×
Icon এইমাত্র
কমপ্লিট শাটডাউন কর্মসূচি চালিয়ে যাওয়ার ঘোষণা দিয়েছে কোটা আন্দোলনকারীরা বাংলাদেশ টেলিভিশনের মূল ভবনে আগুন দিয়েছে দুর্বৃত্তরা। বিটিভির সম্প্রচার বন্ধ। কোটা সংস্কার আন্দোলনে সারা দেশে এখন পর্যন্ত ১৯ জন নিহত কোটা ইস্যুতে আপিল বিভাগে শুনানি রবিবার: চেম্বার আদালতের আদেশ ছাত্রলীগের ওয়েবসাইট হ্যাক ‘লাশ-রক্ত মাড়িয়ে’ সংলাপে বসতে রাজি নন আন্দোলনকারীরা

জাতীয়

জাপান প্রবাসী স্বামীকে দেশে এনে হত্যার প্রতিবেদন ১১ জুলাই

Icon

কাগজ প্রতিবেদক

প্রকাশ: ০৩ জুন ২০২৪, ১০:১৩ পিএম

জাপান প্রবাসী স্বামীকে দেশে এনে হত্যার প্রতিবেদন ১১ জুলাই

ছবি: সংগৃহীত

জাপানী প্রবাসী নরসিংদীর রায়পুরার আরিফুল ইসলামকে দেশে এনে হত্যা মামলার তদন্ত প্রতিবেদন দাখিলের জন্য আগামী ১১ জুন দিন ধার্য করেছেন আদালত। রবিবার (২ জুন) ঢাকার মেট্রোপলিটন ম্যাজিষ্ট্রেট সাইফুল ইসলাম ভাটারা থানার মামলার এজাহার গ্রহণ করে আগামী ১১ জুলাই দিন ধার্য করেন। 

সোমবার (৩ জুন) ভাটারা থানার সাধারণ নিবন্ধন শাখা সূত্রে বিষয়টি জানা গেছে। 

জানা যায়, ২০২১ সালে পারভীন আক্তার (৩৩) নামে এক কানাডা প্রবাসীকে বিয়ে করেন আরিফুল। এক বছর আগে জাপানে পাড়ি দেন তিনি। জাপানে গিয়ে সেখানকার আয়েশাকে (জাপানি নাম নাচুকি) ইসলাম ধর্মে ধর্মান্তরিত করে বিয়ে করেন। এতে পারভীন আক্তার ক্ষিপ্ত হয়ে গত ১৭ মে কৌশলে আরিফুলকে জাপান থেকে দেশে নিয়ে আসেন। তারা ভাটারা থানার বসুন্ধরা আবাসিক এলাকার মাটি প্রোপার্টিজ নামে ভবনের ফ্ল্যাটে ওঠেন। এরপর আরিফুলকে হত্যা করে কানাডায় চলে যান পারভীন আক্তার। এ হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় গত রবিবার রাজধানীর ভাটারা থানায় পারভীন আক্তার ও তার স্বামী স্বামী নাজমুল হাসান বাবুর বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেন নিহত আরিফুলের বোন সাফরিজা আক্তার রেলি। 

আরো পড়ুন: পাসপোর্ট করতে বেনজীরের নজিরবিহীন জালিয়াতি

মামলায় ভুক্তভোগীর বোন উল্লেখ করেন, ‘আমার ছোট ভাই আরিফুল ইসলাম (২৭) জাপান প্রবাসী ছিলেন। চলতি বছরের ৩১ মে ভাইয়ের স্ত্রী আয়েশা (জাপানী নাম নাচুকি) মোবাইল ফোনের মাধ্যমে জানায় আমার ভাই গত ১৭ মে জাপান থেকে বাংলাদেশে এসেছে। কিন্তু তার কোনো খোঁজখবর পাওয়া যাচ্ছে না। তখন ভাইয়ের হোয়াটসঅ্যাপ নাম্বারে বার বার যোগাযোগ করার চেষ্টা করি। কিন্তু ওই নম্বরে কোনো প্রকার কল ঢুকেনি।’

বাদী আরো উল্লেখ করেন, ‘গত ১ জুন ভাটারা থানা পুলিশ মোবাইল ফোনের মাধ্যমে আমার চাচাতো ভাই মো. সবুজ মিয়াকে (২৭) জানান যে, আরিফুল ইসলামকে, কে বা কারা বসুন্ধরা আবাসিক এলাকার ব্লক-সির মাটি প্রোপার্টিজ ভবনের ভিতরে খুন করে রেখে গেছে। পরে চাচাতো ভাই মোবাইল ফোনে বিষয়টি জানালে তাৎক্ষনিক ঘটনাস্থলে আসি। পুলিশের সহায়তায় ওই ভবনের সিসিটিভির ভিডিও ফুটেজে দেখতে পাই ১৭ মে কানাডা প্রবাসী বিবাদী পারভীন আক্তারসহ (৩৩) আমার ভাই আরিফুল ইসলাম ফ্ল্যাটে প্রবেশ করেন এবং পরের দিন পারভীন আক্তার (৩৩) একাই তাড়াহুড়ো করে বের হয়ে যায়।’ ঘটনাস্থলের সিসিটিভির ভিডিও ফুটেজ দেখে পারভীন আক্তারকে চিনতে পেরে মামলা দায়ের করেছেন নিহতের বোন।

সাবস্ক্রাইব ও অনুসরণ করুন

সম্পাদক : শ্যামল দত্ত

প্রকাশক : সাবের হোসেন চৌধুরী

অনুসরণ করুন

BK Family App