নানা আয়োজনে প্রবারণা পূর্ণিমা উদযাপন

আগের সংবাদ

লো স্কোরিংয়ের রোমাঞ্চকর ম্যাচে অস্ট্রেলিয়ার জয়

পরের সংবাদ

সবার উপরে সাকিব : শাজিয়া তাইয়্যেবা

প্রকাশিত: অক্টোবর ২৩, ২০২১ , ১২:০০ পূর্বাহ্ণ আপডেট: অক্টোবর ২৩, ২০২১ , ১২:০০ পূর্বাহ্ণ

টি-টোয়েন্টি ক্রিকেট মানেই বাড়তি রোমাঞ্চ। প্রতিটি বল ঘিরেই জমে থাকে উত্তেজনা। বিশ্বকাপে এখন পর্যন্ত ৩৯টি উইকেট নিয়ে সর্বোচ্চ উইকেট শিকারি বোলারদের তালিকার প্রথম স্থানে আছেন পাকিস্তানের সাবেক অধিনায়ক শহীদ আফ্রিদি। দ্বিতীয় স্থানে আছেন লাসিথ মালিঙ্গা। বিশ্বকাপে তার উইকেট সংখ্যা ৩৮টি। কিংবদন্তি বোলার মালিঙ্গা আশা করেছিলেন তিনি এবার বিশ্বকাপে খেলবেন এবং সর্বোচ্চ উইকেট শিকারি হবেন। কিন্তু শ্রীলঙ্কার ক্রিকেট বোর্ডের নির্বাচকরা তাকে সে সুযোগ দেননি।
এ কারণে রাগে ও ক্ষোভে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটকে বিদায় জানিয়ে দেন মালিঙ্গা। তবে এবারের বিশ্বকাপে শহীদ আফ্রিদিকে সরিয়ে দিয়ে সর্বোচ্চ উইকেট নেয়া বোলারের তালিকার শীর্ষস্থানে উঠে আসতে পারেন সাকিব আল হাসান। এবার বিশ্বকাপে প্রথম পর্বে মাঠে নামার আগে বিশ্বকাপে তার সংগ্রহ ছিল ৩০টি উইকেট।
আফ্রিদির রেকর্ড ভাঙতে সাকিবের প্রয়োজন ১০ উইকেট। টাইগার অলরাউন্ডার এ পরিসংখ্যান নিয়ে আইপিএলের ফাইনালে শেষে ওমানে দলের সঙ্গে যোগ দেন। বিশ্বকাপে ১৭ অক্টোবর নিজেদের প্রথম ম্যাচে স্কটল্যান্ডের বিপক্ষে ২ উইকেট নিয়ে লাসিথ মালিঙ্গাকে ছাড়িয়ে যাওয়ার পাশাপাশি ক্যারিয়ারে ৬০০ আন্তর্জাতিক উইকেটের মাইলফলকও স্পর্শ করেন সাকিব। তিনি একই সঙ্গে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ১২ হাজার রান ও ৬০০ উইকেট শিকারি একমাত্র অলরাউন্ডার।
স্কটল্যান্ডের বিপক্ষে ম্যাচের আগে আন্তর্জাতিক টি-টোয়েন্টিতে সাকিবের উইকেট ছিল ১০৬টি। আর আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে নিয়েছিলেন ৫৯৮টি উইকেট।
স্কটিশদের বিপক্ষে ১৭ অক্টোবর ১১তম ওভারের দ্বিতীয় বলে রিচি বেরিংটনকে লং অনে আফিফ হোসেনের দুর্দান্ত ক্যাচে পরিণত করে লাসিথ মালিঙ্গার রেকর্ডে (১০৭ উইকেট) ভাগ বসান। দুই বল পর মাইকেল লিস্ককে লংঅফে লিটন দাসের ক্যাচ বানিয়ে মালিঙ্গাকে তো ছাড়ালেনই, একইসঙ্গে নিলেন ৬০০ আন্তর্জাতিক উইকেট। আর তিন সংস্করণ মিলিয়ে মোট ১২ হাজার রান তো সাকিব আগেই করে ফেলেছিলেন। আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ১২ হাজার রান ও ৬০০ উইকেটের বিরল ডাবল ক্লাবের একমাত্র সদস্য।
যে কীর্তি গড়তে পারেননি গ্যারি সোবার্স, ইয়ান বোথাম ও জ্যাক ক্যালিসদের মতো কিংবদন্তি অলরাউন্ডাররা। তাদের সবাইকে পেছনে ফেলে এই সিংহাসনে এখন একমাত্র সম্রাট সাকিব আল হাসান। ১৯ অক্টোবর বিশ্বকাপে ওমানের বিপক্ষে বল হাতে ২৮ রানে ৩ উইকেট এবং ব্যাটহাতে ৪২ রান করায় ম্যাচ সেরার পুরস্কার জেতেন সাকিব। দুই ম্যাচে ৫ উইকেট দখল করায় বিশ্বকাপে তার সংগ্রহ দাঁড়াল ৩৫ উইকেট।
টাইগাররা প্রথম পর্বে গ্রুপের শেষ ম্যাচে পাপুয়া নিউগিনির মোবিলা করবে। এ ম্যাচেও সাকিব উইকেট পাবেন তা নিশ্চিত। বাংলাদেশ এবার বিশ্বকাপের সুপার টুয়েলভে খেললে এ প্রত্যাশা টাইগার সমর্থকদের। টি-টোয়েন্টির ইতিহাসে মালিঙ্গাকে টেক্কা দিয়ে এ মুহূর্তে ১১১ উইকেট নিয়ে সবার ওপরে টাইগার অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসান। ১০৭ উইকেট নিয়ে দ্বিতীয় স্থানে আছেন শ্রীলঙ্কার মালিঙ্গা। ৯৯ উইকেট নিয়ে নিউজিল্যান্ডের টিম সাউদি তৃতীয় স্থানে, পাকিস্তানের আফ্রিদি ৯৮ উইকেট নিয়ে চতুর্থ এবং আফগানিস্তানের রশিদ খান ৯৫ উইকেট নিয়ে পঞ্চম স্থানে রয়েছেন। এবার বিশ্বকাপে সাকিব আল হাসানের সামনে একাধিক রেকর্ডের হাতছানি রয়েছে।

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়