×

ভিডিও

বাড়িও নেই গাড়িও নেই, মুদির ঝোলায় কত সম্পত্তি?

Icon

কাগজ ডেস্ক

প্রকাশ: ১৫ মে ২০২৪, ০৮:০২ পিএম

ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। এক কথায় বলতে গেলে তিনিই ভারতের সর্বময় কর্তা। কিন্তু মজার ও আশ্চর্যের বিষয় হল তিনি নিজেকে ফকির দাবি করেন। নেই তার কোনও পিছু টান। ফলে যে কোনও সময় ঝোলা হাতে বেরিয়ে যেতে দ্বিতীয়বার ভাববেন না ভারতের ক্ষমতাধর এই মানুষটি।

তবে মোদির ঝোলায় ঠিক কি পরিমাণ সম্পত্তি রয়েছে তা নিয়ে যথেষ্ট আগ্রহ আছে দেশবাসীর। বারাণসীর বিজেপি প্রার্থী হিসেবে মঙ্গলবার মনোনয়ন জমা দেওয়ার পর প্রকাশ্যে এল তাঁর সম্পত্তির খতিয়ান। 

দারিদ্র্যের সঙ্গে লড়াই করে প্রথমে ভারতের গুজরাট রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী, পরে দেশের প্রধানমন্ত্রী হওয়া নরেন্দ্র মোদির বাড়ি নেই, গাড়ি নেই, কৃষিজমিও নেই। নির্বাচন কমিশনে জমা দেওয়া হলফনামায় এমনটিই জানান তিনি। তবে বিজেপির অধিকাংশ প্রার্থীর মতো তিনিও কোটিপতি।

হলফনামায় মোদি আরও জানিয়েছেন, তার গাড়ি বাড়ি কিছুই নেই। তবে স্ত্রী যশোদাবেন কী করেন, তাও তিনি জানেন না। যশোদাবেনের পেশা কী, তাঁর জানা নেই। তাঁর আয়ের উৎস কী, তা–ও জানা নেই মোদির। তিনি কিছু আয় করেন কি না, কিংবা কোনো সম্পত্তি আছে কি না, তা–ও তাঁর অজানা। এ–ও জানেন না, স্ত্রীর কোনো ঋণ আছে কি না, কিংবা সরকারের কোনো বকেয়া রয়েছে কি না।

প্রধানমন্ত্রী মোদি অবশ্য জানিয়েছেন, তাঁরও কোনো ঋণ নেই। তাঁর কাছে সরকারেরও কোনো বকেয়া নেই। নেই গাড়ি, বাড়ি, জমিজমা। পাশাপাশি জানিয়েছেন, তাঁর বিরুদ্ধে কোনো ফৌজদারি মামলাও নেই। বন্ড অথবা মিউচুয়াল ফান্ডে তিনি বিনিয়োগও করেননি।

তাহলে মোদি কোটিপতি কীভাবে এমন প্রশ্ন আসতেই পারে? তিনি জানিয়েছেন, তাঁর আয়ের উৎস প্রধানমন্ত্রী হিসেবে পাওয়া বেতন ও সঞ্চয়ের সুদ। তাঁর মোট অস্থাবর সম্পত্তির পরিমাণ ৩ কোটি ২ লাখ ৬ হাজার ৮৮৯ রুপি। স্থায়ী আমানত রয়েছে ২ কোটি ৮৫ লাখ ৬০ হাজার ৩৩৮ রুপি। হাতে নগদ ৫২ হাজার ৯২০ রুপি। গান্ধীনগর ও বারানসির ব্যাংকে গচ্ছিত রয়েছে ৮০ হাজার ৩০৪ রুপি।

এই সম্পদের বাইরে মোদির রয়েছে ৯ লাখ ১২ হাজার ৩৯৮ রুপির জাতীয় সঞ্চয়পত্র। আর আছে ৪টি সোনার আংটি, যার মূল্য ২ লাখ ৬৭ হাজার ৭৫০ রুপি।

এছাড়াও হলফনামায় নিজের শিক্ষাগত যোগ্যতাও তুলে ধরেছেন মোদি। জানান, ১৯৭৮ সালে দিল্লি বিশ্ববিদ্যালয় থেকে বিএ পাশ করেছেন। এরপর ১৯৮৩ সালে স্নাতকোত্তর পাশ করেন গুজরাট বিশ্ববিদ্যালয় থেকে। তাঁর বিরুদ্ধে কোনও অপরাধমূলক মামলাও নেই। রাজনীতিই তাঁর একমাত্র পেশা। 

মঙ্গলবার বেলা ১১টা ৪০ মিনিটে বারাণসীর জেলাশাসকের দপ্তরে মনোনয়ন পেশ করেন মোদি। গত দুবারের প্রথা মেনে এদিনও মনোনয়ন জমা দেওয়ার আগে বারাণসীর কাল ভৈরব মন্দিরে গিয়ে পূজা দেন তিনি। মনোনয়ন জমার পর প্রধানমন্ত্রী বলেন, আমি অভিভূত এবং আবেগপ্রবণ। আপনাদের স্নেহের ছায়ায় কীভাবে দশটা বছর কেটে গেল বুঝতেও পারিনি। 

সাবস্ক্রাইব ও অনুসরণ করুন

সম্পাদক : শ্যামল দত্ত

প্রকাশক : সাবের হোসেন চৌধুরী

অনুসরণ করুন

BK Family App