ওয়ারী থেকে উদ্ধার : মারা গেল সেই নবজাতকটি

আগের সংবাদ

বিদ্রোহের ভারেই নৌকাডুবি

পরের সংবাদ

পিএসজির স্বস্তির জয়

প্রকাশিত: নভেম্বর ২৯, ২০২১ , ১২:০০ পূর্বাহ্ণ আপডেট: নভেম্বর ২৯, ২০২১ , ১২:০০ পূর্বাহ্ণ

কাগজ ডেস্ক : তারকায় ভরপুর দল পিএসজি, তাও কিনা লিগ টেবিলের তলানিতে থাকা দলের বিপক্ষে জিততে ঘাম জরাতে হলো প্যারিসিয়ানদের। লিগ ওয়ানে গতকাল সেইন্ট এতিয়েনের বিপক্ষে ৩-১ গোলের জয় পেয়েছে লিওনেল মেসিরা। মারকুইনস ২ গোল ও ডি মারিয়া এক গোল করে দলের জয়ে অবধান রাখেন।
লিগ ওয়ানে অপ্রতিদ্ব›দ্বী দল পিএসজি। আর্জেন্টাইন সুপার স্টার লিওনেল মেসি, ব্রাজিলের নেইমার, কিলিয়ান এমবাপ্পে, ডি মারিয়াসহ একাধিক তারকা ফুটবলারে ঠাসা ফরাসি ক্লাবটি। টেবিলের দুইয়ে থাকা নিসের সঙ্গে তাদের পয়েন্টের পার্থক্যটাও ১৪। আর এতিয়েনের সঙ্গে পার্থক্যটা ২৮ পয়েন্টের। ম্যাচের শুরু থেকেই অবশ্য আধিপত্য বিস্তার করেই খেলতে থাকেন লিওনেল মেসিরা। ম্যাচের ৭২ শতাংশ সময়ই তারা নিজেদের দখলে বল রেখেছিল। শটেও এগিয়ে ছিল তারা। কিন্তু গোলের দেখা পাচ্ছিল না। একের পর এক সুযোগ মিস করে দলকে হতাশায় ডোবাচ্ছিল ফ্রেঞ্চ তারকা কিলিয়ান এমবাপ্পে। ম্যাচের ২৩তম মিনিটে হতাশার সাগরে ডুব দেয় পুরো পিএসজি। নেইমার, এমবাপ্পেরা একের পর এক গোলের সুযোগ মিস করলেও সুযোগ হাতছাড়া করেননি এতিয়েনের ডেনিস বোয়াঙ্গা। প্রথম দফায় অবশ্য বল ফিরিয়ে দেন পিএসজি গোলরক্ষক জিয়ানলুইজি ডোনারুম্মা। কিন্তু বল পুরোপুরি ক্লিয়ার না হওয়ায় ডি বক্সে বল পেয়েই জালে জড়ান বোয়াঙ্গা। এরপর সমতায় ফিরতে মরিয়া হয়ে উঠে প্যারিসিয়ানরা। কিন্তু এবারো সুযোগ মিস করতে থাকেন এমবাপ্পে। এর মধ্যে ফ্রেঞ্চ তারকাকে ফাউল করে লাল কার্ড দেখে এতিয়ানের এক ফুটবলার। বিরতির পূর্ব মুহূর্তেই ১০ জনে পরিণত হয় দলটি। ওই ফাউল থেকে পাওয়া ফ্রিকিকে সফলতা পায় নেইমাররা। ম্যাচ বিরতির অতিরিক্ত সময়ে লিওনেল মেসির করা ফ্রি কিক থেকে হেডে বল জালে পাঠান পিএসজি অধিনায়ক মারকুইনস। ১-১ সমতায় মাঠ ছাড়ে দুই দল।
বিরতির পর ১০ দলের এতিয়েনের বিপক্ষে আরো ছড়া হতে থাকে ফরাসি জায়ান্টরা। তবে এবারো বেশ কিছু সুযোগ নষ্ট করেন এমবাপ্পে, গোল করতে ব্যর্থ হন মেসি নিজেও। তবে আর্জেন্টাইন তারকা নিজে গোল করতে ব্যর্থ হলেও ঠিকই গোল করিয়েছেন ডি মারিয়াকে দিয়ে। ম্যাচে ৭৯তম মিনিটে মেসি বল নিয়ে ডি বক্সে প্রবেশ করে মারিয়াকে পাস দেন। তিনি গোলরক্ষককে বোকা বানিয়ে বল জালে পাঠান। ১০ জনের এতিয়েন তখন রক্ষণ সামলাতেই ব্যস্ত। সমতায় ফেরার চেষ্টাটুকুও করতে পারছিল না। ম্যাচ তখন নিশ্চিত পিএসজির হাতে। এতিয়েনের ফুটবলারদের শারীরিক ভাষা বলছিল তারা ম্যাচের হাল ছেড়ে দিয়েছে।
ম্যাচের অতিরিক্ত মিনিটে গোল করে দলকে ৩-১ ব্যবধানের জয় এনে দেন মারকুইনস। ১৫ ম্যাচে ১৩ জয় ও ১ ড্রয়ে ৪০ পয়েন্ট নিয়ে টেবিলের শীর্ষে পিএসজি।

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়