×
Icon ব্রেকিং
রংপুরে পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষে নিহত হয়েছেন বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের (বেরোবি) শিক্ষার্থী আবু সাঈদ

ভিডিও

চুড়ান্ত হয়নি ইরানের প্রেসিডেন্ট, গড়ালো ‘রান-অফ’-এ

Icon

কাগজ ডেস্ক

প্রকাশ: ২৯ জুন ২০২৪, ১০:৫৯ পিএম

ইরানে ২৮জুন অনুষ্ঠিত প্রেসিডেন্ট নির্বাচন গড়াচ্ছে ‘রান-অফ’ বা দ্বিতীয় পর্বে। নির্বাচনের চূড়ান্ত ফলাফল ঘোষণায় এককভাবে কোনো প্রার্থী শতকরা ৫০ ভাগের বেশি ভোট পেতে ব্যর্থ হওয়ায় পরের ধাপে যাচ্ছে নির্বাচন। দেশটির নির্বাচনী সদরদপ্তরের মুখপাত্র মোহসেন ইসলামি ২৯জুন বেলা সাড়ে ১১টায় এ সিদ্ধান্ত জানান। 

নির্বাচনে মূলত দুজন প্রার্থীর মধ্যে তীব্র প্রতিযোগিতা হয়েছে। তবে এগিয়ে থাকা প্রার্থী সাবেক স্বাস্থ্যমন্ত্রী মাসুদ পেজেশকিয়ান ৫০ শতাংশ ভোট পেতে ব্যর্থ হয়েছেন। মাসুদ পেজেশকিয়ান পেয়েছেন ৪২.৫৪ শতাংশ ভোট। ফলে প্রেসিডেন্ট নির্বাচন গড়াচ্ছে ‘রান-অফ’ বা দ্বিতীয় পর্বে। 

ইরানের সংবিধান বলছে, বিজয়ী প্রার্থী শতকরা ৫০ ভাগের বেশি ভোট পেতে ব্যর্থ হলে শীর্ষ দুই প্রার্থীর মধ্যে আবারো নির্বাচন হয়। সে অনুযায়ী আগামী ৫ জুলাই দ্বিতীয় দফা ভোটগ্রহণের তারিখ আগে থেকেই নির্ধারিত রয়েছে। 

চূড়ান্ত ফলাফলে দেখা যাচ্ছে, সাবেক স্বাস্থ্যমন্ত্রী মাসুদ পেজেশকিয়ান এক কোটি চার লাখ ১৫ হাজার ৯৯১ ভোট পেয়ে প্রথম পর্বে বিজয়ী হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী সাবেক প্রধান পরমাণু আলোচক সাঈদ জালিলি পেয়েছেন ৯৪ লাখ ৭৩ হাজার ৩৪০ ভোট। 

নির্বাচনের বাকি দুই প্রার্থী পার্লামেন্ট স্পিকার বাকের কলিবফ ও সাবেক স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী মোস্তফা পুরমোহাম্মাদি পেয়েছেন যথাক্রমে ৩৩ লাখ ৮৩ হাজার ৩৪০ ভোট এবং ২ লাখ ৬ হাজার ৩৯৭ ভোট।

এদিকে, সাঈদ জালিলি ও মাসুদ পেজেশকিয়ান দ্বিতীয় পর্বের ভোটের জন্য তাদের নির্বাচনী প্রচার শুরু করে দিয়েছেন। ইরানের নির্বাচনী আইন অনুযায়ী, প্রথম পর্বের নির্বাচনের চূড়ান্ত ফল ঘোষিত হওয়ার মুহূর্ত থেকে শীর্ষ দুই প্রার্থী তাদের প্রচারাভিযান শুরু করতে পারবেন এবং এ প্রচার চলবে দ্বিতীয় পর্বের ভোটগ্রহণ শুরুর ২৪ ঘণ্টা আগে পর্যন্ত।

এর আগে ইরানের ১৪তম প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের ভোটগ্রহণের সময়সীমা শুক্রবার তিন দফা বাড়ানোর পর শেষ পর্যন্ত রাত ১২টায় ভোটগ্রহণ শেষ হয়।

শুক্রবারের ভোটগ্রহণের জন্য সারাদেশে প্রায় ৫৮ হাজার ভোটকেন্দ্র স্থাপন করা হয়েছিল। এ ছাড়া ৯৫টি দেশে বসবাসরত প্রবাসী ইরানি নাগরিকদের জন্য বিশ্বজুড়ে ৩১৪টি ভোটকেন্দ্র খোলা হয়েছিল। ওইসব কেন্দ্রেও ইরান সময় শুক্রবার রাত ১২টা পর্যন্ত ভোটগ্রহণ করা হয়।

ইরানের নির্ধারিত প্রেসিডেন্ট নির্বাচন ২০২৫ সালের জুন মাসে হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু গত ১৯ মে প্রেসিডেন্ট ইব্রাহিম রাইসি তার সাত সফরসঙ্গীসহ এক মর্মান্তিক হেলিকপ্টার দুর্ঘটনায় শহীদ হওয়ার কারণে আগাম নির্বাচন অনুষ্ঠিত হলো। ইরানে নির্বাচিত প্রেসিডেন্টের মেয়াদ চার বছর।

ইব্রাহিম রাইসির শাহাদাতের পর সংবিধান অনুসারে প্রথম ভাইস প্রেসিডেন্ট মোহাম্মাদ মোখবের ভারপ্রাপ্ত প্রেসিডেন্টের দায়িত্ব পালন করেন এবং তার তত্ত্বাবধানে এ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছে।

শুক্রবারের নির্বাচনের নিবন্ধিত ভোটার ছিলেন ৬ কোটি ১০ লাখ। এর মধ্যে মোট ভোট দিয়েছেন ২ কোটি ৪৫ লাখ ৩৫ হাজার ১৮৫ জন ভোটার। অর্থাৎ এবারের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে ৪০ শতাংশ ভোট পড়েছে। ইরানের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় পুরো ভোটগ্রহণ প্রক্রিয়া সম্পন্ন করার দায়িত্ব পালন করছে। 

এর আগে, ইরানের নির্বাচনে মোট প্রার্থীর সংখ্যা ছিল ৪ জন। এর মধ্যে তিনজনই রক্ষণশীল, মাত্র একজন সংস্কারপন্থী। তিনি মাসুদ হেলিকপ্টার দুর্ঘটনায় কট্টর রক্ষণশীল প্রেসিডেন্ট ইব্রাহিম রাইসির মৃত্যুর পর দেশের সাংবিধানিক বাধ্যবাধকতা মেনে নির্বাচনের দিনটি ঘোষণা করা হয়।

প্রার্থী চূড়ান্তের কাজটি করেছে গার্ডিয়ান কাউন্সিল। তিন রক্ষণশীল প্রার্থী পার্লামেন্ট স্পিকার মোহাম্মদ বাঘের গালিবাফ, জ্যেষ্ঠ নিরাপত্তা কর্মকর্তা সাইদ জালিলি ও নিরাপত্তা কর্মকর্তা মোস্তফা পুরমোহাম্মদির পাশাপাশি প্রতিদ্বন্দ্বিতা করার সুযোগ পেয়েছেন সংস্কারপন্থী আইনপ্রণেতা মাসুদ পেজেশকিয়ান। 

বেশ কয়েক বছর ধরে ইরানের ক্ষমতা রক্ষণশীলদের হাতে থাকলেও পেজেশকিয়ান  এবারের নির্বাচনে এগিয়ে থাকায় আশার আলো দেখছেন সংস্কারপন্থীরা ।

সাবস্ক্রাইব ও অনুসরণ করুন

সম্পাদক : শ্যামল দত্ত

প্রকাশক : সাবের হোসেন চৌধুরী

অনুসরণ করুন

BK Family App