সিদ্ধান্ত পরিবর্তন : শতভাগ যাত্রী নিয়ে চলবে গণপরিবহন

আগের সংবাদ

উৎসব-উৎকণ্ঠার ভোট আজ : সবার দৃষ্টি নারায়ণগঞ্জে > আইভী-তৈমূরের লড়াইয়ে বাড়তি মাত্রা শামীম ওসমান

পরের সংবাদ

কাতার বিশ্বকাপ মাতাবেন চার তরুণ তুর্কি

প্রকাশিত: জানুয়ারি ১৫, ২০২২ , ১২:০০ পূর্বাহ্ণ আপডেট: জানুয়ারি ১৫, ২০২২ , ১২:০০ পূর্বাহ্ণ

কাগজ ডেস্ক : ফুটবল বিশ্বের স¤্রাট পেলে গত শতাব্দীতে মাত্র ১৭ বছর বয়সে ব্রাজিলকে প্রথম বিশ্বকাপ শিরোপা এনে দিয়েছিল। ঠিক সমান বয়সে না হলেও ২০১৮ সালে মাত্র ১৯ বছর বয়সে ফ্রান্সকে ফিফা বিশ্বকাপ জিততে সাহায্য করেছিল কিলিয়ান এমবাপ্পে। বর্তমান ফুটবল বিশ্বের সবচেয়ে দামি এই ফুটবলারের নজর কাতার বিশ্বকাপেও। তবে ব্রাজিলের হয়ে এবার ২০২২ বিশ্বকাপ মাতাবেন ভিনিসিয়াস জুনিয়র। ২০১০ বিশ্বকাপজয়ী স্পেনের এবার আশার আলো আনসু ফাতি।
রাশিয়া বিশ্বকাপের পর্দা নেমেছে প্রায় চার বছর। এবার ফুটবল বিশ্বের নজর কাতার বিশ্বকাপের দিকে। আগামী ২১ নভেম্বর মধ্যপ্রাচ্যের দেশ কাতারে বসতে যাচ্ছে ফিফা বিশ্বকাপের ২২তম আসর। গত বিশ্বকাপে আলো ছড়িয়ে মাত্র ১৯ বছর বয়সে ফ্রান্সকে বিশ্বকাপ জিতিয়েছিলেন কিলিয়ান এমবাপ্পে। গত চার বছরে তার পারফরম্যান্স আরো কয়েক গুণ বেড়েছে। নিজের ক্যারিয়ারে তাই দ্বিতীয়বার ফুটবল বিশ্বের সবচেয়ে আকর্ষণীয় ও মূল্যবান ট্রফিটির দিকে চোখ তার। তার সঙ্গে এবার কাতারের মাঠ মাতাতে প্রস্তুত ব্রাজিলিয়ান তরুণ ফরোয়ার্ড ভিনিসিয়াস জুনিয়র ও স্প্যানিশ তরুণ ফরোয়ার্ড আনসু ফাতি।
ফরাসি এমবাপ্পে ইতোমধ্যে সফল। লিওনেল মেসি, ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো, নেইমার জুনিয়রদের মতো তারকা ফুটবলাররা যে ট্রফির স্বাদ নিজেদের ক্যারিয়ারে পাননি, সেটা তিনি মাত্র ১৯ বছর বয়সে অর্জন করে নিয়েছেন। রাশিয়া বিশ্বকাপে এমবাপ্পে ৪টি গোল করেছেন। পেরুর বিপক্ষে গ্রুপপর্বের ম্যাচে গোল করে তিনি বিশ্বকাপে তার গোল যাত্রা শুরু করেন। এরপর আর্জেন্টিনাকে ৪-৩ গোলের ব্যবধানে হারানোর দিনে দলের হয়ে তিনি ২টি গোল করেন। ফুটবল বিশ্বকাপে পেলের পরে এমবাপ্পেই একমাত্র ফুটবলার যিনি কম বয়সি হিসেবে এক ম্যাচে দুই গোল করার রেকর্ড গড়েন। এরপর রাশিয়া বিশ্বকাপের ফাইনালে ক্রোয়েশিয়ার বিপক্ষে ৪-২ গোলের ব্যবধানে জিতে শিরোপা জয়ের দিনেও তিনি একটি গোল করেন। ওই আসরে চার গোল করে তিনি ফিফা বেস্ট ইয়ং প্লেয়ার অ্যাওয়ার্ড জিতে নেন। এদিকে কাতার বিশ্বকাপের আগেও দুর্দান্ত ফর্মে আছেন এমবাপ্পে। চলতি মৌসুমে পিএসজির জার্সি গায়ে ২৬ ম্যাচে করেছেন ১৮টি গোল। তাছাড়া ফ্রান্সের জার্সি গায়ে ইউরোপ অঞ্চলের বিশ্বকাপ বাছাইপর্বের ম্যাচে তিনি ৫টি গোল করেন। ট্রান্সফারমার্কেটের তথ্য অনুয়ায়ী, বিশ্বের সবচেয়ে দামি এই ফুটবলার এখন আরো পরিণত এবং রাশিয়া বিশ্বকাপের তুলনায় আরো অভিজ্ঞ। তার হাত ধরে ফরাসিরা তৃতীয় ফিফা বিশ্বকাপ জয়ের স্বপ্ন দেখছে।
ফুটবল বিশ্বে ব্রাজিল এমন একটি দল যাদের এক তারকা বিদায় না নিতেই জন্ম হয় আরেক তারকার। পেলে থেকে শুরু করে রোনালদো, রোলালদিনহো, রিভালদো, কাকা ব্রাজিলকে জিতিয়েছেন একে একে ৫টি ফিফা বিশ্বকাপ। তবে তাদের পরে তারকা হয়ে আসা নেইমার জুনিয়র নিজের অর্জনের খাতা বড় করতে পারেননি। যদিও এখনো সুযোগ আছে তার হাতে দেশকে ষষ্ঠ বিশ্বকাপ এনে দেয়ার। নেইমারকে এ অর্জনে সহযোগিতা করতে পারে ব্রাজিল দলে এমন বেশ কিছু প্রতিভাবান ফুটবলার যুক্ত হয়েছেন। তাদের মধ্যে সবচেয়ে সম্ভাবনাময়ী ফুটবলার বলা যায় ভিনিসিয়াসকে। ফুটবল বিশ্বে ভিনির পদচারণা অবশ্য ২০১৮ সালে স্প্যানিশ জায়ান্ট ক্লাব রিয়াল মাদ্রিদে যোগদানের মাধ্যমে। ২০১৯ সালে ব্রাজিলের জাতীয় দলের হয়ে একটি আন্তর্জাতিক ম্যাচও খেলেন তিনি। তবে রিয়াল মাদ্রিদ অথবা ব্রাজিল কোথাও আলো ছড়াতে পারেননি ভবিষ্যৎ এই তারকা। তাই এতদিন এই প্রতিভাবান ছিলেন অন্তরালে। তবে চলতি মৌসুমটা রিয়ালের হয়ে দুর্দান্ত কাটছে ভিনির। এই যেমন গত বুধবার স্প্যানিশ সুপার-কাপের ম্যাচে চিরপ্রতিদ্ব›দ্বী বার্সেলোনার বিপক্ষে ম্যাচের প্রথমে গোল করে দলকে এগিয়ে দেন। এরপর হাড্ডাহাড্ডি লড়াইয়ে ম্যাচের অতিরিক্ত মিনিটে ফেদেরিকোকে দিয়ে গোল করিয়ে দলের জয় নিশ্চিত করেন। ভিনি ম্যাচে গোল করেন, গোল করান এবং দলকে জয় এনে দিয়ে মাঠ ছাড়েন। লা লিগায় এমনটা নিয়মিতই দেখা যায়। চলতি মৌসুমে ইতোমধ্যে রিয়ালের জার্সি গায়ে ২৭ ম্যাচে ১৫ বার প্রতিপক্ষের জাল কাঁপিয়েছেন ২১ বছর বয়সি ব্রাজিলিয়ান এই তরুণ। এর মধ্যে স্প্যানিশ শীর্ষ লিগ লা লিগায় ২০ ম্যাচে ১২ গোল করে তালিকার দ্বিতীয় সর্বোচ্চ গোলদাতা ভিনি। গত বছর পর্যন্ত দলবদলের বাজার জমিয়ে রেখেছিল ফরাসি তরুণ তারকা কিলিয়ান এমবাপ্পে ও নরওয়েজিয়ান তারকা আর্লিং হরল্যান্ড। তবে চলতি বছর তাদের সঙ্গে আগামীর সম্ভাবনাময় তারকার জায়গা দখল করে নিয়েছেন ভিনি। তাই দলবদলের বাজারে তার দামটাও এখন চড়া। দলবদলের তথ্যের জন্য বিখ্যাত ওয়েবসাইট ট্রান্সফারমার্কেটে বিশ্বের সবচেয়ে দামি ফুটবলার এমবাপ্পে ও হরল্যান্ড। তাদের পরে তৃতীয় সর্বোচ্চ দামি ফুটবলার ভিনি। ট্রান্সফারমার্কেটের তথ্য অনুযায়ী, ১৬০ মিলিয়ন ইউরো বাজারমূল্য নিয়ে সবার উপরে এমবাপ্পে, ১৫০ মিলিয়ন ইউরো নিয়ে দুইয়ে হরল্যান্ড। অন্যদিকে গত মৌসুমে তালিকায় দশেও না থাকা ভিনি ১০০ মিলিয়ন বাজারমূল্য নিয়ে আছেন তালিকার তিনে।
এদিকে ২০১০ বিশ্বকাপজয়ীদের কাতার বিশ্বকাপে আশার ভরসা তরুণ ফরোয়ার্ড আনসু ফাতি। ১৯ বছর বয়সি এই প্রতিভাবান ফুটবলার এমবাপ্পেকে অনুপ্রেরণা হিসেবে নিতে পারেন। এই বয়সেই যে ফরাসি তরুণ রাশিয়া বিশ্বকাপে বিশ্বকে চমকে দিয়ে চ্যাম্পিয়ন হয়েছিল। আনসু ফাতি অবশ্য চলতি মৌসুমটা নিজেকে প্রমাণের খুব একটা সুযোগ পাননি। ইনজুরিতে কাটিয়েছেন বেশির ভাগ সময়। এর মধ্যে বার্সার জার্সি গায়ে মাঠে নামার সুযোগ হয়েছে মাত্র ৯ ম্যাচে। গোলের দেখা পেয়েছেন ৫ বার। এর আগে ২০১৯ সালে ফাতি বার্সার জার্সি গায়ে জড়ানোর সুযোগ পান। এখন পর্যন্ত স্প্যানিশ জায়ান্ট ক্লাবটির হয়ে ৫২ ম্যাচে অংশ নিয়ে ১৮ বার গোলের দেখা পেয়েছেন ফাতি। লিওনেল মেসি বার্সেলোনা ছেড়ে যাওয়ার পর থেকে বার্সা নতুন করে স্বপ্ন দেখছে ফাতিকে নিয়ে। তরুণ সম্ভাবনাময়ী এই ফুটবলার জাতীয় দলের জার্সি গায়ে অভিষেক হয় ২০২০ সালের অক্টোবরে। স্পেনের হয়ে ৪ ম্যাচে তিনি ১টি গোল করেছেন। ক্লাব বার্সার পাশাপাশি, স্পেনও তার মধ্যে দারুণ সম্ভাবনা দেখছে। ইনজুরি কাটিয়ে ফাতি আবার মাতাবেন লা লিগা, মাতাবেন কাতার বিশ্বকাপ।
এদিকে বিশ্বকাপে নেদারল্যান্ডসকে স্বপ্ন দেখাচ্ছে মেম্ফিস ডিপাই। ইউরোপ অঞ্চলের বিশ্বকাপ বাছাইপর্বের ম্যাচে সর্বোচ্চ গোলদাতা এই ডাচ ফুটবলার। বাছাইপর্বে ১০ ম্যাচে তিনি গোল করেছেন ১২টি। আর্লিং হরল্যান্ডের মতো তারকা ফুটবলার ডাচদের গ্রুপে পড়ে নিজের দেশকে বিশ্বকাপে নিয়ে যেতে পারেননি। বলা যায় ডিপাই নৈপুণ্যে নেদারল্যান্ডস গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হয়ে কাতার বিশ্বকাপের টিকেট কেটেছে। লা লিগায় বার্সেলোনার হয়েও নিয়মিত নিজের পারফরম্যান্স ঝলক দেখিয়ে যাচ্ছেন এই ডাচ তারকা। চলতি মৌসুমে ১৬ ম্যাচে তিনি পেয়েছেন ৮ গোলের দেখা। তিনবারের ফিফা বিশ্বকাপের রানার্স-আপ নেদারল্যান্ডস এবার ডিপাইয়ের হাত ধরে প্রথম বিশ্বকাপ জয়ের দাবি করতেই পারেন।
এদিকে ২০১৮ সালে রাশিয়া বিশ্বকাপের গোল্ডেন বুট জয়ী ইংলিশ তারকা ফুটবলার হ্যারিকেনও আছেন দুর্দান্ত ফর্মে। ইউরোপ অঞ্চলের বিশ্বকাপ বাছাইপর্বের ম্যাচে ১২ গোল করে ডিপাইয়ের সঙ্গে যৌথভাবে সর্বোচ্চ গোলদাতা এই ইংলিশ তারকা। এদিকে পোলিশ তারকা রবার্ট লেভানদোভস্কিকেও তালিকা থেকে বাদ দেয়া যায় না। জার্মান বুন্দেসলিগায় একের পর এক গোলের রেকর্ড গড়েই যাচ্ছেন তিনি। ক্লাবকে জিতিয়ে যাচ্ছেন শিরোপার পর শিরোপা। আট গোল করে ইউরোপের বাছাইয়ে তিনি তৃতীয় সর্বোচ্চ গোলদাতা।

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়