×

খেলা

শাস্তির মুখোমুখি রশিদ খান

Icon

প্রকাশ: ২৮ জুন ২০২৪, ১২:০০ এএম

প্রিন্ট সংস্করণ

শাস্তির মুখোমুখি রশিদ খান

কাগজ ডেস্ক : টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে সুপার এইটের শেষ ম্যাচে বাংলাদেশের মুখোমুখি হয়েছিল আফগানিস্তান। যে ম্যাচে বৃষ্টি আইনে ৮ রানে টাইগারদের হারিয়ে প্রথমবারের মতো সেমিফাইনালে উঠেছিল আফগানিস্তান। তবে সেমিফাইনালে দক্ষিণ আফ্রিকার কাছে বাজেভাবে ধরাশায়ী হয়েছে আফগানরা। এদিকে সেমিফাইনালে প্রোটিয়াদের বিপক্ষে মাঠে নামার আগে বাংলাদেশের ম্যাচে করা আচরণ নিয়ে আইসিসির কাছ থেকে শাস্তি পেয়েছেন আফগান অধিনায়ক রশিদ খান।

এক বিবৃতিতে গতকাল রশিদ খানের শাস্তির বিষয়টি নিশ্চিত করেছে বিশ্বক্রিকেটের নিয়ন্ত্রক সংস্থা আইসিসি। আইসিসির প্লেয়ারদের কোড অব কন্ডাক্টের ২.৯ ধারা অনুযায়ী বিপজ্জনকভাবে কোনো ক্রিকেটারের দিকে বা কাছাকাছি জায়গায় বল বা অন্য কোনো সরঞ্জাম ছুড়ে মারার ব্যাপারে নিষিদ্ধ। সুপার এইটের ওই ম্যাচে বাংলাদেশের বিপক্ষে প্রথম ইনিংসে ব্যাট করছিল আফগানিস্তান। ইনিংসের ২০তম ওভারের সময় অফসাইডে হিট করে এক রান নিয়ে দ্বিতীয় রানের জন্যও তাড়া দিচ্ছিলেন রশিদ খান যাতে স্ট্রাইক নিতে পারেন। কিন্তু সতীর্থ করিম জানাত সায় দেননি তাতে। ততক্ষণে রশিদ মাঝ পর্যন্ত দৌড়ে চলেও গিয়েছিলেন। পরে রেগে নন স্ট্রাইকে ফিরে যাওয়ার আগে সতীর্থের দিকে ব্যাট ছুড়ে মারেন তিনি। যেটা আইসিসির কোড অব অ্যাক্টের সুস্পষ্ট লঙ্গন এ ঘটনায় রশিদের আচরণবিধিতে একটি ডিমেরিট পয়েন্ট যোগ হয়েছে। ২৪ মাস হিসাবে এটি রশিদের প্রথম অপরাধ। সাধারণত লেভেল-১-এর ক্ষেত্রে সর্বনি¤œ শাস্তি তিরস্কার। সর্বোচ্চ শাস্তি ম্যাচ ফির ওপর জরিমানা। পাশাপাশি একটি কিংবা দুটি ডিমেরিট পয়েন্ট। তবে ম্যাচ রেফারির সাজা মেনে নেয়ায় কোনো প্রকার আনুষ্ঠানিক শুনানির দরকার হয়নি।

ম্যাচটিতে আগে ব্যাট করে ১১৫ রানের সংগ্রহ দাঁড় করায় আফগানিস্তান। লো স্কোরিং ম্যাচটিতে ১০ বলে অপরাজিত ১৯ রান করেন তিনি। পরবর্তীতে বল হাতে আরো দুর্দান্ত আফগান অধিনায়ক। মাত্র ২৩ রান খরচায় ৪ উইকেট শিকার করেন বর্তমান সময়ের অন্যতম সেরা এই লেগস্পিনার। এদিকে গতকাল সেমিতে দক্ষিণ আফ্রিকার কাছে ৯ উইকেটের বড় ব্যবধানে হেরেছে আফগানরা। দলের এমন হারের পর কন্ডিশনকে দায়ী করলেও শেষপর্যন্ত এমন পারফরম্যান্সের পর সন্তুষ্টি প্রকাশ করেছে আফগান অধিনায়ক রশিদ খান। রশিদ বলেন, ‘আমরা এই টুর্নামেন্ট উপভোগ করেছি। এটা মাত্র শুরু, যে কোনো দলকে হারানোর বিশ্বাস আমাদের আছে। আমাদের শুধু প্রক্রিয়া ঠিক রাখতে হবে। এই টুর্নামেন্ট থেকে আমরা বিশ্বাস পেয়েছি। আমরা জানি, আমাদের সামর্থ্য আছে। এখন শুধু কঠিন পরিস্থিতি, চাপের মুহূর্তগুলো সামলাতে হবে। সেই সঙ্গে ফিরে আসারও ইঙ্গিত দিলেন তিনি। তিনি বলেন, ‘... তবে আমরা দারুণ কিছু অর্জন করেছি, কঠোর পরিশ্রম করে আমরা আবার ফিরব।’

সাবস্ক্রাইব ও অনুসরণ করুন

সম্পাদক : শ্যামল দত্ত

প্রকাশক : সাবের হোসেন চৌধুরী

অনুসরণ করুন

BK Family App