স্বপ্নজয়ের পদ্মা সেতুর নিরাপত্তায় বাংলাদেশ সেনাবাহিনী

আগের সংবাদ

হাওর জনপদে স্বাস্থ্যসেবা ‘নেই’

পরের সংবাদ

ভারতের আবদারে ক্ষুব্ধ পাকিস্তান

প্রকাশিত: জুন ২৬, ২০২২ , ১২:০০ পূর্বাহ্ণ আপডেট: জুন ২৬, ২০২২ , ১২:০০ পূর্বাহ্ণ

কাগজ ডেস্ক : বিশ্বের সবচেয়ে বড় ফ্রাঞ্চাইজি ক্রিকেট টুর্নামেন্ট ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগ (আইপিএল)। বিভিন্ন দেশের ক্রিকেটাররা এই টুর্নামেন্টে খেলতে মুখিয়ে থাকে পুরো বছর। বেশির ভাগ সময় ক্রিকেটাররা নিজের দেশ ছেড়ে আইপিএলকে বেছে নেন। ফলে আন্তর্জাতিক অনেক সিরিজ বাধার মুখে পড়ে। এছাড়া অনেক সময় বোর্ডের পক্ষ থেকে এই টুর্নামেন্টের জন্য থাকে বিশেষ ছাড়।
নির্বিঘেœ আয়োজন এবং বিদেশি খেলোয়াড়দের বাঁধাহীনভাবে অংশগ্রহণের লক্ষ্যে আইসিসির ফিউচার ট্যুর প্রোগ্রামে (এফটিপি) আইপিএলকে প্রায় আড়াই মাসের একটি উইন্ডো দেয়ার আবেদন করেছে বিসিসিআই। কয়েকদিন আগে বিসিসিআই সচিব জয় শাহ জানিয়েছেন, আইসিসির এফটিপির আগামী চক্র থেকেই আড়াই মাসের আলাদা সময় ধরা থাকবে আইপিএলের জন্য। জুলাইয়ে আইসিসির সাধারণ সভায় এই ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নেয়ার কথা রয়েছে।
এদিকে ভারতের এমন আবদারের বিরোধিতা করেছে চির প্রতিদ্ব›দ্বী পাকিস্তান। দুদেশের রাজনৈতিক বৈরিতার ফলে আইপিএলে পাকিস্তানের ক্রিকেটাররা খেলার সুযোগ পান না। এমন একটি টুর্নামেন্টে বাড়তি উইন্ডো পেলে পাকিস্তানের ক্রিকেটেরই ক্ষতি হবে বলে মনে করেন পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ডের প্রধান রমিজ রাজা। আইসিসির সাধারণ সভায় বিষয়টি নিয়ে আনুষ্ঠানিকভাবে প্রতিবাদ জানানোর কথা জানিয়েছেন তিনি। গত পরশু এই প্রসঙ্গে তিনি বলেছেন, আড়াই মাস সময় বরাদ্দের বিষয়ে আইসিসির পক্ষ থেকে এখনো কোনো ঘোষণা আসেনি কিংবা চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত হয়নি। আইসিসি সভায় আমি এ বিষয়ে আমার মতামত জানাব। আমরা বিষয়টির বিরোধিতা করব। তিনি আরও বলেছেন, বিশ্ব ক্রিকেটের উন্নয়নের জন্য কাজ করছে আইসিসি। তারা যদি আড়াই মাস আইপিএলকে দেয়, তার মানে অন্য কেউ বঞ্চিত হবে। আমরা বঞ্চিত হব।

৫ বছরের জন্য (২০২৩-২০২৭) আইপিএলে স¤প্রচার স্বত্ব ৪৮ হাজার ৩৯০.৫ কোটি রুপিতে বিক্রি করেছে বিসিসিআই। স¤প্রচার স্বত্বের দিক আইপিএল এখন বিশ্বের দ্বিতীয় সবচেয়ে দামি টুর্নামেন্ট। এমন আকাশছোঁয়া মূল্যে স¤প্রচার স্বত্ব বিক্রি হওয়ার পর আইপিএলের আকার বাড়তে পারে। গত বছর আইপিএলে নতুন দুটি দল যুক্ত হয়। ফলে বর্তমানে টুর্নামেন্টের দল সংখ্যা ১০। স্বাভাবিকভাবে ম্যাচের সংখ্যাও বেড়েছে। আগের ৬০ ম্যাচ এখন হয়েছে ৭৪। এছাড়া আগামী বছর আরো ১০টি ম্যাচ বাড়ানোর পরিকল্পনা রয়েছে বিসিসিআইয়ের। সেক্ষেত্রে ৮৪ ম্যাচ আয়োজনের জন্য লম্বা সময়ের প্রয়োজন হবে।
এদিকে গত বছরের ১৫ অক্টোবর আইপিএলের ফাইনাল দেখার আমন্ত্রণ পেয়েছিলেন বলে জানিয়েছেন রমিজ রাজা। চেন্নাই সুপার কিংস ও কালকাতা নাইট রাইডার্সের মধ্যকার ওই ম্যাচ দেখার জন্য বিসিসিআই সভাপতি সৌরভ গাঙ্গুলী আমন্ত্রণ জানিয়েছিলেন বলে জানান তিনি। এ সম্পর্কে প্রেস ট্রাস্ট অব ইন্ডিয়াকে রমিজ বলেছেন, গত বছর দুবার গাঙ্গুলী আমাকে আইপিএল ফাইনালে অংশগ্রহণের জন্য আমন্ত্রণ জানিয়েছিল। ক্রিকেটীয় দৃষ্টিভঙ্গি অনুযায়ী তখন আমি সেখানে যাওয়া উচিত বলেই মনে করেছিলাম। কিন্তু পরে মনকে বাধা দেই। সেটার মূল কারণ রাজনৈতিক পরিস্থিতি।

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়