×

রাজনীতি

এমপি আনার হত্যাকাণ্ডে বেরিয়ে এসেছে চাঞ্চল্যকর তথ্য

Icon

কাগজ প্রতিবেদক

প্রকাশ: ২৪ মে ২০২৪, ০৯:২০ এএম

এমপি আনার হত্যাকাণ্ডে বেরিয়ে এসেছে চাঞ্চল্যকর তথ্য

আনোয়ারুল আজীম আনার ও মোহাম্মদ হারুন অর রশীদ

ঝিনাইদহ-৪ আসনের সংসদ সদস্য আনোয়ারুল আজীম আনারকে কলকাতায় হত্যার পর লাশ গুমের বিষয়ে চাঞ্চল্যকর তথ্য বেরিয়ে এসেছে। তাকে হত্যার পর খুনিরা তার শরীরের হাড় থেকে মাংস আলাদা করে তাতে হলুদ মিশিয়ে ব্যাগে ভরে। এরপর বড় দুটি ব্যাগে ভরে সেগুলো বাহিরে ফেলে দেয়। দীর্ঘদিনের পরিকল্পনার মাধ্যমে সংসদ সদস্য আনোয়ারুল আজীমকে হত্যা করা হয়েছে। খুনিরা অনেক দিন ধরে এই হত্যাকাণ্ডের সুযোগ খুঁজছিলেন। বৃহস্পতিবার (২৩ মে) বিকেলে রাজধানীর মিন্টো রোডে সাংবাদিকদের এসব কথা জানান ডিএমপির অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার (গোয়েন্দা) মোহাম্মদ হারুন অর রশীদ। 

ডিবিপ্রধান আরো বলেন, তাকে হত্যার পর শরীর খণ্ড খণ্ড করা হয়। হাড় ও মাংস আলাদা করে হলুদের গুড়ো মিশিয়ে ব্যাগে ভরে ওই বাসা থেকে বের করা হয়। কোথায় খণ্ড খণ্ড মরদেহ ফেলা হয়েছে তা এখনো স্পষ্ট নয়। তারা দুই মাস ধরে খেয়াল রাখছে কখন আনারকে কলকাতা আনা যাবে। গত ১২ মে আনার তার বন্ধু গোপালের বাসায় যায়। সেখানে আরো দুজনকে হায়ার করা হয়। তারা ওই বাসায় আসা যাওয়া করবে। তারা হলেন- জিহাদ বা জাহিদ ও সিয়াম। মাস্টারমাইন্ড গাড়ি ঠিক করে দেন। সে কাকে কত টাকা দিতে হবে, কারা কারা হত্যায় থাকবে, কার দায়িত্ব কী হবে ঠিক করে। এরপর আমার কিছু কাজ আছে বলে ৫ থেকে ৬ জনকে রেখে ১০ মে বাংলাদেশে চলে আসেন।

সংসদ সদস্য আনারকে হত্যার পরিকল্পনা হয় দুই থেকে তিন মাস আগে জানিয়ে তিনি বলেন, তারা পরিকল্পনা করেছিল ঢাকায় হত্যা করবে। কিন্তু বাংলাদেশ পুলিশের নজরদারি ও ঢাকায় হত্যাকাণ্ডের পরে সকল হত্যার ক্লু পুলিশ বের করেছে বলেই হত্যাকারীরা কলকাতায় এমপিকে হত্যা করেছে।

ডিবিপ্রধান জানান, মাস্টারমাইন্ড আখতারুজ্জামান শাহীনের একটি বাসা গুলশানে, আরেকটি বসুন্ধরায়। এই দুই বাসাতেই অনেকদিন হত্যার পরিকল্পনা করা হয়। আনারকে হত্যার নেপথ্যে রাজনীতি বা অর্থনৈতিক, যে কারণেই থাকুক না কেন হত্যাকারীরা বাংলাদেশের মাটি ব্যবহার করতে চেয়েছিল কিন্তু পারেনি। পরিকল্পনার অংশ হিসেবে গত ২৫ এপ্রিল তারা কলকাতায় একটি বাসা ভাড়া নেয়, ৩০ এপ্রিল ওই বাসায় উঠে। যিনি হত্যার পরিকল্পনা করেছেন তিনি ও আরেকজনসহ মোট তিনজন বিমানযোগে কলকাতার ভাড়া বাসায় উঠে।

এই গোয়েন্দা কর্মকর্তা বলেন, ঝিনাইদহ-৪ আসনের সংসদ সদস্য আনোয়ারুল আজীমকে কৌশলে কলকাতায় নেয়া হয়। হত্যার পর হত্যাকারীরা আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীকে বিভ্রান্ত করার চেষ্টা করেছে। কী কারণে হত্যাকাণ্ডটি ঘটেছে সেটি বের করা হবে। তবে এখন মূল কাজ হলো, হত্যাকাণ্ডে জড়িত ব্যক্তিদের বের করা। এ জন্য কলকাতা পুলিশ ও ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশ একসঙ্গে কাজ করছে।

টাইমলাইন: ভারতে এমপি আজিম হত্যাকাণ্ড

আরো পড়ুন

সাবস্ক্রাইব ও অনুসরণ করুন

সম্পাদক : শ্যামল দত্ত

প্রকাশক : সাবের হোসেন চৌধুরী

অনুসরণ করুন

BK Family App