×

ভিডিও

জাতিসংঘের ১৯৪তম সদস্য হতে যাচ্ছে ফিলিস্তিন!

Icon

কাগজ ডেস্ক

প্রকাশ: ১২ মে ২০২৪, ০৯:১৬ পিএম

ফিলিস্তিনকে যোগ্য রাষ্ট্র হিসেবে জাতিসংঘের পূর্ণাঙ্গ সদস্য করার সুপারিশ করেছে সাধারণ পরিষদ। ফিলিস্তিনের পূর্ণ সদস্যপদের আবেদনের ওপর ১০ মে সাধারণ পরিষদে ভোট হলে সদস্য রাষ্ট্রগুলো প্রস্তাবের পক্ষে নিরঙ্কুশ সমর্থন জানায়। এ প্রস্তাবটি নিরাপত্তা পরিষদও পুনর্বিবেচনা করবে বলে আশা করছে সাধারণ পরিষদ। ১৯৩ সদস্য রাষ্ট্রের মধ্যে ১৪৩টি রাষ্ট্র প্রস্তাবের পক্ষে, ৯টি রাষ্ট্র বিপক্ষে ভোট দেয় এবং ২৫টি রাষ্ট্র ভোটদানে বিরত ছিল। 

এক জরুরি বৈঠকে ফিলিস্তিনকে রাষ্ট্রের 'অধিকার ও সুযোগ-সুবিধা' দিয়ে জাতিসংঘের ১৯৪তম সদস্য করতে নিরাপত্তা পরিষদের প্রতি আহ্বান জানায় সাধারণ পরিষদ। এই ভোটে ফিলিস্তিনের পক্ষে বৈশ্বিক জনমতের প্রতিফলন দেখা গেছে বলে মনে করছেন বিশ্লেষকরা। জাতিসংঘের পূর্ণ সদস্যপদ পেতে ১৫ সদস্যের নিরাপত্তা পরিষদ ও সাধারণ পরিষদের অনুমোদন প্রয়োজন। ফিলিস্তিন বর্তমানে জাতিসংঘের পর্যবেক্ষক সদস্য হিসেবে রয়েছে। 

২০১২ সালে জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদে কার্যত রাষ্ট্রের স্বীকৃতি পেয়েছিল ফিলিস্তিন। তবে পূর্ণ সদস্যপদ পেতে নিরাপত্তা পরিষদ এবং সাধারণ পরিষদের দুই-তৃতীয়াংশ সদস্যের অনুমোদন প্রয়োজন। সাধারণ পরিষদের দুই-তৃতীয়াংশ সদস্য ইতোমধ্যে ফিলিস্তিনকে রাষ্ট্র হিসেবে স্বীকৃতি দিয়েছে। তবে,এই প্রস্তাবের বিপক্ষে ভোট দিয়েছে ৯টি দেশ, তারা হলো আর্জেন্টিনা, চেক প্রজাতন্ত্র, হাঙ্গেরি, ইসরাইল, মাইক্রোনেশিয়া, নাউরু, পালাউ, পাপুয়া নিউ গিনি এবং মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র।

সাধারণ পরিষদের এই ভোটের মধ্য দিয়ে অবশ্য জাতিসংঘে পূর্ণ সদস্যপদ পাবে না ফিলিস্তিন। তবে, ফিলিস্তিনকে জাতিসংঘে যুক্ত করার পক্ষে এটি একটি বৈশ্বিক স্বীকৃতি হিসেবে কাজ করবে। ফিলিস্তিন রাষ্ট্রের স্বীকৃতির ক্ষেত্রেও এর ভূমিকা থাকবে। ১০মে জাতিসংঘের প্রস্তাবে ফিলিস্তিনকে বাড়তি সুবিধা প্রদান করা হয়, যাতে তারা পুরোপুরি কোন বিতর্কে অংশ নিতে পারে, এজেন্ডা প্রস্তাব করতে পারে এবং কমিটি নির্বাচনে তাদের প্রতিনিধি রাখতে পারে। এর আগে গত মাসে নিরাপত্তা পরিষদে ফিলিস্তিন রাষ্ট্রের স্বীকৃতির একটি প্রস্তাব উঠলে যুক্তরাষ্ট্রের ভেটো ক্ষমতা প্রয়োগে তা খারিজ হয়ে যায়।

সাধারণ পরিষদে ভোটাভুটির সময় যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্কে জাতিসংঘের সদর দপ্তরে ছিলেন আল-জাজিরার সাংবাদিক গ্যাব্রিয়েল এলিজোন্ডো। তাঁর মতে, প্রস্তাবের পক্ষে বিপুল ভোট পড়ার ঘটনাটা খুবই উল্লেখযোগ্য। তিনি বলেন, ‘যেমনটি আমরা শুনছিলাম, ফিলিস্তিনের পক্ষে ১২০ থেকে ১৩০টির মধ্যে ভোট পড়তে পারে। সর্বোচ্চ তা ১৪০ হতে পারে। তবে ১৪৩টি ভোট পড়াটা একেবারে প্রত্যাশার চেয়ে বেশি।’

ভোটের পর ফিলিস্তিনের প্রেসিডেন্ট মাহমুদ আব্বাস বলেন, প্রস্তাব পাস হওয়ার মধ্য দিয়ে এটা দেখা গেছে যে বিশ্ব ফিলিস্তিনিদের স্বাধীনতা ও অধিকারের পক্ষে রয়েছে। একই সঙ্গে তারা ইসরায়েলের দখলদারির বিপক্ষে রয়েছে। অপর দিকে এই ভোটের নিন্দা জানিয়েছেন জাতিসংঘে ইসরায়েলের রাষ্ট্রদূত গিলাড এরডান। তিনি বলেন, জাতিসংঘ এখন ‘একটি সন্ত্রাসী রাষ্ট্রকে’ স্বাগত জানাচ্ছে।

ফিলিস্তিনের গাজায় প্রায় সাত মাস ধরে ইসরায়েলের নির্বিচার হামলায় ৩৪ হাজার ৯৪৩ মানুষ প্রাণ হারিয়েছেন। এই প্রেক্ষাপটে ফিলিস্তিনের জাতিসংঘের পূর্ণ সদস্যপদের জন্য সাধারণ পরিষদে প্রস্তাবটি তুলেছিল সংযুক্ত আরব আমিরাত।

সাবস্ক্রাইব ও অনুসরণ করুন

সম্পাদক : শ্যামল দত্ত

প্রকাশক : সাবের হোসেন চৌধুরী

অনুসরণ করুন

BK Family App