×
Icon এইমাত্র
কমপ্লিট শাটডাউন কর্মসূচি চালিয়ে যাওয়ার ঘোষণা দিয়েছে কোটা আন্দোলনকারীরা বাংলাদেশ টেলিভিশনের মূল ভবনে আগুন দিয়েছে দুর্বৃত্তরা। বিটিভির সম্প্রচার বন্ধ। কোটা সংস্কার আন্দোলনে সারা দেশে এখন পর্যন্ত ১৯ জন নিহত কোটা ইস্যুতে আপিল বিভাগে শুনানি রবিবার: চেম্বার আদালতের আদেশ ছাত্রলীগের ওয়েবসাইট হ্যাক ‘লাশ-রক্ত মাড়িয়ে’ সংলাপে বসতে রাজি নন আন্দোলনকারীরা

খেলা

অভিষেকেই মুগ্ধতা ছড়ালেন রিশাদ

Icon

প্রকাশ: ২৬ জুন ২০২৪, ১২:০০ এএম

প্রিন্ট সংস্করণ

অভিষেকেই মুগ্ধতা ছড়ালেন রিশাদ

কাগজ প্রতিবেদক : আসলেন, আক্ষেপ গুছালেন আর জয় করলেন এই মুহূর্তে রিশাদ হোসেনকে বোধ হয় অন্য কোনো শব্দ দিয়ে বিশ্লেষণ করা যাবে না। বাংলাদেশ দলে অনেকদিন ধরে লেগ স্পিনারের আক্ষেপ ছিল তবে রিশাদ আসায় দল ভরসা পেল। দলের হয়ে এবারের বিশ্বকাপ ছিল রিশাদের আর্ন্তজাতিক ক্যারিয়ারের প্রথম বিশ্বকাপ। আর অভিষেকেই একের পর এক ঘূর্ণিতে মুগ্ধতা ছড়িয়েছেন পুরো আসরজুড়ে। যদিও বিশ্বকাপে ব্যর্থ হয়েছে বাংলাদেশ তবে এমন পারফর্ম্যান্সে রেকর্ড় গড়ে আপন আলোয় উদ্ভাসিত হলেন দেশের একমাত্র লেগ স্পিনার রিশাদ। টাইগারদের হয়ে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে প্রথমবারের মতো ১৪ উইকেট তুলে নিলেন রিশাদ। টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের এক আসরে বাংলাদেশের কোনো বোলারের সর্বোচ্চ উইকেট এটিই।

টুর্নামেন্টে সর্বমোট ৭ ম্যাচ খেলে ২৫ ওভার বোলিং করে ১৪ উইকেট তুলে নেন রিশাদ। বল হাতে বেশ হিসেবী ছিলেন তিনি, তাতে ওভারপ্রতি রান দিয়েছেন ৭.৭৬। টাইগারদের হয়ে এক আসরে সর্বোচ্চ উইকেট শিকারের রেকর্ড়টি এতদিন সাকিব আল হাসানের ছিল। সাকিব ১১ উইকেট নিয়েছিলেন ২০২১ আসরে। ওই আসরে ৬ ম্যাচ খেলে ২২ ওভার বোলিং করেছিলেন অভিজ্ঞ অলরাউন্ডার, ওভারপ্রতি রান দিয়েছিলেন মাত্র ৫.৫৯। তবে রেকর্ডটি অবশ্য আগের ম্যাচেই স্পর্শ করেন রিশাদ। ভারতের বিপক্ষে সেদিন দুই উইকেট নিয়ে ছুঁয়ে ফেলেন সাকিব আল হাসানের ১১ উইকেটের কীর্তি। এরপর গতকাল টাইগারদের ডু অর ডাই ম্যাচে আফগানিস্তানের বিপক্ষে ম্যাচে ইব্রাহিম জাদরানকে আউট করে সাকিবকে ছাড়িয়ে রেকর্ডটি এককভাবে নিজের করে নেন এই লেগ স্পিনার। পরে তিনি এক ওভারেই রাহমানউল্লাহ গুরবাজ ও গুলবাদিন নাইবকে আউট করে আরো সমৃদ্ধ করেন নিজের অর্জন।

এদিকে প্রথম বিশ্বকাপ খেলতে এসে এবার আলো ছড়িয়েছেন বাংলাদেশের আরেক তরুণ। শরিফুল ইসলাম ফিট থাকলে যার খেলার সুযোগই হয়তো হতো না, সেই তানজিম হাসান এবার নজর কাড়েন আগ্রাসি বোলিং দিয়ে। আফগানদের বিপক্ষে খরুচে বোলিংয়ে উইকেটশূন্য থাকলেও ১১ উইকেট নিয়ে তিনি স্পর্শ করেন সাকিবকে। ২১ বছর বয়সি এই পেসার ৭ ম্যাচ খেলে বল করেছেন ২৪ ওভার। রান দিয়েছেন ওভারপ্রতি ৬.২০। এছাড়া ২০১৪ আসরে ১০ উইকেট নিয়েছিলেন পেসার আল আমিন হোসেন, ২০১৬ আসরে ১০ উইকেট শিকার করেছিলেন সাকিব। ২০১৬ আসরেই স্রেফ ৩ ম্যাচ খেলে ৯ উইকেট নিয়েছিলেন মোস্তাফিজ।

টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের এক আসরে সবচেয়ে বেশি উইকেটের রেকর্ড এতদিন ছিল ওয়ানিন্দু হাসারাঙ্গার একার। ২০২১ আসরে ৮ ম্যাচে ১৬ উইকেট শিকার করেন শ্রীলঙ্কান লেগ স্পিনার। এবার সেই রেকর্ড স্পর্শ করেন ফজলহক ফারুকি।

সাবস্ক্রাইব ও অনুসরণ করুন

সম্পাদক : শ্যামল দত্ত

প্রকাশক : সাবের হোসেন চৌধুরী

অনুসরণ করুন

BK Family App