ডেঙ্গুতে ৯১ জনের মৃত্যু, আক্রান্ত সাড়ে ২৩ হাজার

আগের সংবাদ

তৃণমূলে সংঘাত থামছেই না : সংঘর্ষে জড়িতদের তালিকা করছে আ.লীগ, অভ্যন্তরীণ সংঘর্ষে এক মাসে নিহত ৮, নির্বাচনী সংঘর্ষে ৩৮ নিহত

পরের সংবাদ

চৌগাছায় সংবাদ সম্মেলন : প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে দুর্নীতির অভিযোগ

প্রকাশিত: নভেম্বর ১, ২০২১ , ১২:০০ পূর্বাহ্ণ আপডেট: নভেম্বর ১, ২০২১ , ১২:০০ পূর্বাহ্ণ

জিয়াউর রহমান রিন্টু, চৌগাছা (যশোর) থেকে : চৌগাছার মাকাপুর-বল্লভপুর মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে জাল-জালিয়াতির মাধ্যমে চারজন শিক্ষক নিয়োগের অভিযোগে উঠেছে। গতকাল রবিবার বেলা ১১টায় প্রেস ক্লাব চৌগাছায় এক সংবাদ সম্মেলনে ওই স্কুল কমিটির সাবেক সভাপতি মোস্তাফিজুর রহমান বাবুল স্কুলটির প্রধান শিক্ষক নুরুল ইসলামের বিরুদ্ধে অবৈধ নিয়োগসহ অন্যান্য অভিযোগ তুলে ধরেন।
সংবাদ সম্মেলনে এক লিখিত বক্তব্যে মোস্তাফিজুর রহমান বলেন, আমি ২০১৪ সাল থেকে ২০১৫ সালের ২৮ জুন পর্যন্ত বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সভাপতির দায়িত্ব পালন করেছি। আমার মেয়াদে বিদ্যালয়ে কোনো সহকারী শিক্ষক নিয়োগ হয়নি। অথচ সেই সময়ে তিনজন শিক্ষক নিয়োগ দেখানো হয়েছে। আরো এক শিক্ষককে ২০০৫ সালে নিয়োগ দেখানো হয়েছে। এই চার শিক্ষক নিয়োগে প্রধান শিক্ষক নুরুল ইসলাম অন্তত ৫০-৬০ লাখ টাকার নিয়োগ বাণিজ্য করেছেন।
এছাড়াও সর্বশেষ চলতি বছরের সেপ্টেম্বরে ওই প্রধান শিক্ষক ওপর মহলকে ম্যানেজ করে ওই চার শিক্ষকের এমপিওভুক্ত করিয়েছেন। অবৈধভাবে নিয়োগ ও এমপিওভুক্ত হওয়া ওই চার সহকারী শিক্ষক হলেন- দেলোয়ার হোসেন (ইনডেক্স নম্বর এন-৫৬৮০৮৩০৪), লিপিয়ারা খাতুন (ইনডেক্স নম্বর এন-৫৬৮০৮৩০৩), আনন্দ কুমার বিশ্বাস (ইনডেক্স নম্বর এন-৫৬৮০৮৩০৬) ও মমতাজ খাতুন (৫৬৮০৮৩০৫)। এর মধ্যে ২০০৫ সালের ১ জানুয়ারি মমতাজ খাতুনকে সহকারী শিক্ষক (বাংলা) পদে নিয়োগ দেখানো হয়েছে। আর ২০১৫ সালের ৭ জুন তারিখে দেলোয়ার হোসেনকে সহকারী শিক্ষক (সমাজবিজ্ঞান), লিপিয়ারা খাতুনকে সহকারী শিক্ষক (সমাজবিজ্ঞান) ও আনন্দ কুমার বিশ্বাসকে সহকারী শিক্ষক (ব্যবসায় শিক্ষা) পদে নিয়োগ দেখানো হয়েছে।
অথচ তারা কোনো দিন বিদ্যালয়ে আসেননি। সেপ্টেম্বরে এমপিও শিটে স্বাক্ষর করতে গিয়ে শিক্ষক-কর্মচারীরা হতবাক হয়েছেন। কারণ এমপিও শিটে নাম আসা ওই চার শিক্ষককে কখনো বিদ্যালয়ে দেখেননি তারা। প্রধান শিক্ষক নুরুল ইসলাম সম্পূর্ণ গোপনে জাল-জালিয়াতির মাধ্যমে এই অবৈধ নিয়োগ প্রক্রিয়া সম্পন্ন করেছেন।
এ বিষয়ে প্রধান শিক্ষক নুরুল ইসলাম ওই চারজন শিক্ষকের বিভিন্ন সময়ে নিয়োগের কথা নিশ্চিত করে বলেন, আমি নির্বাচনে ব্যস্ত আছি। ১১ নভেম্বরের পর কথা বলব।

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়