পরিকল্পনামন্ত্রী : দেশে রাজনীতিবিদের চেয়ে আমলাতন্ত্রের দাপট বেশি

আগের সংবাদ

শ্যামল দত্ত’র প্রত্যয় : চ্যালেঞ্জ মোকাবিলা করেই এগিয়ে যাবে ভোরের কাগজ

পরের সংবাদ

নওগাঁয় খাদ্যমন্ত্রী : মুক্তিযুদ্ধের সঠিক ইতিহাস জানতে বই পড়তে হবে

প্রকাশিত: জানুয়ারি ১, ২০২২ , ১২:০০ পূর্বাহ্ণ আপডেট: জানুয়ারি ১, ২০২২ , ১২:০০ পূর্বাহ্ণ

নওগাঁ প্রতিনিধি : খাদ্যমন্ত্রী সাধন চন্দ্র মজুমদার বলেছেন, নতুন প্রজন্মকে আমাদের স্বাধীনতা ও মুক্তিযুদ্ধের প্রকৃত ইতিহাস জানতে হলে বেশি বেশি করে বই পড়তে হবে। বর্তমান প্রজন্ম বই পড়া থেকে দূরে সরে গেছে। তার পরিবর্তে মোবাইল, ফেসবুক, টুইটারে আসক্ত হয়ে পড়েছে। এই আসক্তি থেকে কোনো জ্ঞান লাভ করা যায় না। অথচ বই পড়া থেকে অর্জিত জ্ঞান মৃত্যুর পূর্ব মুহূর্ত পর্যন্ত মনে থাকে। গত বৃহস্পতিবার বিকাল সাড়ে ৫টায় শহরের মুক্তির মোড়ে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী উদযাপন জাতীয় বাস্তবায়ন কমিটির উদ্যোগে সাংস্কৃতিক মন্ত্রণালয়ের সার্বিক ব্যবস্থাপনায় ও জেলা প্রশাসনের বাস্তবায়নে ৪ দিনব্যাপী বঙ্গবন্ধু ও স্বাধীনতা বইমেলার উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। জেলা প্রশাসক মো. হারুন-অর-রশিদের সভাপতিত্বে উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে সংসদ সদস্য আনোয়ার হোসেন হেলাল, জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আব্দুল মালেক, পুলিশ সুপার প্রকৌশলী আব্দুল মান্নান মিয়া, নওগাঁ সরকারি কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর নাজমুল হাসান এবং বইমেলা উদযাপন কমিটির সদস্য সচিব জেলা প্রন্থাগারিক এস এম আসিফ বক্তব্য রাখেন।
সাধন চন্দ্র মজুমদার বলেন, আমাদের ভাষা আন্দোলন, ৬ দফা, গণঅভ্যুত্থান, ’৭০-এর নির্বাচন, মুক্তিযুদ্ধ, স্বাধীনতা অর্জন, বঙ্গবন্ধুকে হত্যা, কারাগারে ৪ নেতাকে হত্যা বাংলাদেশের পর্যায়ক্রমিক ইতিহাস। বেশি বেশি এবং সঠিক বই না পড়ার কারণে একটি মহল এসব ইতিহাস বিকৃতির প্রচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে। এই অপচেষ্টাকে রুখে দিয়ে সঠিক ইতিহাস প্রতিষ্ঠার জন্য এই প্রজন্মের সন্তানদের হাতে সঠিক বই তুলে দিতে হবে।
মন্ত্রী বলেন, পাঠ্যবই পড়ার পাশাপাশি সবাইকে অন্যান্য বই কিনতে হবে, বই পড়তে হবে। দেশের ইতিহাস, ঐতিহ্য, কৃষি, সংস্কৃতি, গল্প, কবিতাসহ সব ধরনের বই পড়তে হবে। বই পড়লে নিজেদের জ্ঞানের ভাণ্ডার প্রসারিত হয়। জানা যায় অনেক কিছু। এখন একটি বিষয় খুবই লক্ষণীয়, সেটা হচ্ছে বই পড়ার প্রতি কেন জানি সবার অনাগ্রহ তৈরি হয়েছে। সবাই ফেসবুক, টুইটার, মেসেঞ্জারে ব্যস্ত থাকে। ফলে সঠিক মেধা বিকাশে এক ধরনের বাধা সৃষ্টি হচ্ছে।

কিন্তু বেশি সময় দেয়া উচিত বই পড়ার দিকে। অভিভাবকদের এ বিষয়ে সচেতন হতে হবে। যেন সন্তানরা বিপথে চলে না যায়। কারণ আজকের তরুণ প্রজন্মই কিন্তু আগামী দিনের দেশের কর্ণধার। তারাই কিন্তু দেশকে নেতৃত্ব দেবে। তাই আসুন সবাই লাইব্রেরিতে গিয়ে বই পড়ি, দোকানে গিয়ে বই কিনি, প্রিয়জনকে বই উপহার দেই। সবাই বই পড়ার প্রতি বেশি করে মনোযোগী হই।
বর্তমান সরকারের উন্নয়নের চিত্র তুলে ধরে মন্ত্রী বলেন, তলাবিহীন ঝুড়ি থেকে বঙ্গবন্ধুকন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তার যোগ্য নেতৃত্বে পরিচালিত বর্তমান সরকার দেশকে উন্নয়নশীল দেশে রূপান্তরিত করেছে। দেশ আজ উন্নয়নের রোল মডেল হিসেবে বিশ্ব স্বীকৃত পেয়েছে। পরে মন্ত্রী মেলার ৩২টি স্টল ঘুরে দেখেন। মেলায় প্রতিদিন সন্ধ্যায় সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছে।

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়