ডিএমপি কমিশনার : স্মার্টকার্ড লাইসেন্সের প্রাপ্তি স্বীকার রসিদ থাকলে মামলা নয়

আগের সংবাদ

ইইউ-চীন-যুক্তরাষ্ট্র-ভারতের অঙ্গীকার > ৫০ বছরেই ‘কার্বন নিরপেক্ষ’ : এক হাজার কোটি ডলার তহবিলের নিশ্চয়তা, উষ্ণতা বৃদ্ধি দেড় ডিগ্রি সেলসিয়াসে সীমিত রাখা

পরের সংবাদ

লাইপজিগের বিপক্ষে থাকছেন না মেসি

প্রকাশিত: নভেম্বর ৩, ২০২১ , ১২:০০ পূর্বাহ্ণ আপডেট: নভেম্বর ৩, ২০২১ , ১২:০০ পূর্বাহ্ণ

কাগজ ডেস্ক : উয়েফা চ্যাম্পিয়ন্স লিগে প্রথম ম্যাচে হোঁচট খেলেও পরবর্তী দুই ম্যাচ জিতে ছন্দে আছে ফ্রেঞ্চ ক্লাব প্যারিস সেন্ট জার্মেই (পিএসজি)। তিন ম্যাচে ৭ পয়েন্ট নিয়ে ‘এ’ গ্রুপের শীর্ষ দল এখন তারা। চ্যাম্পিয়ন্স লিগে নিজেদের শেষ ম্যাচে আরবি লাইপজিগের বিপক্ষে ২টি গোল করে দলকে জয় এনে দেন আর্জেন্টাইন সুপারস্টার লিওনেল মেসি। এবার জার্মান ক্লাবটির বিপক্ষে তাদেরই ঘরের মাঠে থাকছেন না মেসি। বাঁ পায়ে হ্যামস্ট্রিংয়ের অস্বস্তি ও হাঁটুর ব্যথায় লাইপজিগের বিপক্ষে তিনি খেলতে পারবেন না বলে দল থেকে জানানো হয়।
চ্যাম্পিয়নস লিগে আরবি লাইপজিগের বিপক্ষে দল ঘোষণা করেছে পিএসজি। প্রত্যাশিতভাবে দলে নেই লিওনেল মেসি। একাধিক চোটে আজ রাতের ম্যাচে ছয়বারের ব্যালন ডি’অর জয়ীকে দলে রাখেননি কোচ মাউরিসিও পচেত্তিনো। লিলের বিপক্ষে শেষ ফ্রেঞ্চ লিগের ম্যাচে আগেভাগে মাঠ থেকে তুলে নেয়া হয় মেসিকে। ম্যাচটি পিএসজি জিতেছিল ২-১ গোলে। এবার ক্লাব নিশ্চিত করল, বাঁ পায়ে হ্যামস্ট্রিংয়ের অস্বস্তি ও হাঁটুর ব্যথায় লাইপজিগের বিপক্ষে খেলতে পারবেন না এই ৩৪ বছর বয়সি ফরোয়ার্ড। পিএসজি অফিসিয়াল ওয়েবসাইটে এক বিবৃতি জানায়, ‘আঘাতের কারণে লিওনেল মেসির বাঁ পায়ে হ্যামস্ট্রিংয়ের অস্বস্তিবোধ হচ্ছে এবং হাঁটুতেও ব্যথা।’
তবে মেসির সুস্থ হতে কতদিন লাগবে তা নিশ্চিত করে জানায়নি পিএসজি। ধারণা করা হচ্ছে, তার যে ইনজুরি তাতে একাধিক ম্যাচে বাইরে থাকতে হতে পারে তাকে। বিভিন্ন গণমাধ্যমের প্রতিবেদন অনুযায়ী, গত সেপ্টেম্বরে আর্জেন্টিনার হয়ে খেলার সময় থেকে হাঁটু ব্যথায় ভুগছেন মেসি। বিশেষজ্ঞের চিকিৎসা নিতে স্পেনে যাচ্ছেন বলে শোনা যাচ্ছে। সম্ভবত আগামী শনিবার বোর্দোয়ার বিপক্ষে ফ্রেঞ্চ লিগের ম্যাচে দেখা যাবে না মেসিকে। এমনকি আর্জেন্টিনার পরের বিশ্বকাপ বাছাইয়েও হয়তো খেলা হবে না তার। পচেত্তিনোর আশা ২০ নভেম্বর নঁতের বিপক্ষে দলের গুরুত্বপূর্ণ খেলোয়াড়কে ফিরে পাবেন। এর আগে ইনজুরির কারণে পিএসজির জার্সি গায়ে মেসি খেলতে পারেননি ফরাসি লিগের তিনটি ম্যাচ।
চলতি বছর চ্যাম্পিয়ন্স লিগের শুরুটা ভালো হয়নি পিএসজির। গত ১৬ সেপ্টেম্বর বিশ্বের সেরা আক্রমণভাগ লিওনেল মেসি, নেইমার, কিলিয়ান এমবাপ্পেকে (এমএনএম) নিয়েও বেলজিয়ান ক্লাব ব্রুজের বিপক্ষে হোঁচট খায় পিএসজি। প্রথমে ১ গোলে এগিয়ে থাকলেও পরে ১ গোল খেয়ে ড্র করে মাঠ ছাড়ে এমএনএমরা। পরের ম্যাচে অবশ্য ইংলিশ জায়ান্ট ক্লাব ম্যানচেস্টার সিটিকে রুখে দেয় প্যারিসিয়ানরা। গত ২৯ সেপ্টেম্বর সফল হয় এমএনএম জুটি। ম্যানসিটির বিপক্ষে ঘরের মাঠে জয় তুলে নেয় ২-০ গোল ব্যবধানে। এরপর ক্লাব ব্রুজের বিপক্ষে ৩-২ গোল ব্যবধানে জয় তুলে নিয়ে চ্যাম্পিয়ন্স লিগে গ্রুপ ‘এ’ তে পয়েন্ট তালিকার শীর্ষে উঠে আসে ফ্রেঞ্চ ক্লাবটি।
একই গ্রুপে থাকা ম্যানচেস্টার সিটি ৩ ম্যাচে দুই জয় ও এক হারে ৬ পয়েন্ট নিয়ে টেবিলের দুইয়ে। ৩ ম্যাচে এক জয়, এক ড্র ও এক হারে পয়েন্ট নিয়ে তিনে বেলজিয়ান ক্লাব ব্রুজ। আর আরবি লাইপজিগ ৩ ম্যাচের সবকটিতে হেরে টেবিলের তলানিতে অবস্থান করছে। তাই পিএসজির বিপক্ষে নিজেদের ঘরের মাঠে অন্তত একটি জয় নিয়ে লড়াইয়ে ফিরতে চায় জার্মান ক্লাবটি।
লা লিগায় রাজত্ব করা মেসি খুব একটা জ¦লে উঠতে পারছেন না ফ্রেঞ্চলিগে। পিএসজির জার্সি গায়ে লিগে ৫ ম্যাচ খেললেও একটিতেও পাননি গোলের দেখা। তবে চ্যাম্পিয়ন্স লিগে জালের দেখা পেয়েছেন তিনি। পিএসজির জার্সি গায়ে চলতি আসরে মেসি তিন ম্যাচে গোল করেছেন ৩টি।
এদিকে এক সাক্ষাৎকারে মেসি তার ফ্রান্সে কাটানো কঠিন সময়ের কথা জানান। দীর্ঘ ২১ বছরের সম্পর্কের ইতি টেনে বার্সেলোনা ছেড়েছিলেন তিনি। নতুন স্বপ্ন বুনে যোগ দিয়েছেন ফ্রান্সের ক্লাব পিএসজিতে। কিন্তু কেবল তো আর নতুন ক্লাবই নয়। নতুন একটা দেশ, শহর, আবহাওয়া আরো নানা কিছু। সমস্যায় পড়াও তাই স্বাভাবিকই আর্জেন্টাইন সুপারস্টারের জন্য। পিএসজিতে যোগ দিয়ে প্রথম দেড় মাসই তাকে কাটাতে হয়েছে হোটেলে। মেসি সেটিকেই বলছেন পিএসজিতে তার সবচেয়ে কঠিন সময়। স্প্যানিশ সংবাদ মাধ্যম স্পোর্টকে দেয়া সাক্ষাৎকারে আর্জেন্টাইন তারকা বলেন, বেশি কঠিন ছিল বাচ্চাদের জন্য। শুরুর দিকে খারাপ সময় কেটেছে, যখন সব কিছু হঠাৎ হয়ে গেল। এখানে এসে দেড় মাসের মতো হোটেলে কাটালাম।
ছেলেরা স্কুলে যেতে শুরু করেছিল, এটা তাদের জন্য সহজ ছিল না। আমরা একদম মাঝখানে ছিলাম শহরের, ট্রাফিক জ্যাম অসহনীয় হয়ে পড়েছিল। স্কুলে ও অনুশীলনে যেতে আমাদের এক ঘণ্টা লাগত।’
পিএসজিই এবার চ্যাম্পিয়ন্স লিগের সবচেয়ে বড় দাবিদার। সময়ের তিন সেরা তারকা কিলিয়ান এমবাপ্পে, লিওনেল মেসি ও নেইমার জুনিয়র একসঙ্গে খেলছেন ক্লাবটিতে। আছে তারকার ছড়াছড়ি। মেসির নিজেরও লক্ষ্য, ক্লাবটির হয়ে চ্যাম্পিয়ন্স লিগ জেতা। শিরোপার বিষয়ে মেসি বলেন, ‘পিএসজিতে যোগ দেয়ার এটি অন্যতম কারণ। যেটা আমি আমার বিদায়ের সময় বলেছি, আমার ক্যারিয়ারের শেষ মুহূর্ত পর্যন্ত কিছু জেতার জন্য খেলব। পিএসজির দুর্দান্ত স্কোয়াড ছিল, আমি এটাতে যোগ দিয়ে তাদের অনেক বছর ধরে চেষ্টা করা চ্যাম্পিয়ন্স লিগটা জেতাতে চাইছিলাম। এটা আমারও লক্ষ্য।’
মেসি অবশ্য সতর্ক করেছেন অন্য ক্লাবের ব্যাপারেও, ‘সবাই পিএসজিকে নিয়ে কথা বলছে কারণ তাদের যে ধরনের ফুটবলার আছে। কিন্তু অনেক দলই আছে যারা খুব ভালো, কয়েক বছর ধরে একসঙ্গে কাজ করছে নতুন খেলোয়াড়ও নিয়েছে। যেমন ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড, ম্যানচেস্টার সিটি, বায়ার্ন, লিভারপুল, অ্যাতলেটিকো, চেলসি, ডর্টমুন্ডসহ অনেক দলেরই চ্যাম্পিয়ন্স লিগ জেতার ক্ষমতা আছে।’

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়