নতুন রাজনৈতিক দল নিবন্ধনের গণবিজ্ঞপ্তি

আগের সংবাদ

অনুমোদনহীন ক্লিনিক ও ডায়াগনস্টিক সেন্টার : অভিযানে বন্ধ অনেক প্রতিষ্ঠান

পরের সংবাদ

রাণীশংকৈলের বাচোর ইউপি : বিদ্যুৎ সংযোগ না থাকায় ভোগান্তিতে সেবাপ্রার্থীরা

প্রকাশিত: মে ২৮, ২০২২ , ১২:০০ পূর্বাহ্ণ আপডেট: মে ২৮, ২০২২ , ১২:০০ পূর্বাহ্ণ

রাণীশংকৈল (ঠাকুরগাঁও) প্রতিনিধি : রাণীশংকৈল উপজেলার বাচোর ইউনিয়ন পরিষদে দীর্ঘদিন ধরে বিদ্যুৎ বিল বকেয়া থাকায় সংযোগ বিচ্ছিন্ন করেছে পল্লী বিদ্যুৎ কর্তৃপক্ষ। এতে জন্মনিবন্ধন, মৃত্যুর সনদ, ওয়ারিশ সনদের দুর্ভোগে পড়েছেন ইউনিয়নের বাসিন্দারা।
স্থানীয়রা জানান, প্রতিদিন শত শত মানুষ জন্মনিবন্ধন, মৃত্যুর সনদ, ওয়ারিশনার সনদ নিতে এসে ফেরত যাচ্ছেন। এ সুযোগে উদ্যোক্তারা বিদ্যুৎ না থাকার অজুহাতে নিজ বাড়িতে বসে কিছু মানুষের কাছে অতিরিক্ত অর্থ আদায় করার অভিযোগ উঠেছে। গতকাল রবিবার পরিষদে গিয়ে দেখা যায়, আমজুয়ান গ্রামের অবপ্রাপ্ত সেনা সদস্য সেকেন্দার আলী, আলী হোসেন, পশির উদ্দীনসহ অনেকেই জন্মনিবন্ধন, মৃত্যুর সনদ, ওয়ারিশনার সনদ নিতে এসে ফেরত যাচ্ছেন। চোপড়া গ্রামের ইব্রাহিম জানান, বিদ্যুৎ না থাকার অজুহাতে ইউপি সচিবের যোগসাজশে উদ্যোক্তা দারুল ও নুর প্রতি সনদে ৪০০-৫০০ টাকা আদায় করেন নিজ বাড়িতে বসে।
এ প্রসঙ্গে ইউপি চেয়ারম্যান জিতেন্দ্র নাথ বর্মন বলেন, আমি অসুস্থ। তবে বিদ্যুৎ লাইন বিচ্ছিন্নের বিষয়টি আমি জানি। উদ্যোক্তারা অতিরিক্ত অর্থ আদায় করার বিষয়টি আমার জানা নেই। ইউপি সচিব প্রদীপ কুমার বলেন, বিদ্যুৎ লাইন বিচ্ছিন্ন রয়েছে, বিল পরিশোধের ব্যবস্থা হচ্ছে। পল্লী বিদ্যুৎ কর্মকর্তা আসফাক খাইরুন বলেন, প্রায় ৫০ হাজার টাকা বাচোর ইউনিয়ন পরিষদের বকেয়া রয়েছে। বিল পরিশোধ করলেই বিদ্যুৎ সংযোগ দেয়া হবে।
দীর্ঘদিন ধরে ইউনিয়ন পরিষদে বিদ্যুৎ না থাকায় এবং জনদুর্ভোগের বিষয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সোহেল সুলতান জুলকার নাইন কবিরের মুঠোফোনে যোগাযোগ করার চেষ্টা করলেও তিনি ফোন রিসিভ করেননি।

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়