পরিকল্পনামন্ত্রী : দেশে রাজনীতিবিদের চেয়ে আমলাতন্ত্রের দাপট বেশি

আগের সংবাদ

শ্যামল দত্ত’র প্রত্যয় : চ্যালেঞ্জ মোকাবিলা করেই এগিয়ে যাবে ভোরের কাগজ

পরের সংবাদ

এ বছর চাহিদা ছাড়াবে জ্বালানি সরবরাহ

প্রকাশিত: জানুয়ারি ১, ২০২২ , ১২:০০ পূর্বাহ্ণ আপডেট: জানুয়ারি ১, ২০২২ , ১২:০০ পূর্বাহ্ণ

কাগজ ডেস্ক : গতকাল শেষ হলো ২০২১ সাল। আন্তর্জাতিক পণ্যবাজারের জন্য ঘটনাবহুল গত বছরে সবচেয়ে বেশি আলোচনায় ছিল জ্বালানি তেল ও গ্যাসের বাজার। ২০২০ সালের মহামারিজনিত মন্দা কাটিয়ে গত বছর বাড়তে শুরু করে এসব জ্বালানি পণ্যের চাহিদা। কিন্তু সরবরাহ ছিল বরাবরের মতোই নিম্নমুখী। ফলে লাফিয়ে বাড়তে থাকে দাম। মূল্যবৃদ্ধির এ আগুনে ঘি ঢেলেছে ইউরোপ ও এশিয়া, বিশেষ করে চীন ও ভারতের জ্বালানি সংকট। তবে গত বছরের শেষ দিকে এসে জ্বালানি তেল ও গ্যাসের বাজারে কিছুটা স্থিতি ফিরেছে। এ বছর বাজার পুরোপুরিভাবে স্থিতিশীল হয়ে উঠবে বলে মনে করছেন বিশ্লেষকরা।
এসএন্ডপি গেøাবাল প্ল্যাটসের সম্প্রতি প্রকাশিত ২০২২ এনার্জি আউটলুক শীর্ষক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, গত বছরের তুলনায় এ বছর জ্বালানি তেল ও গ্যাসের সরবরাহ অত্যন্ত দ্রুতগতিতে বাড়বে। এমনকি জ্বালানি তেল ও গ্যাসের চাহিদার গতিকেও ছাড়িয়ে যেতে পারে সরবরাহ।
এসএন্ডপি গেøাবাল প্ল্যাটসের বিশ্লেষকরা জানান, ২০২১ সাল ছিল জ্বালানি তেল ও গ্যাস চাহিদা পুনরুদ্ধারের বছর। কিন্তু ২০২২ সাল হবে জ্বালানি পণ্যগুলোর সরবরাহ পুনরুজ্জীবিত হওয়ার বছর। প্রতিষ্ঠানটির বিশ্লেষণ অনুযায়ী, এ বছর জ্বালানি তেল ও গ্যাসের সরবরাহ শুধু চাহিদা পূরণেই সক্ষম হবে না, বরং চাহিদাকে ছাড়িয়েও যাবে। পাশাপাশি সহায়তা করবে বর্তমানে তলানিতে নেমে যাওয়া মজুতকে ফুলেফেঁপে উঠতে। এক্ষেত্রে সবচেয়ে বড় অবদান রাখবে বাড়তে থাকা তরলীকৃত প্রাকৃতিক গ্যাসের (এলএনজি) রপ্তানি, যুক্তরাষ্ট্রের শেল অয়েল (পাথরের খাঁজ থেকে আহরিত তেল) উত্তোলন বৃদ্ধি এবং জ্বালানি তেল রপ্তানিকারক দেশগুলোর জোট ওপেকের বাইরের দেশগুলোর সরবরাহ খাতে ঊর্ধ্বমুখী বিনিয়োগ।

এদিকে সম্প্রতি শনাক্ত হওয়া নভেল করোনা ভাইরাসের নতুন ধরন ওমিক্রনের সংক্রমণপ্রবাহ জ্বালানি তেলের চাহিদায় উল্লেখযোগ্য প্রভাব ফেলতে পারে। ফলে বৈশ্বিক জ্বালানি পণ্যের বাজারে যে অস্থিতিশীলতা চলছিল, তাকে আবারো উসকে দিচ্ছে ওমিক্রন। তবে ওপেকসহ বিভিন্ন সংস্থা জ্বালানি পণ্যের বাজারে ওমিক্রনকে উদ্বেগের বড় কারণ বলে মনে করছে না।

গেøাবাল প্ল্যাটসের বিশ্লেষকরা এক নোটে জানান, জ্বালানি তেল ও গ্যাসের এ আউটলুকের পুরোটাই নির্ভর করছে এ বছরের প্রথম প্রান্তিক কেমন যাবে তার ওপর। এছাড়া শীত মৌসুমে উত্তর গোলার্ধের দেশগুলোর আবহাওয়ার ওপরও বাজার পরিস্থিতি নির্ভর করছে।
অন্যদিকে এ বছরের প্রথম প্রান্তিকে (জানুয়ারি-মার্চ) জ্বালানি তেল ও গ্যাসের বাজার দুটি প্রধান ভূরাজনৈতিক ইস্যুর মুখোমুখি হবে। এর মধ্যে একটি ইরানের পরমাণু চুক্তি, অন্যটি বিতর্কিত রাশিয়ার গ্যাস পাইপলাইন নর্ড স্ট্রিম ২। বিশ্লেষকরা বলছেন, এ বছরের শুরুতেই সমাধান না মিললে ইস্যুগুলো বছরজুড়েই জ্বালানি পণ্যের বাজারকে ভোগাবে।

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়