×
Icon এইমাত্র
কমপ্লিট শাটডাউন কর্মসূচি চালিয়ে যাওয়ার ঘোষণা দিয়েছে কোটা আন্দোলনকারীরা বাংলাদেশ টেলিভিশনের মূল ভবনে আগুন দিয়েছে দুর্বৃত্তরা। বিটিভির সম্প্রচার বন্ধ। কোটা সংস্কার আন্দোলনে সারা দেশে এখন পর্যন্ত ১৯ জন নিহত কোটা ইস্যুতে আপিল বিভাগে শুনানি রবিবার: চেম্বার আদালতের আদেশ ছাত্রলীগের ওয়েবসাইট হ্যাক ‘লাশ-রক্ত মাড়িয়ে’ সংলাপে বসতে রাজি নন আন্দোলনকারীরা

খেলা

ইউরোর প্রথম সেমিতে মুখোমুখি স্পেন-ফ্রান্স

আলিয়াঞ্জ অ্যারেনায় দুই সেয়ানের লড়াই

Icon

প্রকাশ: ০৯ জুলাই ২০২৪, ১২:০০ এএম

প্রিন্ট সংস্করণ

 আলিয়াঞ্জ অ্যারেনায় দুই সেয়ানের লড়াই

কাগজ ডেস্ক : জার্মানিতে চলমান ১৭তম ইউরোপিয়ান চ্যাম্পিয়নশিপে প্রথম সেমিফাইনালে বুধবার রাতে মুখোমুখি হবে স্পেন ও ফ্রান্স। ৭০ হাজার দর্শক ধারণক্ষমতার আলিয়াঞ্জ অ্যারেনায় বাংলাদেশ সময় রাত ১টায় শুরু হবে মাঠের লড়াই। ইতোমধ্যেই আসরের চূড়ান্ত ৩ ম্যাচ কোন বল দিয়ে খেলা হবে, সেই ঘোষণা দিয়েছে খেলার সামগ্রী নির্মাণকারী প্রতিষ্ঠান অ্যাডিডাস। তাদের ওয়েবসাইটে নতুন বল দিয়ে সেমিফাইনাল ও ফাইনাল খেলার ঘোষণা দিয়েছে অ্যাডিডাস। বলটির নাম দেয়া হয়েছে ‘ফুসবালিবে’। ইউরোর প্রথম সেমিতে চরম উত্তেজনাময় এক ম্যাচের সাক্ষী হতে চলেছে ফুটবলবিশ্ব। কারণ হচ্ছে স্পেন এবং ফ্রান্স বিশ্ব ফুটবলে দুই হেভিওয়েট টিম। তবে এবারের ইউরোতে পারফরম্যান্সের বিচারে অনেকটাই এগিয়ে রয়েছে স্পেন। তারা দুর্দান্ত ফুটবল খেলছে। গ্রুপ পর্বে ইতালি ও ক্রোয়েশিয়ার মতো দলকে হারানোর পর নকআউটে তারা হারিয়েছে জর্জিয়া এবং জার্মানিকে। জার্মানির ঘরের মাঠেই তাদের ২-১ গোলে হারিয়ে সেমিতে জায়গা করে নেয় স্পেন। বুধবার শেষ চারের ম্যাচেও তারাই ফেভারিট। অন্যদিকে গ্রুপ পর্বে অস্ট্রেলিয়াকে হারাতে পারলেও নেদারল্যান্ডস ও পোল্যান্ডের সঙ্গে পয়েন্ট ভাগাভাগি করে শেষ ষোলোয় ওঠে এমবাপ্পে বাহিনী। শেষ ষোলোতে শক্তিশালী বেলজিয়ামকে বিদায় করে ওঠে কোয়ার্টারে। ২০১৬ ইউরোর শিরোপা নির্ধারণী ম্যাচে অতিরিক্ত সময়ের গোলে পর্তুগালের কাছে হেরে রানার্সআপে ফিরতে হয়েছিল ফরাসিদের। আট বছর আগের হারের প্রতিশোধটা আগেভাগে নিয়েছে দিদিয়ের দেশ্যমের দল। কোয়ার্টারে রোনালদোর পর্তুগালকে বিদায় করে সেমিতে পা রেখেছে।

সব প্রতিযোগিতা মিলিয়ে এ পর্যন্ত ৩৬ বার মুখোমুখি হয়েছে স্পেন-ফ্রান্স। দুদলের মুখোমুখি লড়াইয়ে জয়ের পাল্লা ভারী স্পেনিয়ার্ডদের। স্পেনের ১৬ জয়ের বিপরীতে ফ্রান্সের জয় ১৩টিতে। বাকি ৭ ম্যাচ ড্র হয়েছে। ইউরোপিয়ান চ্যাম্পিয়নশিপে এ পর্যন্ত ৯ বার দেখা হয়েছে দুদলের। স্পেনের ৫ জয়ের বিপরীতে ফ্রান্সের ৩ জয় এবং ড্র হয়েছে এক ম্যাচ। ঘরের মাঠে পাঁচ ম্যাচে দুটি করে জয়-পরাজয় ও একটি ড্র রয়েছে স্পেনের। অন্যদিকে, অ্যাওয়েতে ৮ ম্যাচের মধ্যে ৩টি করে জয়-পরাজয়ের সঙ্গে ড্র হয়েছে ২ ম্যাচে। ২০২১ সালের ইউরোর পর ৩ ম্যাচে কোনোটিতে জয়ের দেখা পায়নি কেউ। ড্র নিয়ে মাঠ ছাড়ে দুদল। অন্যদিকে, অ্যাওয়েতে ৪ ম্যাচের মধ্যে ৩ জয় ও এক পরাজয় রয়েছে তাদের।

ইউরোর দুই সাবেক চ্যাম্পিয়নের বর্তমান অবস্থা দুই রকম। দুরন্ত পারফরম্যান্স মেলে ধরা স্পেন ভাসছে প্রশংসার স্রোতে। অন্যদিকে বিবর্ণতায় বন্দি ফ্রান্স বিদ্ধ হচ্ছে সমালোচনার তীরে। সেমিফাইনালে উঠলেও এখন পর্যন্ত মন ভরাতে পারেনি ফ্রান্সের ফুটবল। অথচ ফ্রান্স বিশ্বকাপের গত দুই আসরের ফাইনালিস্ট। ২০১৮ সালে রাশিয়ার আসরে চ্যাম্পিয়ন, ২০২২ সালে কাতারের টুর্নামেন্টের ফাইনালে টাইব্রেকার হেরে রানার্সআপ। তবে বিশ্বকাপ মঞ্চের আলোটুকু ফরাসিরা টেনে নিতে পারেনি ইউরোপসেরার আঙিনায়। এমনকি ইউরোর চলতি আসরে ওপেন প্লেতে (পেনাল্টি, ফ্রি-কিক-আত্মঘাতী গোল বাদ দিয়ে) এখন পর্যন্ত কোনো গোলই করতে পারেনি তারা।

নাকের চোটের কারণে মাস্ক পরে খেলা কিলিয়ান এমবাপ্পেকেও দেখা যায়নি সেরা ছন্দে। চলতি ইউরোয় এমবাপ্পে এখন পর্যন্ত চার ম্যাচে খেলেছেন ৩৭৪ মিনিট। গোল করেছেন মাত্র একটি। সতীর্থদের গোলের জন্য বল তৈরি করেছেন মাত্র একবার। এখনো পর্যন্ত মোট দৌড়েছেন ৩৪.৫ কিমি, যা নিয়ে প্রশ্নবিদ্ধ হচ্ছেন তিনি। অন্যদিকে এবারের ইউরোতে দুর্দান্ত ফুটবল খেলছে স্পেন। গ্রুপ পর্বে ইতালি-ক্রোয়েশিয়ার মতো দলকে হারানোর পর নকআউটে তারা হারিয়েছে জর্জিয়া ও জার্মানিকে। তারুণ্য এবং অভিজ্ঞতায় মোড়ানো এই দলটির চালিকাশক্তির অন্যতম উৎস লামিনে ইয়ামাল। ইউরোতে নিজেদের প্রথম ম্যাচে স্পেনের জার্সি গায়ে মাঠে নেমেই ক্রোয়েশিয়ার বিপক্ষে সবচেয়ে কম বয়সে ইউরোতে অভিষেকের রেকর্ড গড়েছেন স্প্যানিশ এই উদীয়মান। ভেঙেছেন পোল্যান্ডের সাবেক ফুটবলার কজলভস্কির রেকর্ড। এছাড়া সবচেয়ে কম বয়সি খেলোয়াড় হিসেবে এক ইউরোতে গড়েছেন সর্বোচ্চ অ্যাসিস্ট করার নজির। সবচেয়ে কম বয়সে গোলে সহায়তাকারী হিসেবেও রেকর্ডের খাতায় নাম তুলেছেন বার্সেলোনার এই কিশোর।

সেমিফাইনালে স্পেন যদি ফ্রান্সকে হারিয়ে ফাইনালের টিকেট নিশ্চিত করে, তবে ইয়ামাল হবেন ইউরোর ফাইনাল খেলা সর্বকনিষ্ঠ ফুটবলার। তবে স্পেনকে নিয়ে ভয় পাওয়ার মতো কিছু নেই বলে অভিমত ব্যক্ত করেছেন ফরাসি তারকা অ্যান্তোনিও গ্রিজম্যান। নিজের দলের ওপর আত্মবিশ্বাস রেখে গ্রিজম্যান বলেছেন, ‘স্পেন অবশ্যই অনেক ভালো দল। কিন্তু তাদের ভয় পাওয়ার কিছু নেই। কোনো দলকে নিয়েই ভয় পাওয়ার কিছু নেই। আমরা আমাদের ওপর বিশ্বাস রাখি এবং নিজেদের সবটুকু দিয়ে যাব ফাইনালে ওঠার জন্য।’ যদিও নিজেদের সেরাটা দেয়া এখনো বাকি বলে মনে করছেন স্পেনের ডিফেন্ডার মার্ক কুকুরেয়া। স্প্যানিশ ডিফেন্ডার বলেছেন, ‘ফ্রান্সের বিপক্ষে আমাদের খুবই মনোযোগী থাকতে হবে। বল হারালে সতর্ক থাকতে হবে কারণ আক্রমণে তাদের কিছু গতিময় খেলোয়াড় আছে যারা বিপদ ঘটাতে পারে। যদি আমরা দ্রুত বল ফের দখলে নিতে পারি তাহলে আমি মনে করি আমাদের ভালো সুযোগ আছে। জিতলে মানুষ আমাদের মনে রাখবে এবং এটাই আমাদের লক্ষ্য।’

সাবস্ক্রাইব ও অনুসরণ করুন

সম্পাদক : শ্যামল দত্ত

প্রকাশক : সাবের হোসেন চৌধুরী

অনুসরণ করুন

BK Family App