×

ভিডিও

মৌলভীবাজারে ভয়াবহ বন্যায় পানিবন্দি দিশেহারা অর্ধলক্ষ মানুষ

Icon

কাগজ ডেস্ক

প্রকাশ: ২০ জুন ২০২৪, ০৭:০৩ পিএম

মৌলভীবাজারে ভয়াবহ বন্যায় পানিবন্দি দিশেহারা অর্ধলক্ষ মানুষ। টানা বৃষ্টি ও উজানের ঢলে মৌলভীবাজারের বেশির ভাগ জেলার মানুষজন এখন পানিবন্দি। কুলাউড়ায় লক্ষাধিক মানুষ পানিবন্দি রয়েছেন। উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কার্যালয় তথ্য সূত্রে জানা গেছে, কুলাউড়ায় বন্যা পরিস্থিতি অবনতি ঘটেছে।

জানা যায়, ঈদের দিন ১৭ জুন ভোররাত থেকে শুরু হওয়া ভারি বর্ষণ এখন পর্যন্ত অব্যাহত আছে। পাহাড়ি ঢল ও তিন দিনের টানা বৃষ্টিতে উপজেলার ১ পৌরসভাসহ ৬টি ইউনিয়ন প্লাবিত হয়ে লক্ষাধিক মানুষ পানিবন্দি রয়েছেন। অনেক রাস্তাঘাট তলিয়ে যাওয়ায় যান চলাচলও বন্ধ রয়েছে।

মৌলভীবাজার জেলার সীমান্তবর্তী ও হাকালুকি হাওর পাড়ের উপজেলা জুড়ীতে ভয়াবহ বন্যা দেখা দিয়েছে। ঢলের পানিতে উপজেলার নদনদীতে পানি বৃদ্ধি পেয়ে জুড়ী শহর এবং উপজেলার বিভিন্ন নিম্নাঞ্চল প্লাবিত হয়ে ইতিমধ্যে অর্ধলক্ষ মানুষ পানিবন্দি হয়েছেন। বন্যায় উপজেলার জায়ফরনগর ও পশ্চিমজুড়ী ইউনিয়ন সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হলেও ফুলতলা, সাগরনাল, পূর্বজুড়ী ও গোয়ালবাড়ী ইউনিয়নের হাজার হাজার মানুষ পানিবন্দি অবস্থায় আছে। এছাড়া জুড়ী টু ফুলতলা এবং জুড়ী টু লাঠিটিলা আঞ্চলিক মহাসড়কে বন্যার পানি উঠায় যানবাহন চলাচলে বিঘ্ন ঘটছে। 

ঢলের পানিতে প্লাবিত হয়েছে বেশ কিছু এলাকার সড়ক। সেই সঙ্গে তলিয়ে গেছে বিভিন্ন এলাকার ঘরবাড়ি ও দোকানপাট, মাছের ঘের। এদিকে, ঢলের পানি উপজেলার বিভিন্ন নিম্নাঞ্চলে প্রবেশ করায় চরম দুর্ভোগে পড়েছেন ওই অঞ্চলের মানুষজন। অনেকেই তাদের বাড়ি ঘর ছেড়ে নিরাপদ আশ্রয় কেন্দ্র কিংবা উঁচু এলাকায় আত্মীয় স্বজনদের বাসায় ছুটছেন। নিম্নাঞ্চলের মানুষদের অনেকেই জানিয়েছেন, ঢলের পানিতে তাদের ঘরবাড়ি তলিয়ে গেছে। এখন নিরুপায় হয়ে আশ্রয় কেন্দ্রে যাচ্ছেন তারা।

মৌলভীবাজার জেলা প্রশাসক ড. উর্মি বিনতে সালাম বলেন, আশা করছি খুব দ্রুতই এই দুরাবস্থা থেকে মুক্তি পাবো। আশ্রয়কেন্দ্রে মানুষের জন্য শুকনো খাবারের ব্যবস্থা করা হয়েছে। 

উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা মোঃ মিজানুর রহমান বলেন, বন্যায় ইতিমধ্যে উপজেলার ৬৫ টি গ্রাম প্লাবিত হয়ে প্রায় ৫০ হাজার মানুষ পানিবন্দী হয়েছে। বন্যা পরিস্থিতি মোকাবেলায় জুড়ীতে ১১০ টি আশ্রয়কেন্দ্র খোলা হয়েছে। এসব আশ্রয় কেন্দ্রে এখন পর্যন্ত ২৩১ টি পরিবার আশ্রয় নিয়েছে।

সাবস্ক্রাইব ও অনুসরণ করুন

সম্পাদক : শ্যামল দত্ত

প্রকাশক : সাবের হোসেন চৌধুরী

অনুসরণ করুন

BK Family App