×

খেলা

কিউই বধে সুপার এইটের পথে আফগানিস্তান

Icon

প্রকাশ: ০৯ জুন ২০২৪, ১২:০০ এএম

প্রিন্ট সংস্করণ

কিউই বধে সুপার এইটের পথে আফগানিস্তান

কাগজ ডেস্ক : নিজেদের প্রথম ম্যাচে আফগানরা জিতেছিল উগান্ডার বিপক্ষে। উগান্ডাকে ৫৬ রানে অলআউট করে ১২৫ রানের বিশাল জয় পেয়েছিল আফগানিস্তান। সেই ম্যাচে ব্যাট হাতে দলকে পথ দেখিয়েছিলেন দুই ওপেনার গুরবাজ আর ইব্রাহিম জাদরান। বল হাতে আগুন ঝরিয়েছিলেন ফজলহক ফারুকি। গায়ানার প্রভিডেন্স স্টেডিয়ামে গতকাল রহমানউল্লাহ গুরবাজ ও ইব্রাহিম জাদরানের রেকর্ড জুটির পর রশিদ খান, ফজলহক ফারুকিদের বোলিং তোপে দ্বিতীয় ম্যাচে উড়ে গিয়েছে শক্তিশালী নিউজিল্যান্ডও। নিউজিল্যান্ডকে ৮৪ রানে হারিয়ে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে টানা দ্বিতীয় জয় তুলে নিয়েছে রশিদ খানের দল। বিশ্বকাপে এটি সবচেয়ে বড় ব্যবধানে হার নিউজিল্যান্ডের।

আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে আফগানিস্তানের কাছে প্রথমবারের মতো হেরে এবারের বিশ্বকাপ শুরু করল নিউজিল্যান্ড। টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ তো বটেই, এই সংস্করণেই নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে আফগানিস্তানের প্রথম জয় এটি। পরপর দুই ম্যাচ জিতে সুপার এইটের পথে অনেকটা এগিয়ে গেল আফগানরা। এবারের টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ যেন সাজিয়ে বসেছে চমকের পসরা। একের পর এক বড় দলকে বধ করে চলেছে অপেক্ষাকৃত কম শক্তির দলগুলো। এরই সর্বশেষ উদাহরণ নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে আফগানিস্তানের জয়। আফগানিস্তান এই ম্যাচ যেভাবে খেলেছে তাতে নিউজিল্যান্ড একদম উড়ে গেছে বললেও ভুল হবে না বরং আফগানিস্তানকেই শক্তিশালী মনে হয়েছে। নিউজিল্যান্ডকে হারানোর দিনে অর্ধডজন রেকর্ডও গড়েছে আফগানরা। গায়ানার প্রভিডেন্স স্টেডিয়ামে গতকাল ১৬০ রানের টার্গেটে ব্যাট করতে নেমে আফগান বোলারদের তোপের মুখে বিপর্যয়ে পরে কিউই ব্যাটিং লাইন। আফগান বোলারদের সামনে দাঁড়াতে পারেননি কোনো কিউই ব্যাটার। ফজলহক ফারুকি ও রশিদ খান গুঁড়িয়ে দেন নিউজিল্যান্ডের ব্যাটিং লাইন। ১৫ ওভার ২ বলে মাত্র ৭৫ রানে অলআউট হয় নিউজিল্যান্ড। দলের পক্ষে গেøন ফিলিপস করে সর্বোচ্চ ১৮ বলে ১৮ রান। আফগানদের পক্ষে ফারুকি ও রশিদ নেন ৪টি করে উইকেট।

গতকাল টস হেরে প্রথমে ব্যাট করতে নামা আফগানিস্তানকে উড়ন্ত সূচনা এনে দেন দুই ওপেনার রহমানউল্লাহ গুরবাজ ও ইব্রাহিম জাদরান। ৮৭ বলে ১০৩ রানের জুটি গড়েন তারা। উগান্ডার বিপক্ষেও ৮৮ বলে ১৫৪ রানের জুটি গড়েছিলেন গুরবাজ ও ইব্রাহিম। ১৫তম ওভারে নিউজিল্যান্ডের পেসার ম্যাট হেনরির বলে আউট হন তিনটি চার ও দুটি ছক্কায় ৪১ বলে ৪৪ রান করা ইব্রাহিম। ইব্রাহিম ফিরলেও দলের রানের চাকা সচল রেখে টি-টোয়েন্টিতে নবম হাফ-সেঞ্চুরি তুলে নেন গুরবাজ। ইনিংসের শেষ ওভারে আউট হওয়ার আগে ৫৬ বল খেলে পাঁচটি করে চার-ছক্কায় ৮০ রান তুলে নেন তিনি।

গুরবাজের দায়িত্বশীল ইনিংসের সুবাদে ২০ ওভারে ৬ উইকেটে ১৫৯ রানের সংগ্রহ পায় আফগানিস্তান। নিউজিল্যান্ডের বোল্ট-হেনরি ২টি করে উইকেট নেন। ১৬০ রানের জবাবে খেলতে নেমে আফগানিস্তানের বোলিং তোপে অসহায় আত্মসমর্পণ করে নিউজিল্যান্ড। ১৫.২ ওভারে ৭৫ রানে অলআউট হয় কিউইরা। দলের হয়ে মাত্র দুই ব্যাটার দুই অঙ্কের কোটা স্পর্শ করতে সক্ষম হন। গেøন ফিলিপস ১৮ ও হেনরি ১২ রান করেন। আফগানিস্তানের ফারুকি ও অধিনায়ক রশিদ ১৭ রানে ৪টি করে উইকেট নেন। টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে অধিনায়ক হিসেবে সেরা বোলিংয়ের নজির গড়েছেন রশিদ। ম্যাচসেরা হয়েছেন গুরবাজ।

নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে জয়কে নিজেদের অন্যতম সেরা সাফল্য বলে মনে করছেন আফগান অধিনায়ক রশিদ খান। বিশ্বকাপ শুরুর আগে এক সাক্ষাৎকারে রশিদ খান বলেছিলেন, একটু শান্ত থাকলে যে কোনো দলকে হারাতে পারে আফগানিস্তান।

সেই কথারই প্রমাণ দিয়েছেন গতকাল। নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে নিজেদের অনবদ্য পারফরম্যান্স নিয়ে ম্যাচ-পরবর্তী সংবাদ সম্মেলনে রশিদ বলেছেন, ‘টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটে এটা আমাদের সেরা পারফরম্যান্সগুলোর একটি, বিশেষ করে নিউজিল্যান্ডের মতো বড় দলের বিপক্ষে। দারুণ দলীয় প্রচেষ্টা, শুধু বোলিং নয়, ব্যাটিংও। উইকেট একদমই সহজ ছিল না। ইব্রাহিম এবং গুরবাজ দারুণভাবে শুরু করেছিল। আফগানিস্তানের জন্য এটি দারুণ একটি জয়। এই দলের নেতৃত্ব দেয়া এবং নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে জেতাটা সম্মানের ব্যাপার।’ এদিকে ম্যাচ শেষে নিজেদের পারফরম্যান্স নিয়ে হতাশা প্রকাশ করেছেন নিউজিল্যান্ড অধিনায়ক কেন উইলিয়মাসন, ‘আফগানিস্তানকে অভিনন্দন। তারা দারুণ খেলেছে। এ ধরনের কঠিন উইকেটে তারা দারুণভাবে ব্যাটিং করেছে। আমাদের পারফরম্যান্স মোটেই যথেষ্ট ছিল না।’ এর আগে টি-টোয়েন্টিতে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে কখনোই জয় পায়নি আফগানিস্তান। পঞ্চমবারের চেষ্টায় এবার সফল তারা। আর অধরা সেই জয়টা এসেছে বিশ্বকাপের বড় মঞ্চে।

সাবস্ক্রাইব ও অনুসরণ করুন

সম্পাদক : শ্যামল দত্ত

প্রকাশক : সাবের হোসেন চৌধুরী

অনুসরণ করুন

BK Family App