×

ভিডিও

আল-আকসা মসজিদে আবারও উড়লো ইসরায়েলি পতাকা

Icon

কাগজ ডেস্ক

প্রকাশ: ১৪ মে ২০২৪, ১১:০২ পিএম

ইসলামের তৃতীয় পবিত্রতম স্থান আল-আকসা মসজিদ চত্বরে আবারও প্রবেশ করেছে বেশ কয়েকজন ইসরায়েলি ইহুদি। তাদের মধ্যে একজন উগ্রবাদী ইসরায়েলি মসজিদের ঠিক সামনে ইসরায়েলের পতাকা উড়ায়। ১৪ মে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে এই ঘটনার একটি ভিডিও ভাইরাল হয়েছে। ভিডিওটির সত্যতা নিশ্চিত করেছে কাতারভিত্তিক সংবাদমাধ্যম আলজাজিরা।

ভিডিওতে দেখা যায়, উগ্রবাদী ওই ইহুদি তার কোর্টের পকেট থেকে একটি ইসরায়েলের পতাকা বের করে সেটি মেলে ধরে। কিন্তু ওই সময় পুলিশ তাকে জোরপূর্বক সেখান থেকে সরিয়ে দেওয়ার চেষ্টা করেনি। বরং, খুবই শান্তভাবে ঐ উগ্রবাদীর সাথে কথা বলে। এর কিছুক্ষণ পর সে নিজেই এটি আবার পকেটে ঢুকিয়ে ফেলে। 

কিন্তু, কেন ঐ উগ্রবাদী ইহুদী ১৪ মে মুসলমানদের অতিপবিত্রতম স্থান আল-আকসা মসজিদ চত্বরে পতাকা উড়ালেন সেটাই বিশ্লেষণের বিষয়। ১৪ মে ছিল দখলদার ইহুদীদের স্বাধীনতা দিবস। ১৯৪৮ সালের এই দিনে ফিলিস্তিনে ব্রিটিশ ম্যান্ডেটের মেয়াদ শেষ হওয়ার ঠিক আগের ঘটনা। ডেভিড বেন গুরিয়ন ও ইহুদি জনগণের কাউন্সিল ইসরায়েল রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠার ঘোষণা দেয়। এই ঘোষণার ফলে শুরু হয় প্রথম আরব-ইসরায়েল যুদ্ধ। 

দলে দলে ইহুদিরা ইউরোপ ও অন্যান্য আরব দেশ থেকে ফিলিস্তিনে পাড়ি জমাতে শুরু করেন। এর আগে ব্রিটিশদের প্রত্যক্ষ মদদে অভিবাসী ইহুদিদের নিয়ে ১৯২১ সালেই গঠন করা হয়েছিল হাগানাহ নামের আধা সামরিক বাহিনী। এরপর আরও দুটি জায়নবাদী সংগঠন ইরগুন ও স্টার্ন গ্যাং গড়ে ওঠে পরে। ১৯৪৮ সালের ১৪ মে ইসরায়েল রাষ্ট্র ঘোষণার সঙ্গে সঙ্গে হাগানাহ, ইরগুন ও স্টার্ন গ্যাং একীভূত হয়ে ইসরায়েলি প্রতিরক্ষা বাহিনীতে রূপান্তরিত হয়। এরপর থেকে আজ পর্যন্ত চলে আসছে সেই সংঘাত।

ইহুদিরা মনে করেন, এই জায়গায় কিং সালমানের সুলাইমান (আ.)-এর মন্দির ছিল। এই মন্দির ভেঙে ফেলা হয়েছে। এই মন্দির পুনর্নির্মাণ করা এখন তাদের অন্যতম বড় একটা কাজ। আর তার জন্য ভাঙতে হবে মুসলমানদের পবিত্র স্থান আল-আকসা মসজিদ। আল আকসা মসজিদ ভাঙার মতো এত ভয়ঙ্কর সাহস ইসরাইল করবে কিনা সেটাই এখন বড় প্রশ্ন। তাদের আমেরিকা বা অন্য কেউ এই কাজ করতে সাহস দিবে কিনা সেটাও বড় ব্যাপার।

গত কয়েক মাস ধরে আল-আকসা চত্বরে ইহুদিরা প্রায়ই ঢুকে পড়ছে। যদিও ইহুদিদের আইন অনুযায়ী, আল-আকসার কোনো স্থানেই তারা প্রবেশ করতে পারবে না। কিন্তু এই আইন উগ্রবাদী ইহুদিরা ভঙ্গ করছে। এতে করে সেখানে উত্তেজনার সৃষ্টি হচ্ছে। আর তা নিয়েই বারবার রক্ত ঝরছে নিরীহ ফিলিস্তিনিদের।

এছাড়া গত বছরের ৭ অক্টোবর থেকে আল-আকসায় জুমার নামাজ পড়তে মুসল্লিদের বাধা দিচ্ছে দখলদার ইসরায়েল। বিশেষ করে তরুণদের মসজিদটিতে প্রবেশ করতে দিচ্ছে না তারা। এতে করে ওল্ড সিটির বিভিন্ন সড়কে নামাজ আদায় করতে হচ্ছে মুসল্লিদের।

ফিলিস্তিনি ও ইসরায়েলিদের মধ্যে কোনো ধরনের উত্তেজনা সৃষ্টি হলে আল-আকসায় মুসল্লিদের প্রবেশে বাধা দেওয়ার চেষ্টা করে ইসরায়েল। গত কয়েক বছরে এমনও ঘটনা ঘটেছে যেখানে মূল মসজিদে প্রবেশ করে ফিলিস্তিনিদের ওপর হামলা চালিয়েছে ইসরায়েলি পুলিশ।

ইসলামে পবিত্র মক্কা ও মদিনার পর জেরুজালেমের আল-আকসা মসজিদটি সবচেয়ে পবিত্র। মসজিদটিতে শুধুমাত্র মুসল্লিদের ইবাদত করার অধিকার থাকলেও সেটি কেড়ে নিতে চায় ইহুদিরা। 

সাবস্ক্রাইব ও অনুসরণ করুন

সম্পাদক : শ্যামল দত্ত

প্রকাশক : সাবের হোসেন চৌধুরী

অনুসরণ করুন

BK Family App