চাকরি দেয়ার নামে প্রতারণা : চালকের সহকারী শাহীরুল এখন কোটিপতি

আগের সংবাদ

তিস্তার তাণ্ডবে লালমনিরহাটে পথে বসেছে হাজারো পরিবার

পরের সংবাদ

ইজিবাইকচালককে হত্যার ঘটনায় গ্রেপ্তার ৬ : মাদকের টাকা জোগাতে ছিনতাই

প্রকাশিত: অক্টোবর ২৫, ২০২১ , ১২:০০ পূর্বাহ্ণ আপডেট: অক্টোবর ২৫, ২০২১ , ১২:০০ পূর্বাহ্ণ

কাগজ প্রতিবেদক : ইজিবাইকচালক সাইফুল ইসলামকে গলা কেটে হত্যার ঘটনায় ছিনতাই চক্রের ৬ সদস্যকে গ্রেপ্তার করেছে র‌্যাব। রাজধানীর উত্তরখান ও গাজীপুর মহানগরীর পূবাইল থানা এলাকায় অভিযান চালিয়ে গত শনিবার দিবাগত রাতে তাদের গ্রেপ্তার করা হয়। গতকাল রবিবার সন্ধ্যায় কারওয়ান বাজারে র‌্যাবের মিডিয়া সেন্টারে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানিয়েছেন র‌্যাব-১ এর কমান্ডিং অফিসার (সিও) লে. কর্নেল আব্দুল্লাহ আল মোমেন।
গ্রেপ্তারকৃতরা হলো- আজিজুল ইসলাম (১৮), মো. ইমন খান (১৯), মেহেদী হাসান ওরফে হৃদয় প্রকাশ ওরফে মাসুম (১৮), বিজয় আহম্মেদ (১৯), আলাউদ্দিন (৩০) ও মো. আরজু মিয়া (৩৩)। এ সময় তাদের কাছ থেকে হত্যাকাণ্ডে ব্যবহৃত একটি ছুরি, ছিনতাইকৃত ইজিবাইক এবং ভিকটিমের ব্যবহৃত মোবাইল ফোন উদ্ধার করা হয়।
লে. কর্নেল আব্দুল্লাহ আল মোমেন জানান, পরিকল্পনা অনুযায়ী গত ১৫ অক্টোবর বিকালে আজিজুল ইসলাম, ইমন, পলাতক আসামি জুয়েল, বিজয় ও হৃদয় প্রকাশ মাসুম ময়নারটেক থেকে হরদি যাওয়ার জন্য ২০০ টাকায় সাইফুল ইসলামের ইজিবাইকটি ভাড়া করে। ঘটনাস্থলে পৌঁছার পর ছুরি দিয়ে সাইফুলের গলায় পোচ দেয় আজিজুল। এতে তিনি নিচে পড়ে যান। আবারো ছুরি দিয়ে তার শরীরের বিভিন্ন জায়গায় আঘাত করা হয়। এরপর জুয়েল ভিকটিমের ব্যবহৃত মোবাইল ফোন নিয়ে নেয় আর ইমন অটোরিকশাটি চালিয়ে গাজীপুরের পূবাইল মিরের বাজারে দিকে পালিয়ে যায়।
ছিনতাইকৃত অটোরিকশা কীভাবে বিক্রি করেছে সে সম্পর্কে আব্দুল্লাহ আল মোমেন বলেন, খুব অল্প দামে তারা ছিনতাই করা অটোরিকশাটি বিক্রি করে দেয়। অটোরিকশাটি তারা ৬০ হাজার টাকার চুক্তিতে ছিনতাই করেছিল। তবে বিক্রি করে মাত্র ২০ হাজার টাকায়। এই চক্রটি আগে ছিনতাই করলেও খুন করেনি। তারা নির্জন স্থানে নিয়ে চালককে হাত-পা বেঁধে ফেলে অটোরিকশা ছিনতাই করে পালাত।
উল্লেখ্য, গত ১৫ অক্টোবর দিবাগত রাতে গাজীপুরের কালীগঞ্জ থানাধীন পূর্বাচলের ২৬নং সেক্টরের ২০২নং সড়কের ৫৮নং ব্রিজ এলাকায় সাইফুল ইসলাম খুন হন। পরে নিহতের বড়ভাই শাহ আলম (৩৪) বাদী হয়ে কালীগঞ্জ থানায় মামলা করেন। এরপর র‌্যাব-১ ছায়াতদন্ত শুরু করে। একই সঙ্গে গোয়েন্দা নজরদারি বাড়ানো হয়। এরই ধারাবাহিকতায় গত শনিবার অভিযান চালিয়ে জড়িত ছয়জনকে গ্রেপ্তার করে র‌্যাব।

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়