×
Icon এইমাত্র
কমপ্লিট শাটডাউন কর্মসূচি চালিয়ে যাওয়ার ঘোষণা দিয়েছে কোটা আন্দোলনকারীরা বাংলাদেশ টেলিভিশনের মূল ভবনে আগুন দিয়েছে দুর্বৃত্তরা। বিটিভির সম্প্রচার বন্ধ। কোটা সংস্কার আন্দোলনে সারা দেশে এখন পর্যন্ত ১৯ জন নিহত কোটা ইস্যুতে আপিল বিভাগে শুনানি রবিবার: চেম্বার আদালতের আদেশ ছাত্রলীগের ওয়েবসাইট হ্যাক ‘লাশ-রক্ত মাড়িয়ে’ সংলাপে বসতে রাজি নন আন্দোলনকারীরা

খেলা

মেসিদের চোখ রাঙাচ্ছে কানাডা

Icon

প্রকাশ: ০৯ জুলাই ২০২৪, ১২:০০ এএম

প্রিন্ট সংস্করণ

মেসিদের চোখ রাঙাচ্ছে কানাডা

কাগজ ডেস্ক : গ্রুপ পর্বে কানাডার বিপক্ষে ম্যাচ দিয়েই টুর্নামেন্ট শুরু করেছিল আর্জেন্টিনা। মেসিদের চেয়ে সব বিভাগেই অনেক পিছিয়ে থাকলেও কানাডা সেই ম্যাচে জোর লড়াই করেছিল। শেষ পর্যন্ত ওই ম্যাচ হেরে যায় তারা। সেই কানাডাকেই আবার সেমিফাইনালে পেয়েছে লিওনেল মেসিরা। হন্ডুরাসের পর কোপা আমেরিকায় প্রথমবার অংশ নিয়েই সেমিতে ওঠার ইতিহাস গড়েছে কানাডা। ফাইনালে ওঠার লড়াইয়ে আগামীকাল (বুধবার) নিউজার্সির মেটলাইফ স্টেডিয়ামে বাংলাদেশ সময় সকাল ৬টায় শক্তিশালী আর্জেন্টিনার বিপক্ষে নামবেন আলফানসো ডেভিসরা। এবারের কোপায় চমক দেখিয়ে সেমিতে জায়গা করেছে ২০২৬ বিশ্বকাপের সহআয়োজক দেশটি। গ্রুপ পর্বে আর্জেন্টিনার কাছে ২ গোলে হারার পর পেরুর বিরুদ্ধে ১-০ গোলে জয় পেয়েছিল কানাডা। এরপর কানাডা-চিলি দ্বৈরথ শেষ হয় গোলশূন্যভাবে। কোয়ার্টার ফাইনালে ভেনেজুয়েলা-কানাডা ম্যাচ ১-১ গোলে অমীমাংসিত থাকার পর টইব্রেকারে কানাডা জেতে ৪-৩ গোলে। কনকাকাফের চতুর্থ দেশ হিসেবে কানাডা কোপা আমেরিকার সেমিফাইনালে উঠেছে। মেক্সিকো (১৯৯৩ সালে রানার্সআপ), মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র (১৯৯৫ সালে তৃতীয়) ও হন্ডুরাস (২০০১ সালে তৃতীয়) এরপর। কোপা অভিষেকেই সেমিফাইনালে পৌঁছেছে তৃতীয় দেশ হিসেবে।

এবারের কোপা আমেরিকায় আর্জেন্টিনা যে মারাত্মক ভালো ছন্দে রয়েছে, তা কিন্তু নয়। তবে নিজেদের সেরাটা এখনো দিতে না পারলেও, সেমিফাইনাল পর্যন্ত আসতে খুব একটা সমস্যা হয়নি লিওনেল মেসিদের। ২০২১ সালে কোপা জয়ের পর আর পেছনে ফিরে তাকায়নি লিওনেল স্কালোনির শিষ্যরা। ৩৬ বছর পর আবার বিশ্বকাপ শিরোপা জিতেছে তারা। এবার আর্জেন্টিনার সামনে সুযোগ টানা দ্বিতীয়বার কোপার শিরোপা জয়ের। কাগজে-কলমে সহজ প্রতিপক্ষ আর্জেন্টিনার সামনে। লিওনেল স্কালোনির দল পুরো টুর্নামেন্টেরই ফেভারিট, নিশ্চিতভাবে কানাডার বিপক্ষেও তারা অনেক এগিয়েই থাকবে। এছাড়া র‌্যাঙ্কিং ও সাম্প্রতিক পারফরম্যান্স মিলিয়ে যোজন যোজন পিছিয়ে কানাডা। তবে আলফানসো ডেভিস মনে করছেন, আগের চেয়ে এবার তাদের আর্জেন্টিনাকে হারানোর সুযোগ বেশিই থাকবে। ক্লাব ফুটবলে বায়ার্ন মিউনিখে খেলা ডেভিস বলছেন, ‘আমাদের সব উজাড় করে দিতে হবে। আমরা তাদের বিপক্ষে গ্রুপ পর্বে খেলেছি, আমরা ভালো খেলেছিলাম। কিন্তু আমরা যে জয়টা চেয়েছিলাম, তা পাইনি।

এই ম্যাচে আমরা জানি কী অপেক্ষা করছে। জিতলে আমরা এগিয়ে যাব, আর হারলে আমাদের বাড়ি যেতে হবে। আমরা আগের চেয়ে বেশি ক্ষুধার্ত এখন আমরা তাদের কাছ থেকে প্রত্যাশা অনুযায়ী লড়াই আশা করছি।’ আর্জেন্টিনা শক্তিশালী দল হলেও তাদের বিরুদ্ধে আক্রমণাত্মক ফুটবল খেলবেন বলে জানিয়েছেন ডেভিস। তিনি বলেন, ‘আমাদের নিজেদের সেরা খেলাটা খেলতে হবে। আমরা পিছিয়ে থেকে শুধু রক্ষণাত্মক ফুটবল খেলব না। আমরাও আক্রমণ করব। নিজেদের পরিকল্পনা অনুযায়ী খেলব। আর্জেন্টিনাকে হারানোর চেষ্টা করব।’ কোপা আসর শুরুর আগেই অবশ্য কানাডার বিপক্ষে প্রীতি ম্যাচ খেলেছিল আর্জেন্টিনা। মার্সিডিজ বেঞ্জ স্টেডিয়ামে হওয়া সেই ম্যাচেও ডিফেন্ডিং চ্যাম্পিয়নরা জেতে ২-০ গোলে। আলবিসেলেস্তেদের হয়ে একটি করে গোল করেন হুলিয়ান আলভারেজ ও লাওতারো মার্তিনেজ।

এদিকে ভেনেজুয়েলাকে হারিয়ে সেমিফাইনালে ওঠা কানাডার কোচ আর্জেন্টিনা ম্যাচের আগের সংবাদ সম্মেলনে বলেছেন, ‘আমাদের জন্য অসাধারণ এক সুযোগ এটা। আমরা ইতিবাচক ও আক্রমণাত্মক ফুটবল খেলব। আমরা যেভাবে খেলতে চাই, সেভাবেই খেলব এবং এরপর দেখব যে সেটা চালিয়ে যেতে পারি কিনা। মেসিকে আরো ভালোভাবে সামলাব আমরা।’ মেসিকে সামলানোর বিষয় নিয়ে কথা বলতে গিয়ে এবারের কোপা আমেরিকায় আর্জেন্টিনার কাছে ২-০ গোলে হেরে যাওয়া নিজেদের প্রথম ম্যাচের প্রসঙ্গও টেনে এনেছেন কানাডার কোচ, ‘প্রথম ম্যাচে আমরা তাকে বেশি স্বাধীনতা দিয়েছি।’ নিউজার্সির মেটলাইফ স্টেডিয়ামে আর্জেন্টিনার বিপক্ষে ম্যাচটিকে যে কানাডার ইতিহাসের অন্যতম সেরা বানাতে চান, সেটাও বলেছেন মার্চ, ‘আর্জেন্টিনার বিপক্ষে ম্যাচটি আমাদের খেলা সেরা ম্যাচ হবে এবং সেটাও যদি যথেষ্ট না হয়, তবু আমরা চেষ্টা করব।’

তবে সেমিফাইনালের আগে ডি মারিয়াকে নিয়ে সুখবর পেয়েছে আর্জেন্টিনা। পুরোপুরি ফিট না হওয়ায় কোয়ার্টার ফাইনালে ইকুয়েডরের বিপক্ষে পুরো ম্যাচ বেঞ্চে বসে কাটিয়েছেন ডি মারিয়া। তবে আর্জেন্টাইন গণমাধ্যম টিওয়াইসি স্পোর্টস জানিয়েছে, কানাডার বিপক্ষে সেমিফাইনালে ফিরছেন এই তারকা। শেষ চারে ৪-৩-৩ ছকে লিওনেল স্কালোনি খেলাতে পারে বলে জানিয়েছে তারা। সব ঠিক থাকলে চলতি কোপা শেষেই অবসরে যাবেন ডি মারিয়া। কোপা আমেরিকায় গতবারের চ্যাম্পিয়ন আর্জেন্টিনা শেষ পাঁচটি সংস্করণের মধ্যে চারবার সেমিফাইনাল খেলেছে। তার মধ্যে মাত্র দুবার সেমিফাইনালে হেরেছে (২০০৪-এ কলম্বিয়া ও ২০১৯ সালে চিলির কাছে)। কনকাকাফ প্রতিপক্ষের বিরুদ্ধে শেষ ১০টি ম্যাচেই আর্জেন্টিনা জিতেছে।

তার মধ্যে শেষ ৬টি ম্যাচে কোনো গোল হজম না করেই। এই পরিস্থিতিতে কানাডা জিতলে নিশ্চিতভাবেই হবে অঘটন।

সাবস্ক্রাইব ও অনুসরণ করুন

সম্পাদক : শ্যামল দত্ত

প্রকাশক : সাবের হোসেন চৌধুরী

অনুসরণ করুন

BK Family App