনি।
পুরুষ এককে ২০টি করে গ্র্যান্ড সøাম জিতেছেন রজার ফেদারার, রাফায়েল নাদাল ও নোভাক জেকোভিচ। রজার ফেদেরার দীর্ঘদিন ধরে রয়েছেন ইনজুরিতে। আর অস্ট্রেলিয়ায় কোভিডের কড়া নিয়মের বেড়াজালে পড়ে ভিসা জটিলতায় অস্ট্রেলিয়ান ওপেন খেলতে পারছেন না পুরুষ এককের এক নম্বর বাছাই নোভাক জোকোভিচ। নাদাল এর আগে অস্ট্রেলিয়ান ওপেন জিতেছেন মাত্র একবার। তার ওপর সেটি আবার ২০০৯ সালে। এরপর ফাইনাল খেললেও ২০১২ সালে হারেন জোকোভিচের কাছে এবং ২০১৭ সালে ফেদেরারের কাছে। বাকি তিনটা গ্র্যান্ড সø্যামও জিতেছেন অন্তত দুইবার করে। যে কারণে অস্ট্রেলিয়ান ওপেনের দিকে তার নজরটাও যেন বেশিই একটু। ২০২২ সালে আট ম্যাচ খেলে এখনো অপরাজিত থাকা নাদালের আত্মবিশ্বাসটা যেন এ কারণে একটু বেশি। এককভাবে সবচেয়ে বেশি গ্র্যান্ড সøাম জয়ের মুকুটটা যেন নাদালের মাথায়ই যাচ্ছে এবার তা বলাই যায়।
পুরুষ এককের অন্য সেমিফাইনালে গ্রিক তারকা স্তেফানোস সিতসিপাসের বিপক্ষে রাশিয়ান তারকা দানিল মেদভেদেভে জয় পেয়েছেন ৭-৬, ৪-৬, ৬-৪, ৬-১ গেমে। টেনিসের পুরুষ এককের দ্বিতীয় বাছাই দানিল মেদভেদেভের বিপক্ষে মেলবোর্নের রড লেভার অ্যারেনায় আগামী ৩০ জানুয়ারি অস্ট্রেলিয়ান ওপেনের ফাইনালে রেকর্ডের হাতছানি নিয়ে মাঠে নামবেন টেনিসের এ কিংবদন্তি। জিতে গেলেই হয়ে যাবেন সর্বোচ্চ গ্র্যান্ড সøামের মালিক।
অন্যদিকে অস্ট্রেলিয়ান ওপেনে নারী এককের ফাইনালে আজ মুখোমুখি হবে অস্ট্রেলিয়ার অ্যাশলে বার্টি ও আমেরিকান ড্যানিয়েল কলিন্স। প্রথম সেমিফাইনালে কলিন্স ইগা সোয়াটেককে এবং দ্বিতীয় সেমিতে বার্টি ম্যাডিসন কিসকে হারিয়ে ফাইনালের টিকেট নিশ্চিত করেন। রেকর্ড গড়ার লক্ষ্যেই আজ ফাইনালে ড্যানিয়েল কলিন্সের বিপক্ষে কোর্টে নামবেন অ্যাশলে বার্টি। কলিন্সের বিপক্ষে জয় ছিনিয়ে নিতে পারলেই ১৯৭৮ সালের পর প্রথম অজি টেনিস খেলোয়াড় হিসেবে অস্ট্রেলিয়ান ওপেনের শিরোপা জিতবেন টেনিস সুন্দরী অ্যাশলে বার্টি। অস্ট্রেলিয়ান ওপেনের সেমিফাইনালে ম্যাডিসন কিসকে হারিয়ে ফাইনাল নিশ্চিত করে অ্যাশলে বার্টি। অস্ট্রেলিয়ান ওপেনের নারী এককের সেমিফাইনালের দ্বিতীয় ম্যাচে ম্যাডিসন কিসকে দাঁড়াতেই দেননি অস্ট্রেলিয়ান নম্বর ওয়ান নারী টেনিসার অ্যাশলে বার্টি।
রড লেভার অ্যারেনাতে সরাসরি দুই সেটে ৬-১ ও ৬-৩ পয়েন্টের ব্যবধানে জয় নিয়ে মাঠ কোর্ট ছেড়েছেন তিনি। ম্যাচের প্রথম সেটে কোনোভাবেই পাত্তা দেননি এই টেনিস সুন্দরী। সেমিফাইনালে প্রথম সেটে ম্যাডিসন কিসকে মাত্র ১ পয়েন্ট দিয়ে ৬-১ পয়েন্টের ব্যবধানে জয় তুলে নেন বার্টি। দ্বিতীয় সেটে একটু ঘুরে দাঁড়ানো চেষ্টা করলেও বার্টির ৬ পয়েন্টের বিপরীত ৩ এর বেশি করতে পারেননি এই আমেরিকান। চলমান অস্ট্রেলিয়ান ওপেনে নারী এককের শীর্ষ বাছাই হিসেবে টুর্নামেন্ট শুরু করেছিলেন অ্যাশলে বার্টি। সেই ধারাবাহিকতা বজায় রেখে এরই মধ্যে ফাইনালে পৌঁছে গেছেন এই অস্ট্রেলিয়ান। সঙ্গে গড়েছেন ইতিহাসও। এরই মধ্যে ৪২ বছর পর স্বাগতিক দেশের খেলোয়াড় হিসেবে অস্ট্রেলিয়ান ওপেনের ফাইনাল নিশ্চিত করেছে অ্যাশলে বার্টি। আর ফাইনাল জিতলে তা হবে আরো বড় ইতিহাস। গ্র্যান্ড সøাম জয়ের স্বপ্নে অ্যাশলে বার্টি প্রথম রাউন্ডে সুযোগ না দিয়েই লেসিয়া সুরেনকোকে হারিয়েছেন ৬-০ ও ৬-১ পয়েন্টের ব্যবধানে। দ্বিতীয় রাউন্ডেও একই মেজাজে লুসিয়া ব্রোঞ্জেটিকে হারিয়েছেন ৬-১, ৬-১ ব্যবধানে। তৃতীয় রাউন্ডে ক্যামিলা জিওরগিকে হারিয়েছেন ৬-২ ও ৬-৩ পয়েন্টের ব্যবধানে। চতুর্থ রাউন্ডেও আমান্ডা এনিসিনোভাকে হারিয়েছেন ৬-৪ ও ৬-৩ ব্যবধানে। কোয়ার্টার ফাইনালে জেসিকা পেগুলাকে হারিয়েছেন ৬-২ ও ৬-০ পয়েন্টে। সেমিফাইনালে ম্যাডিসন কিসকে হারিয়ে পৌঁছে গেলেন ফাইনালে। গ্র্যান্ড সøাম জয়ের আর একটি ধাপ মাত্র বাকি। শেষ এই বাধা জয় করতে পারলেই নতুন এক রেকর্ড গড়বেন এই অজি টেনিস তারকা।

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়