গুলশানের ইউনিমার্ট ভবনের আগুন নিয়ন্ত্রণে

আগের সংবাদ

ধাক্কা কাটিয়ে চাঙ্গা অর্থনীতি

পরের সংবাদ

সোনাইমুড়ীতে মন্দিরের ২ মূর্তি ভাঙচুর : দানবাক্স লুট

প্রকাশিত: নভেম্বর ২২, ২০২১ , ১২:০০ পূর্বাহ্ণ আপডেট: নভেম্বর ২২, ২০২১ , ১২:০০ পূর্বাহ্ণ

নাজমুল হক, সোনাইমুড়ী (নোয়াখালী) থেকে : সোনাইমুড়ীর সোনাপুর ইউনিয়নে সনাতন ধর্মাবলম্বীদের মন্দিরে ভাঙচুর ও লুটের ঘটনা ঘটেছে। গত শনিবার মধ্যরাতে অজ্ঞাত দুর্বৃত্তরা এ ঘটনা ঘটিয়েছে বলে মন্দির কমিটির সদস্য ও স্থানীয়রা জানিয়েছের। রবিবার সকালে উপজেলা চেয়ারম্যান খন্দকার রুহুল আমিন, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ফজলুর রহমান জেলা হিন্দু-বৌদ্ধ-খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদের সহসভাপতি ডা. পতিত বন্ধু দেবনাথ ঘটনা স্থল পরিদর্শন করেন। ঘটনার সুষ্ঠু তদন্ত ও দোষীদের বিরুদ্ধে আইনানুক ব্যবস্থা নেয়ার জন্য নির্দেশ দিয়েছেন স্থানীয় সংসদ সদস্য এইচ এম ইব্রাহীম।
জানা যায়, উপজেলার ৮ নম্বর সোনাপুর ইউনিয়নের ধন্যপুর গ্রামের শীল বাড়িতে অবস্থিত শ্রীশ্রী গৌড় মন্দিরে প্রতিদিনের মতো প্রভাতি পূজা দিতে আসেন অর্চনা রানী শীল (৫০) নামে এক ভক্ত।
মন্দিরের লোহার দরজার তালা ভাঙা দেখতে পেয়ে তিনি ভেতরে প্রবেশ করেন। এ সময় তিনি দেখতে পান মন্দিরের সরস্বতী ও রাধা গোবিন্দ মূর্তি দুটি ভাঙা অবস্থায় পড়ে আছে। ভেতরের পূজা সামগ্রী তছনছ করে রেখেছে। বিষয়টি তিনি বাড়ির অন্য সদস্যদের জানালে তারা তাৎক্ষণিক থানায় খবর দেন। পুলিশ ঘটনাস্থলে এসে মূর্তির ভগ্নাংশ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসে।
মন্দির কমিটির সাধারণ সম্পাদক ছানালাল শীল জানান, দীর্ঘ ৩০ বছরের বেশি সময় ধরে এই মন্দিরে পূজা অর্চনা হয়ে আসছে। কিন্তু এ ধরনের ঘটনা আর ঘটেনি। মন্দিরের ব্যাপক ক্ষতি করা হয়েছে। দানবাক্স লুট করা হয়েছে। যার মধ্যে বিপুল পরিমাণ অর্থ ছিল। স্থানীয়দের অভিযোগ, এলাকায় বখাটে মাদকসেবীর সংখ্যা বৃদ্ধি পাওয়ায় প্রতিনিয়ত জনমনে আতঙ্ক বিরাজ করছে।
এ বিষয়ে কথা হলে সোনাইমুড়ী থানা পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) ইব্রাহীম খলিল জানান, এ ঘটনার তদন্ত এরই মধ্যে শুরু হয়েছে। মন্দির কমিটির লোকদের লিখিত অভিযোগ দেয়ার কথা বলা হয়েছে। অপরাধীদের আটক করার চেষ্টা চলছে।

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়