গ্যালারি কায়া : বাংলাদেশ-ভারতের শিল্পীদের নিয়ে ‘এপিক ১৯৭১’

আগের সংবাদ

স্বস্তির ভোটে আইভীর হ্যাটট্রিক : সব শঙ্কা উড়িয়ে সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণ ভোট, শামীম ওসমানের কেন্দ্রে হেরেছে নৌকা

পরের সংবাদ

করোনা পরিস্থিতি : মৃত্যু ৭ জনের শনাক্ত ৩৪৪৭

প্রকাশিত: জানুয়ারি ১৬, ২০২২ , ১২:০০ পূর্বাহ্ণ আপডেট: জানুয়ারি ১৬, ২০২২ , ১২:০০ পূর্বাহ্ণ

কাগজ প্রতিবেদক : গত ২৪ ঘণ্টার ব্যবধানে কোভিড-১৯ নমুনা পরীক্ষা কমায় শনাক্ত রোগী এবং শনাক্তের হার কিছুটা কমেছে। তবে শনাক্ত রোগীর সংখ্যা প্রায় সাড়ে ৩ হাজার। আর শনাক্তের হারও ১৪ শতাংশের বেশি। কিছুটা কমেছে মৃতের সংখ্যা। করোনা পরিস্থিতি নিয়ে গতকাল শনিবার স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের বিজ্ঞপ্তির তথ্য অনুযায়ী, গত ২৪ ঘণ্টায় ৮৫৩টি পরীক্ষাগারে ২৪ হাজার ২৮টি নমুনা পরীক্ষা হয়। সংক্রমণের উপস্থিতি মিলেছে ৩ হাজার ৪৪৭ জনের নমুনায়। গত ২৪ ঘণ্টায় আক্রান্তদের মধ্যে ২ হাজার ৮৭৩ জনই ঢাকা বিভাগের। গত ২৪ ঘণ্টায় নমুনা পরীক্ষা বিবেচনায় শনাক্তের হার ১৪ দশমিক ৩৫ শতাংশ। সুস্থ হয়েছেন ২৯৪ জন। আর মৃত্যু হয়েছে সাতজনের।
প্রসঙ্গত, গত শুক্রবার ২৯ হাজার ৮৭১টি নমুনা পরীক্ষায় রোগী শনাক্ত হয় ৪ হাজার ৩৭৮ জন। শনাক্তের হার ১৪ দশমিক ৬৬ শতাংশ। মৃত্যু হয়েছিল ছয়জনের। বৃহস্পতিবার ২৭ হাজার ৯২০টি নমুনা পরীক্ষায় সংক্রমণের উপস্থিতি মিলে ৩ হাজার ৩৫৯টিতে। শনাক্তের হার ১২ দশমিক শূন্য ৩ শতাংশ। আর মৃত্যু হয় ১২ জনের। বুধবার ২৪ হাজার ৯৬৪টি নমুনা পরীক্ষায় রোগী শনাক্ত হয় ২ হাজার ৯১৬ জন। শনাক্তের হার ১১ দশমিক ৬৮ শতাংশ। মৃত্যু হয়েছে চারজনের। মঙ্গলবার ২৭ হাজার ৩৯৯টি নমুনা পরীক্ষা হয়েছে। সংক্রমণের উপস্থিতি মিলেছে ২ হাজার ৪৫৮টি নমুনায়। নমুনা পরীক্ষা বিবেচনায় শনাক্তের হার ৮ দশমিক ৯৭ শতাংশ। মৃত্যু হয়েছিল দুজনের।
স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের তথ্য বলছে, সরকারি হিসাব অনুযায়ী দেশে গতকাল পর্যন্ত নমুনা পরীক্ষা হয়েছে ১ কোটি ১৮ লাখ ৩২ হাজার ১২০টি। এর মধ্যে রোগী শনাক্ত হয় ১৬ লাখ ১২ হাজার ৪৮৯ জন। সুস্থ হয়েছেন ১৫ লাখ ৫২ হাজার ৬০০ জন। আর মোট প্রাণহানীর সংখ্যা ২৮ হাজার ১৩৬ জন। এর মধ্যে পুরুষ ১৭ হাজার ৯৮৯ জন এবং নারী ১০ হাজার ১৪৭ জন। এ পর্যন্ত নমুনা পরীক্ষা অনুযায়ী শনাক্তের হার ১৩ দশমিক ৬৩ শতাংশ। মৃত্যুর হার ১ দশমিক ৭৪ শতাংশ। সুস্থতার হার ৯৬ দশমিক ২৯ শতাংশ।
গত ২৪ ঘণ্টায় যে সাতজনের মৃত্যু হয়েছে তাদের চারজন পুরুষ ও তিনজন নারী। বয়স বিবেচনায় চল্লিশোর্ধ্ব একজন, পঞ্চাশোর্ধ্ব একজন, ষাটোর্ধ্ব তিনজন আর সত্তরোর্ধ্ব দুজন। বিভাগ বিবেচনায় মৃতদের মধ্যে ঢাকা বিভাগের চারজন, বরিশাল বিভাগের একজন আর সিলেট বিভাগের দুজন। চারজন সরকারি হাসপাতালে ও তিনজন বেসরকারি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা গেছেন।

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়