পরিকল্পনামন্ত্রী : দেশে রাজনীতিবিদের চেয়ে আমলাতন্ত্রের দাপট বেশি

আগের সংবাদ

শ্যামল দত্ত’র প্রত্যয় : চ্যালেঞ্জ মোকাবিলা করেই এগিয়ে যাবে ভোরের কাগজ

পরের সংবাদ

ইইউ-যুক্তরাষ্ট্র ধরাশায়ী : ওমিক্রনের বিস্তার নিয়ন্ত্রণের বাইরে

প্রকাশিত: জানুয়ারি ১, ২০২২ , ১২:০০ পূর্বাহ্ণ আপডেট: জানুয়ারি ১, ২০২২ , ১২:০০ পূর্বাহ্ণ

কাগজ ডেস্ক : গত সাত দিন ধরে বিশ্বজুড়ে চরম মাত্রায় রয়েছে করোনা সংক্রমণ। রয়টার্সের সমীক্ষা, ওমিক্রনের গতিবিধি ক্রমেই নিয়ন্ত্রণের বাইরে চলে যাচ্ছে। অর্থনীতি বাঁচিয়ে সংক্রমণ রোখার আপ্রাণ চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে দেশগুলো। কিন্তু কার্যত তারা ব্যর্থ। ডিসেম্বরের ২২ থেকে ২৮ তারিখের মধ্যেই গোটা বিশ্বে দৈনিক সংক্রমণ ধরা পড়ছে গড়ে ৯ লাখ। ভীষণ খারাপ পরিস্থিতি ইউরোপের একাধিক দেশ ব্রিটেন, ফ্রান্স, ইতালি এবং আমেরিকার আর্জেন্টিনা, বলিভিয়া, অস্ট্রেলিয়া এবং যথারীতি যুক্তরাষ্ট্র।
এখন পর্যন্ত যা দেখা যাচ্ছে, করোনার ডেল্টা বা অন্যান্য স্ট্রেসের তুলনায় ওমিক্রনের মারণ ক্ষমতা অনেকটাই কম। কিন্তু তাহলেও সংক্রমণ বেশি গেলে হাসপাতালগুলোতে শয্যার অভাব দেখা দেবে। লাগাতার লকডাউন চললে ব্যবসা, অর্থনীতি ভেঙে পড়বে। এমনিতেই গত দুবছরে যথেষ্ট ক্ষতিগ্রস্ত প্রায় সব দেশের অর্থনীতি। কিন্তু সংক্রমণ আটকাতে গেলে লকডাউন ছাড়া উপায় দেখতে পাচ্ছে না সরকার। কারণ টিকার দুটি ডোজ নেয়ার পরও ওমিক্রন সংক্রমিত হচ্ছেন অনেকে। এমনকি ৩টি ডোজ নেয়ার পরও সংক্রমিত হওয়ার ঘটনা ঘটেছে ব্রিটেনে। ইউরোপে একাধিক দেশে লকডাউন জারি হয়েছে। কিন্তু এতে রাষ্ট্রনেতারা পড়েছেন দুশ্চিন্তায়। বহু মানুষ ঘরবন্দি। অতিমাত্রায় লোক সংক্রমিত হলে ‘কোয়ারেন্টাইন’ হতে হবে। এতেও রোজগার বন্ধ হয়ে একটি শ্রেণি দারিদ্র্যের মুখে পড়ছে। স্পেন জানিয়েছে, কোয়ারেন্টাইন থাকার সময়সীমা ১০ দিন থেকে সাত দিন করা হবে। ইতালিও বিচ্ছিন্নবাসে থাকার নিয়ম কিছুটা লঘু করার কথা ভাবছে। একই রকম ভাবছে আমেরিকাও। তারা ঠিক করছে, সংক্রমণ ধরা পড়ার পরে পাঁচ দিন বিচ্ছিন্নবাসে থাকতে হবে। আগে ১০ দিন থাকতে হতো। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার মহাপরিচালক তেদ্রোস আধানম গেব্রিয়েসুস এসব নিয়ে সাংবাদিক বলেন, ওমিক্রন নিয়ে আমি খুবই চিন্তিত। একে তো মারাত্মক সংক্রামক। তার মধ্যে ডেল্টা থাকাকালীনই ছড়াচ্ছে ওমিক্রন। সংক্রমণ ঢেউ নয়, বিষয়টা সুনামি হয়ে যাচ্ছে। এ সময়ে ফ্রান্সে আরো বেড়েছে সংক্রমণ। গত মঙ্গলবার ১ লাখ ৮০ হাজার ছিল দৈনিক সংক্রমণ। বুধবার তা ছাড়িয়ে যায় ২ লাখ ১০ হাজার। ব্রিটেন, ইতালি, স্পেন, পর্তুগাল, গ্রিস, সাইপ্রাস, মাল্টাতেও রেকর্ড গড়ছে দৈনিক সংক্রমণ।

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়