গ্যালারি কায়া : বাংলাদেশ-ভারতের শিল্পীদের নিয়ে ‘এপিক ১৯৭১’

আগের সংবাদ

স্বস্তির ভোটে আইভীর হ্যাটট্রিক : সব শঙ্কা উড়িয়ে সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণ ভোট, শামীম ওসমানের কেন্দ্রে হেরেছে নৌকা

পরের সংবাদ

আইনমন্ত্রী : চট্টগ্রামে শিগগিরই হাইকোর্টের সার্কিট বেঞ্চ স্থাপন

প্রকাশিত: জানুয়ারি ১৬, ২০২২ , ১২:০০ পূর্বাহ্ণ আপডেট: জানুয়ারি ১৬, ২০২২ , ১২:০০ পূর্বাহ্ণ

চট্টগ্রাম অফিস : চট্টগ্রাম কোর্ট হিল নিয়ে আইনজীবী সমিতি ও জেলা প্রশাসনের মধ্যে যে বিরোধ চলছে, সেই সমস্যার সমাধান শিগগিরই হবে বলে জানিয়েছেন আইনমন্ত্রী আনিসুল হক। গতকাল শনিবার দুপুরে জেলা আইনজীবী সমিতির ‘মিলনমেলায়’ ভার্চুয়ালি অংশগ্রহণ করে তিনি এ কথা বলেন।
আইনজীবীদের উদ্দেশে আইনমন্ত্রী বলেন, ‘চট্টগ্রাম বার এসোসিয়েশনের ঐতিহ্য আজকের নয়, এ সমিতি অনেক সমৃদ্ধ। আপনারা যে সমস্যার সম্মুখীন হচ্ছেন এবং সেটি যেভাবে ধৈর্যের সঙ্গে আইনিভাবে মোকাবিলা করছেন তা সত্যি প্রশংসনীয়। তিনি বলেন, আমরা এ সমস্যার সমাধান করতে পারব। আমার মনে হয়, সব পক্ষই চায় এ আলোচনা শেষ হোক। আমি মনে করি, এটির ন্যায়সঙ্গত এবং সুষ্ঠু সমাধান হবে। চট্টগ্রামে হাইকোর্টের সার্কিট বেঞ্চ স্থাপন বিষয়ে আইনমন্ত্রী বলেন, চট্টগ্রামে শিগগিরই হাইকোর্টের সার্কিট বেঞ্চ স্থাপন করা হবে। আমরা কিছুদিনের মধ্যে এ বিষয়ে একটি ঘোষণা দেব। সদ্য নিয়োগপ্রাপ্ত প্রধান বিচারপতিও এ ব্যাপারে আন্তরিক আছেন। দেশে আইনের শাসন প্রতিষ্ঠায় সরকার বদ্ধ পরিকরই শুধু নয়, এক্ষেত্রে যা যা করার তাই করা হবে।’
মিলনমেলায় ভার্চুয়ালি যুক্ত হয়ে শিক্ষা উপমন্ত্রী ব্যারিস্টার মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল বলেন, চট্টগ্রামে আইনজীবীদের সঙ্গে জেলা প্রশাসকের মধ্যে যে বিরোধ চলছে তা খুব দ্রুত নিরসন করা হবে। করোনা পরিস্থিতিতেও যেন আইন বিভাগ সচল রাখা যায় সে জন্য আইনজীবীদের স্বাস্থ্যবিধি কঠোরভাবে মেনে চলতে হবে।
আইন মন্ত্রণালয়ের সচিব মো. গোলাম সরওয়ার বলেন, ১৯৮৮ সালে চট্টগ্রামে বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে হত্যার চেষ্টা করা হয়েছিল। সেদিন চট্টগ্রামের আইনজীবীরা বেষ্টনী দিয়ে তাকে প্রাণে রক্ষা করেন। চট্টগ্রামের আইনজীবীদের গণতান্ত্রিক আন্দোলনে ভূমিকা অপরিসীম। তিনি বলেন, দেশে সাংবিধানিক শাসন প্রতিষ্ঠায় আইনজীবীদের ভূমিকা অনেক গুরুত্বপূর্ণ। তারাই দেশের গণতান্ত্রিক পরিবেশ রক্ষায় এগিয়ে আছেন, আগামীতেও এগিয়ে থাকবেন এ প্রত্যাশা ব্যক্ত করেন আইন সচিব।
অ্যাটর্নি জেনারেল এ এম আমিন উদ্দিন বলেন, চট্টগ্রাম আইনজীবী সমিতি অনেক বর্ষীয়ান আইনজীবীর জন্ম দিয়েছেন, যারা আইন অঙ্গনের দিকপাল। তাদের ধারাবাহিকতায় এখানকার পরবর্তী প্রজন্ম এই পেশায় সফল হবেন বলে আশা করি। করোনা পরিস্থিতিতে নানা প্রতিকূলতার মধ্যে দিয়েও সরকার আইন পেশা ও বিচার বিভাগকে সচল রেখেছেন। আগামীতে করোনার যে ভয়াবহতা আসছে তা থেকে নিজেকে, বিচারপ্রার্থী ও বিচারকদের সুরক্ষা করতে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার আহ্বান জানান তিনি।
অনুষ্ঠানে চট্টগ্রাম মহানগর দায়রা জজ আশফাকুল রহমান বলেন, চট্টগ্রামের আইনজীবীদের মধ্যে জেলা প্রশাসকের বিরোধ নিরসনের জন্য উচ্চ পর্যায়ে আলাপ-আলোচনা চলছে। খুব সহসা সব সমস্যা সমাধান হবে বলে তিনি আশাবাদ ব্যক্ত করেন। চট্টগ্রাম জেলা আইনজীবী সমিতির আয়োজনে কোর্টহিলস্থ আইনজীবী অডিটোরিয়ামে এই মিলনমেলায় সভাপতিত্ব করেন সমিতির সভাপতি মুহাম্মদ এনামুল হক। অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন চিফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট রবিউল আলম, বাংলাদেশ সুপ্রিমকোর্ট আইনজীবী সমিতির সাধারণ সম্পাদক রুহুল কুদ্দুস কাজল, বাংলাদেশ বার কাউন্সিলের সদস্য মুজিবুল হক, সাধারণ সম্পাদক এএইচএম জিয়াউদ্দিন প্রমুখ।

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়