×
Icon এইমাত্র
কমপ্লিট শাটডাউন কর্মসূচি চালিয়ে যাওয়ার ঘোষণা দিয়েছে কোটা আন্দোলনকারীরা বাংলাদেশ টেলিভিশনের মূল ভবনে আগুন দিয়েছে দুর্বৃত্তরা। বিটিভির সম্প্রচার বন্ধ। কোটা সংস্কার আন্দোলনে সারা দেশে এখন পর্যন্ত ১৯ জন নিহত কোটা ইস্যুতে আপিল বিভাগে শুনানি রবিবার: চেম্বার আদালতের আদেশ ছাত্রলীগের ওয়েবসাইট হ্যাক ‘লাশ-রক্ত মাড়িয়ে’ সংলাপে বসতে রাজি নন আন্দোলনকারীরা

ভিডিও

রাজনীতিতে এসেই চড় খেয়ে সুর পাল্টালেন অভিনেত্রী কঙ্গনা!

Icon

কাগজ ডেস্ক

প্রকাশ: ১৩ জুন ২০২৪, ১০:৪৫ পিএম

প্রথমবার নির্বাচনে লড়েই ছক্কা মেরেছেন বলিউড অভিনেত্রী কঙ্গনা রানাউত। হিমাচল প্রদেশের মাণ্ডি আসন থেকে কংগ্রেস নেতা বিক্রমাদিত্য সিংয়ের বিরুদ্ধে বিজেপির হয়ে লড়াই করে জয় ছিনিয়ে এনেছেন তিনি। মাণ্ডি লোকসভা আসনের শক্তিশালী প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী কংগ্রেসের বিক্রমাদিত্য সিংকে ৭৪ হাজার ভোটে হারিয়েছেন কঙ্গনা রানাউত।

সম্প্রতি ভারতের নবনির্বাচিত বিজেপি-দলীয় এই তারকা সংসদ সদস্য কঙ্গনা রানাউতকে চড় মারার ঘটনায় বেশ সরগরম হয়ে রয়েছে পুরো নেটদুনিয়া। ইতোমধ্যে এই ঘটনায় সিআইএসএফের ওই অভিযুক্ত নারী কনস্টেবল কুলবিন্দর কৌরকে গ্রেপ্তারের পাশাপাশি চাকরি থেকেও সাময়িকভাবে বহিষ্কার করা হয়েছে।

নির্বাচনে টিকিট পাওয়ার পর কঙ্গনা জানিয়েছিলেন ভাবনার পুরোটা জুড়েই তার রাজনীতি। কিন্তু ভোটে জেতার পর গালে চড় পড়তেই পাল্টে গেল সুর। এবার তিনি জানালেন, রাজনীতির চেয়ে অভিনয় সহজ। এক পডকাস্টকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে এমনই মন্তব্য করেছেন অভিনেত্রী।

কঙ্গনা বলেন, এই প্রথম নয় যে, আমাকে রাজনীতিতে যোগ দেওয়ার জন্য প্রস্তাব দেওয়া হয়েছে। এর আগেও বেশ কয়েকবার রাজনীতিতে যোগ দেওয়ার প্রস্তাব পেয়েছিলাম। 'গ্যাংস্টার'-এর পর আমাকে ভোটে দাঁড়ানোর টিকিট দেওয়া হয়েছিল। আমার প্রপিতামহ কম করে তিনবার বিধায়ক হয়েছিলেন। দেখুন, আপনি যদি এমন একটি পরিবারের অন্তর্ভুক্ত হন যেখানে আপনার পরিবারের অন্য কেউ সাফল্য পেয়েছিলেন, সেখানে স্থানীয় নেতারা আপনার কাছে তো আসবেই এই ধরনের প্রস্তাব নিয়ে। এটা খুবই স্বাভাবিক। শুধু আমি নয়, আমার বাবাও এই অফার পেয়েছিলেন। আমার দিদিও অ্যাসিড হামলা থেকে বেঁচে যাওয়ার পর তাকেও রাজনীতিতে যোগ দেওয়ার প্রস্তাব দেওয়া হয়েছিল। তাই আমাদের কাছে রাজনীতিতে যোগ দেওয়ার প্রস্তাব পাওয়াটা এমন কিছু বড় কথা নয়...আমি যদি এতে আগ্রহী না হতাম, তাহলে আমাকে এত কষ্টের মধ্য দিয়ে যেতে হতো না।

এ সময় তিনি বলেন, আমি আমার প্যাশনকে ফলো করেছিলাম। আর ছবির ক্ষেত্রে আমি যে শুধু অভিনয় করেছি তেমনটা নয়, সঙ্গে লেখক, পরিচালক এবং প্রযোজক হিসেবেও কাজ করেছি। সেখানেও যতটা একাত্ম হয়ে কাজ করেছি, এখানেও তার ব্যতিক্রম হবে না। এখানেও আমাকে যদি মানুষের সঙ্গে নিজেকে মিশিয়ে দিতে হয়, সেই ভাবেই কাজ করব। তবে এটা আমি অস্বীকার করব না যে রাজনীতি অভিনয়ের তুলনায় বেশ কঠিন একটা বিষয়।

প্রসঙ্গত, মণ্ডি থেকে বিজেপির টিকিটে জয়ের মালা পরেছেন কঙ্গনা রানাওয়াত। তার প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী বিক্রমাদিত্য সিংয়ের পারিবারিক রাজনৈতিক ব্যাকগ্রাউন্ড বেশ পোক্ত। মা-বাবা দুজনেই হেভিওয়েট রাজনীতিক হিসেবে পরিচিত হিমাচলে। ভোটের আগে অনেকের ধারণা ছিল প্রতিদ্বন্দ্বীর টিকিটি ছুতে পারবেন না তিনি। তবে ভোটের হিসাব বলেছে অন্য কথা। বিক্রম ধরাশায়ী হয়েছেন নায়িকার কাছে।

সাবস্ক্রাইব ও অনুসরণ করুন

সম্পাদক : শ্যামল দত্ত

প্রকাশক : সাবের হোসেন চৌধুরী

অনুসরণ করুন

BK Family App