নিরাপদ মাতৃত্ব দিবস আজ

আগের সংবাদ

কালো টাকার অবাধ সুযোগ! : বিদেশে পাচার হওয়া অর্থ ফেরাতে বিরল উদ্যোগ, কর দেয়ায় নিরুৎসাহিত হবে সৎ করদাতারা

পরের সংবাদ

প্রতিবাদ সমাবেশে বক্তারা : পতেঙ্গা সমুদ্রসৈকত ইজারা দেয়ার সিদ্ধান্ত গণবিরোধী

প্রকাশিত: মে ২৯, ২০২২ , ১২:০০ পূর্বাহ্ণ আপডেট: মে ২৯, ২০২২ , ১২:০০ পূর্বাহ্ণ

চট্টগ্রাম অফিস : পতেঙ্গা সমুদ্রসৈকত বেসরকারি প্রতিষ্ঠানকে ইজারা দেয়ার সিদ্ধান্তের প্রতিবাদে এবং সৈকতের ক্ষতিগ্রস্ত দোকান মালিকদের পুনর্বাসন ও মূল ফটক খুলে দেয়ার দাবিতে মানববন্ধন করেছেন কয়েকশ মানুষ। গতকাল শনিবার সকালে মূল বেড়িবাঁধে এই মানববন্ধনের আয়োজন করে পতেঙ্গা সমুদ্রসৈকত দোকান মালিক সমবায় সমিতি এবং পতেঙ্গা সমুদ্রসৈকত ক্ষতিগ্রস্ত দোকান মালিক পুনর্বাসন কমিটি। মানববন্ধনে স্থানীয়রাও যোগ দেন।
সম্প্রতি পতেঙ্গা সমুদ্রসৈকতের একাংশ বেসরকারি খাতে ছেড়ে দেয়ার সিদ্ধান্ত নেয় চট্টগ্রাম উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ (সিডিএ)। এ নিয়ে সব মহল থেকে প্রতিবাদ শুরু হয়।
পতেঙ্গা সমুদ্রসৈকত দোকান মালিক সমবায় সমিতির সভাপতি ওয়াহিদুল আলম মাস্টারের সভাপতিত্বে ও পতেঙ্গা সমুদ্রসৈকত ক্ষতিগ্রস্ত দোকান মালিক পুনর্বাসন কমিটির সাধারণ সম্পাদক মাঈনুল ইসলামের সঞ্চালনায় মানববন্ধনে প্রধান অতিথি ছিলেন স্থানীয় ওয়ার্ড কাউন্সিলর ছালেহ আহমদ চৌধুরী। মানববন্ধনে বক্তব্য দেন পতেঙ্গা বিচ কমিউনিটি পুলিশিংয়ের সভাপতি ওয়াহিদুল আলম চৌধুরী, সাধারণ সম্পাদক মো. মুসা আলম, আবদুল্লাহ আল মামুন, শাকিল হারুন, মানবাধিকার কর্মী আবদুল আজিজ, জাহাঙ্গীর আলম, শেখ আহমেদ, শেখ আহমেদ সাগর, জামাল উদ্দিন, আবদুল হালিম, তাজুল ইসলাম, আবদুর রহমান প্রমুখ।
সমাবেশে বক্তারা সিডিএ’র সিদ্ধান্তকে গণবিরোধী বলে উল্লেখ করে অবিলম্বে এই সিদ্ধান্ত বাতিলের দাবি জানান। অন্যথায় গণআন্দোলন গড়ে তোলা হবে বলে হুঁশিয়ারি দেয়া হয়।
তারা বলেন, ‘পতেঙ্গা সমুদ্রসৈকতকে আন্তর্জাতিক মানের করার কথা বলে সিডিএ সৈকতের ৬ কিলোমিটার এবং সাগরপাড়ের ৩৫ একর দেশি-বিদেশি বাণিজ্যিক প্রতিষ্ঠানের হাতে তুলে দেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। গৃহায়ণ ও গণপূর্ত মন্ত্রণালয় সিডিএ’র প্রস্তাব অনুমোদন করেছে। সমুদ্রসৈকতের মালিক সিডিএ নয়। আমাদের এভাবে নিঃস্ব করার অধিকার সিডিএ’র আছে বলে আমরা মনে করি না।
মুক্তভাবে সমুদ্রসৈকত উপভোগের অধিকার সবার রয়েছে উল্লেখ করে বক্তারা আরো বলেন, ‘পতেঙ্গা সমুদ্রসৈকত প্রকৃতির দান। দেশের সব নাগরিক মুক্তভাবে এটা উপভোগ করার অধিকার রাখেন। সমুদ্রসৈকতকে রক্ষণাবেক্ষণের ব্যয়ভার বহন করা সিডিএ বা সরকারের জন্য কোনো ব্যাপার নয়। কিন্তু সমুদ্রসৈকত আজকের মনোরম বিনোদন কেন্দ্রের পর্যায়ে আনার কার্যক্রমে ইতোমধ্যে সর্বস্ব হারিয়ে আমাদের আর কিছুই অবশিষ্ট নেই।

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়