নাসির-তামিমার বিয়েকাণ্ডে মামলা : অভিযোগ গঠনের আদেশ ৯ ফেব্রুয়ারি

আগের সংবাদ

ক্লিনিক্যাল গাইডলাইন চূড়ান্ত : যুক্ত হচ্ছে নতুন নতুন তথ্য, আইসোলেশনের সময়সীমা ৫ দিনের বেশি চান বিশেষজ্ঞরা

পরের সংবাদ

ভুয়া পরিচয় এড়াতে ডিবির পোশাকে যুক্ত হচ্ছে প্রযুক্তি : কিউআর কোডে মিলবে আসল পরিচয়

প্রকাশিত: জানুয়ারি ২৬, ২০২২ , ১২:০০ পূর্বাহ্ণ আপডেট: জানুয়ারি ২৬, ২০২২ , ১২:০০ পূর্বাহ্ণ

কাগজ প্রতিবেদক : গোয়েন্দা পুলিশের (ডিবি) পরিচয়ে বিভিন্ন অপরাধ সংঘটিত হওয়া যেন নিত্যদিনের ঘটনা হয়ে দাঁড়িয়েছে। প্রতিনিয়ত রাজধানী ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন জায়গায় ভুয়া ডিবি পরিচয়ে ছিনতাই, ডাকাতি, চাঁদাবাজিসহ গুম করার মতো ঘটনা ঘটছে। সংঘবদ্ধ ওই অপরাধীদের গায়ে ডিবির জ্যাকেট, হাতে ওয়াকিটকি, হাতকড়া, ডিবি লেখা গাড়ি ও সঙ্গে আগ্নেয়াস্ত্র থাকায় সাধারণ মানুষের পক্ষে বোঝা মুশকিল- তারা আসল, না নকল। অপরাধ সংঘটিত হওয়ার পরে বিভিন্ন অভিযানে ভুয়া ডিবি পুলিশের সদস্য গ্রেপ্তার হলেও জনসাধারণের মধ্যে আসল আর নকল বোঝার অনিশ্চয়তা রয়েই গেছে। ফলে অনেক সময় আসল ডিবি পুলিশের সদস্যরা বিভিন্ন অভিযানে গিয়ে নানা রকম বিড়ম্বনার শিকার হচ্ছেন।
এই সমস্যা নিরসনে বদলে ফেলা হচ্ছে ডিবি পুলিশের জ্যাকেট। পুলিশের ইতিহাসে প্রথমবারের মতো জ্যাকেটে যুক্ত হচ্ছে অত্যাধুনিক প্রযুক্তিসম্পন্ন কুইক রেসপন্স কোড বা কিউআর কোড। শিগগিরই ডিবির সব সদস্যকে পৃথক কোড সংযুক্ত করে এ জ্যাকেট দেয়া হবে। মোবাইল অ্যাপ দিয়ে সদস্যের কিউআর কোড স্ক্যান করলেই তাদের পরিচয় চলে আসবে। আর যদি কোনো ভুয়া ডিবির পোশাকের কোড স্ক্যান করা হয় তাহলে ‘ইনভ্যালিড কিউআর কোড’ নামে একটি বার্তা দেখা যাবে। কিউআর কোড ছাড়াও পোশাকে এমন কিছু নিরাপত্তামূলক ব্যবস্থা থাকছে, এতে করে সহজে জালিয়াতি করা সম্ভব হবে না। পরিবর্তন আনা হচ্ছে পোশাকটির রংয়েও। ওই রংয়ের বিচ্ছুরণ থেকে আসল-নকল পুলিশের পার্থক্য ধরা যাবে।
ডিবির একাধিক কর্মকর্তা জানান, অনেক সময় ডিবির জ্যাকেট নিয়ে মানুষ প্রতারণা করছে। ডিবির পরিচয় দিয়ে বিভিন্ন সময় অপরাধমূলক কর্মকাণ্ড সংঘটিত করছে। কিন্তু দেখা যাচ্ছে, সেসব ঘটনার কিছুই আমরা জানি না কিংবা তারা ডিবির লোকও না। এ ধরনের প্রতারণা বন্ধ করতেই ডিবির জ্যাকেট চেঞ্জ করা হচ্ছে। যেন জনগণ জানতে পারে কোনটা ডিবি আর কোনটা ডিবি না। এরই মধ্যে অত্যাধুনিক প্রযুক্তিসম্পন্ন কুইক রেসপন্স কোড সংবলিত জ্যাকেট প্রস্তুতের কাজ চলছে। চলতি মাসের

শেষে অথবা ফেব্রুয়ারির শুরুতে বিশেষ এ পোশাক ডিবি সদস্যদের সরবরাহ করা হতে পারে।
ডিবির দায়িত্বশীল সূত্র জানায়, গোয়েন্দা পুলিশের সদস্যরা তাদের সাধারণ পোশাকের ওপর একটি হাতাকাটা জ্যাকেট পরে থাকেন। প্রায় ১৫ বছর ধরে ওই জ্যাকেট পড়ে অভিযান পরিচালনা করছে ডিবি পুলিশের সদস্যরা। সেটির সামনের দিকে ডানে ইংরেজিতে ‘ডিবি’ লেখা থাকে। বামে থাকে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের (ডিএমপি) লোগো। পেছনে ইংরেজিতে কেবলই ‘ডিবি, ডিএমপি’ লেখা থাকে। সাধারণ ইউনিফর্ম থাকায় প্রতারক ও অপরাধীরা সহজেই এমন ইউনিফর্ম তৈরি করে ভুয়া ডিবি সেজে ছিনতাই, ডাকাতি, অপহরণের মতো বড় বড় অপরাধ সংঘটিত করছে। এ বিষয়টিকে গুরুত্ব দিয়েই পরিবর্তন হচ্ছে ডিবির পোশাক। কিউআর কোড স্ক্যান করলে যাতে সংশ্লিষ্টদের পরিচয় দেখা যায় এজন্য ডিবির সব কর্মকর্তার তথ্য আগে থেকেই জমা থাকবে তাদের নিজস্ব সার্ভারে।
ডিবির একজন উচ্চপদস্থ কর্মকর্তা জানান, অনেক সময় আসল পুলিশকেও অভিযানের সময় নিয়মকানুন অমান্য করতে দেখা যায়। কোনো বিশেষ কারণে ডিবির আভিযানিক ড্রেস পরা বিপজ্জনক হলেও তাকে ওই পোশাক সঙ্গে রাখতে হবে। আসামি গ্রেপ্তারের পর কোনো প্রশ্ন উঠলে যাতে তার পোশাকের কিউআর কোড দেখাতে পারেন।
এ বিষয়ে জানতে চাইলে ডিবির অতিরিক্ত কমিশনার এ কে এম হাফিজ আক্তার জানান, কেউ যেন ভুয়া ডিবি পরিচয়ে মানুষের সঙ্গে প্রতারণা করতে না পারে, সেজন্য নতুন পোশাক তৈরি হচ্ছে। কিউআর কোড ছাড়াও পোশাকে এমন কিছু নিরাপত্তামূলক ব্যবস্থা থাকছে, এতে করে সহজে জালিয়াতি করা সম্ভব হবে না। এজন্য নতুন পোশাকে বুকের ওপরই থাকবে কিউআর কোড। পোশাক তৈরিতে এমন কাপড় ব্যবহার করা হয়েছে- যা শীত ও গরম উভয় ঋতুতে আরামদায়ক। এ ছাড়া পোশাকে এক ধরনের বিশেষ রং থাকবে- যার বিচ্ছুরণ থেকে আসল-নকল পুলিশের পার্থক্য ধরা যাবে। এমনকি বিশেষ ধরনের কাপড় দিয়ে এ পোশাক তৈরি করা হচ্ছে যেন এটি বাজারে পাওয়া না যায়।
ডিবি সদস্যদের কবে থেকে এই নতুন পোশাকে দেখা যাবে জানতে চাইলে ডিএমপির অতিরিক্ত কমিশনার (লজিস্টিকস) মাসুম রাব্বানী জানান, যেহেতু টেকনিক্যাল বিষয় জড়িত। আরো এক্সপার্ট মতামত দরকার আছে।

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়