ক্ষমা চেয়েছেন চীনা নাগরিক, টাকা চাননি সার্জেন্ট

আগের সংবাদ

জাতীয় পুরুষ বেসবল শুরু

পরের সংবাদ

‘জাতিসংঘের আমলে ১২ আন্তর্জাতিক মানবাধিকার সংস্থার চিঠি’

প্রকাশিত: জানুয়ারি ২২, ২০২২ , ১২:০০ পূর্বাহ্ণ আপডেট: জানুয়ারি ২২, ২০২২ , ১২:০০ পূর্বাহ্ণ

কাগজ ডেস্ক : শান্তিরক্ষা মিশনে র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়নকে (র‌্যাব) নিষিদ্ধ করতে ১২ শীর্ষ মানবাধিকার সংগঠনের পক্ষে জাতিসংঘে পাঠানো চিঠিটি আমলে নিয়েছে সংস্থাটি। মানবাধিকার সংস্থাগুলোর আহ্বানকে (র‌্যাবের নিষেধাজ্ঞা) গুরুত্ব দিচ্ছে জাতিসংঘ। গত বৃহস্পতিবার জাতিসংঘের নিয়মিত ব্রিফিংয়ে বাংলাদেশের মানবাধিকার পরিস্থিতির অবনতি এবং র‌্যাবের নিষেধাজ্ঞা ইস্যুতে করা দুজন সাংবাদিকের প্রশ্নের জবাবে এভাবেই জাতিসংঘের জবাব তুলে ধরেন মহাসচিব আন্থোনিও গুতেরেসের মুখপাত্র স্টিফেন ডোজারিক।
ডোজারিক জানান, মানবাধিকার বিষয়টিকে জাতিসংঘ সবচাইতে বেশি অগ্রাধিকার দেয়। বাংলাদেশে মানবাধিকার লঙ্ঘনের দায়ে জাতিসংঘ মিশনে র‌্যাবের নিষেধাজ্ঞার যে দাবি উঠেছে পিসকিপিং ডিপার্টমেন্ট তা অধিকতর গুরুত্বের সঙ্গে দেখভাল করবে বলেও উল্লেখ করেন মহাসচিবের মুখপাত্র।
নিয়মিত ব্রিফ্রিংয়ে জাতিসংঘের স্থায়ী সংবাদদাতা মুশফিকুল ফজল আনসারী জানতে চান- ‘১২ শীর্ষ মানবাধিকার সংগঠন জাতিসংঘ মিশনে র‌্যাবের নিষেধাজ্ঞার যে দাবি উঠেছে সে বিষয়ে আমি পূর্বের সহকর্মী জেমসের (আল জাজিরার ডিপ্লোমেটিক এডিটর) করা প্রশ্নের সম্পূরক একটা প্রশ্ন করতে চাই। এই চিঠিতের রবার্ট এফ কেনেডি হিউম্যান রাইটসের প্রেসিডেন্ট কেরি কেনেডি বলেছেন, র‌্যাবের মানবাধিকার লঙ্ঘনের প্রমাণ এখন হাতেনাতে। জাতিসংঘের এ ব্যাপারে সীমারেখা টেনে দেবার সময় এসেছে। এ মন্তব্যের সঙ্গে আপনি কী একমত পোষণ করেন?
জবাবে মহাসচিবের মুখপাত্র বলেন, আমরা চিঠিটি দেখেছি, পড়েছি এবং এতে যে বিষয়টির (মানবাধিকার লঙ্ঘন) কথা বলা হয়েছে সেটার দিকেই আমাদের মনোযোগ।
তিনি আরো বলেন, পিসকিপিং ডিপার্টমেন্টের আমাদের যে সহকর্মী বিষয়টি নিয়ে দায়িত্বপ্রাপ্ত তিনি মানবাধিকার লঙ্ঘনের বিষয়টি অধিকতর গুরুত্বের সঙ্গে দেখভাল করেন। একই কারণে বিগত বছরগুলোতে মানবাধিকার পরিস্থিতি উন্নয়ন এবং যাচাইবাছাই আমাদের কার্যক্রম অব্যাহত ছিল।
এর আগে ১২ মানবাধিকার সংগঠনের পাঠানো চিঠি, যুক্তরাষ্ট্রের আরোপ করা নিষেধাজ্ঞা এবং বাংলাদেশের মানবাধিকার পরিস্থিতি নিয়ে সংবাদ সম্মেলনে প্রশ্ন উত্থাপন করেন আন্তর্জাতিক গণমাধ্যম আল জাজিরার কূটনৈতিক এডিটর জেমস বেইস।
তিনি জানতে চান, বাংলাদেশের বিশেষ বাহিনী র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়নকে (র‌্যাব) শান্তিরক্ষা মিশন থেকে বাদ দিতে জাতিসংঘের পিসকিপিং অপারেশন এর আন্ডার সেক্রেটারির কাছে চিঠি পাঠিয়ে আহ্বান জানিয়েছে ১২ মানবাধিকার সংস্থা। আপনি এটাও অবগত আছেন, বাংলাদেশের এই বাহিনীর ওপর যুক্তরাষ্ট্র নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছে। এ বিষয়ে জাতিসংঘ কী অবগত? কিংবা কোনো পদক্ষেপ নিতে যাচ্ছে কিনা?
জবাবে ডোজারিক বলেন, আমরা যে চিঠিটা পেয়েছি সেটা খুব বেশি সময় হয়নি। আমরা আপনাকে যেটা স্মরণ করিয়ে দিতে চাই সেটা হলো- মানবাধিকার পরিস্থিতি যাচাইবাছাইয়ে জাতিসংঘ তার অবস্থান আরো দৃঢ় করেছে। সেটা যে কোনো দেশের যে কোনো বাহিনীই হোক। যা হচ্ছে তাকে আমরা খুব গুরুত্বের সঙ্গে বিবেচনা করছি।
মুখপাত্রের উত্তরের মধ্যেই সাংবাদিক জেমস আবার বলেন, বিভিন্ন মানবাধিকার সংগঠন যেটা বলছে এই বাহিনীকে (র‌্যাব) যদি এখনো মিশনে যুক্ত রাখা হয় তবে তা মানবাধিকার পক্ষে অবস্থান জোরাল থাকবে না। এর জবাবে ডোজারিক বলেন, আমি ইতোমধ্যে বলেছি। বিষয়টি আমরা খতিয়ে দেখছি।
উল্লেখ্য, শান্তিরক্ষা মিশন থেকে র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়নকে (র‌্যাব) অবিলম্বে বাদ দিতে জাতিসংঘের প্রতি আহ্বান জানিয়েছে আন্তর্জাতিক ১২টি শীর্ষ মানবাধিকার সংগঠন। এর পূর্বেও মানবাধিকার সংগঠনগুলো বাংলাদেশে অব্যাহত মানবাধিকার লঙ্ঘনের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেবার আহ্বান জানিয়েছিল বিশ্ব সংস্থাটির কাছে। র‌্যাবের মানবাধিকার লঙ্ঘনের সুস্পষ্ট প্রমাণ রয়েছে উল্লেখ করে জাতিসংঘের ‘পিস অপারেশন’-এর আন্ডার সেক্রেটারি জেনারেল জিন পিয়েরে ল্যাক্রোইক্স কাছে একটি চিঠি পাঠিয়েছে ১২ শীর্ষ মানবাধিকার সংস্থা। গত বৃহস্পতিবার হিউম্যান রাইটস ওয়াচের তাদের এক প্রতিবেদনে এ তথ্য প্রকাশ করেছে।

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়