×

খেলা

দিলারার রেকর্ডে বড় জয় আবাহনীর

Icon

প্রকাশ: ০৮ জুন ২০২৪, ১২:০০ এএম

প্রিন্ট সংস্করণ

দিলারার রেকর্ডে বড় জয় আবাহনীর

কাগজ প্রতিবেদক : ঢাকা প্রিমিয়ার লিগ নারী ক্রিকেটে গতকাল বিকেএসপির চার নম্বর মাঠে জাবিদ আহসান সোহেল ক্রিকেট ক্লাবের বিপক্ষে দ্রুততম সেঞ্চুরির রেকর্ড গড়েছেন আবাহনীর দিলারা আক্তার। ৫৪ বলে ৫ ছয় ও ১৩ চারে ১০৪ রান সংগ্রহ করেন দিলারা। মেয়েদের লিগে এটিই এখন দ্রুততম সেঞ্চুরির রেকর্ড। আগের রেকর্ডটি ছিল মোহামেডানের জেসিয়া আক্তারের। ২০২২-২৩ মৌসুমে কলাবাগান ক্রীড়াচক্রের বিপক্ষে ৬৬ বলে শতক করেছিলেন। গতকাল সেঞ্চুরি পেয়েছেন স্বর্ণা আক্তারও। ৯০ বলে ১১৮ রানের ইনিংস খেলেন তিনি। তাতে আবাহনীর স্কোর দাঁড়ায় ৬ উইকেটে ৪০৪। মেয়েদের লিগ তো বটেই, দেশের ঘরোয়া ক্রিকেটেও পঞ্চাশ ওভারের সংস্করণে কোনো দলের ৪০০ করার প্রথম ঘটনা এটি। চলতি লিগেই গুলশান ইয়ুথ ক্লাবের বিপক্ষে ৩৯২ রান করেছিল মোহামেডান স্পোর্টিং ক্লাব। দুই সপ্তাহ পেরোতেই সেটি টপকে রেকর্ড গড়ল আবাহনী।

এমন দিনে যে আবাহনী বড় জয় পাবে তা মোটামুটি নিশ্চিতই ছিল। তবে সেই জয়টা যে এত বড় হবে এমনটা বোধহয় আশা করেনি আবাহনীও। আবাহনীর বিপক্ষে ২২.৪ ওভার ব্যাট করে মাত্র ৩৬ রানে অলআউট হয়ে যায় জাবিদ আহসান সোহেল ক্রিকেট ক্লাব। আর তাতে আবাহনী জয় পেয়েছে ৩৬৮ রানের বিশাল ব্যবধানে। দিনের আরেক ম্যাচে বিকেএসপির তিন নম্বর মাঠে কলাবাগান ক্রীড়াচক্রকে ১০ উইকেটে হারিয়েছে পয়েন্ট টেবিলের শীর্ষে থাকা মোহামেডান। শুরুতে ব্যাট করে ১৬২ রানে অলআউট হয়ে যায় কলাবাগান। ওই রান ২২ ওভার ২ বলে কোনো উইকেট না হারিয়ে তাড়া করে মোহামেডান। একই দিনে সিটি ক্লাবের মেয়েদের ৮ উইকেটে হারিয়েছে বাংলাদেশ ক্রীড়া শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান। শুরুতে ব্যাট করে ১১৯ রানে অলআউট হয় সিটি ক্লাব। ওই রান তাড়া করতে নেমে ২৬ ওভার ২ বলে ১২০ রান করে বিকেএসপি।

বিকেএসপির চার নম্বর মাঠে গতকাল সপ্তম রাউন্ডের ম্যাচে টস জিতে ব্যাটিংয়ে নেমে শুরু থেকেই আগ্রাসী ব্যাটিং করেন আবাহনীর দুই ওপেনার দিলারা আক্তার ও শারমিন সুলতানা। উদ্বোধনী জুটিতে মাত্র ৯৩ বলে ১৩৮ রান যোগ করেন তারা দুজন। শারমিন ৪০ বলে ৩৮ রান করে সাজঘরে ফেরেন। ৫৩ বলে সেঞ্চুরি পূর্ণ করেন দিলারা।

মেয়েদের লিগে এটিই সবচেয়ে কম বলে সেঞ্চুরির রেকর্ড। গত আসরে কলাবাগান ক্রীড়াচক্রের বিপক্ষে ৬৬ বলে তিন অঙ্ক ছুঁয়েছিলেন মোহামেডানের ভারতীয় ব্যাটার জেসিয়া আক্তার। এরপর দিলারাও বেশিক্ষণ টিকতে পারেননি। ৫৮ বলে ১০৪ রান করেন তিনি। এরপর রুবাইয়া হায়দার ঝিলিকও দ্রুত আউট হয়ে যান। চতুর্থ উইকেটে ভারতের প্রাত্থুসা কুমারকে নিয়ে ১১৫ বলে ১৫২ রানের জুটি গড়ে তোলেন স্বর্ণা। যেখানে স্বর্ণাই ছিলেন অগ্রণী। দলকে ৩০০ পার করিয়ে ৫০ বলে ৪৭ রান করে আউট হন প্রাত্থুসা। ১০ চার ও ৪ ছক্কায় ৭০ বলে সেঞ্চুরি করেন স্বর্ণা। ৪৪তম ওভারে সাজঘরে ফেরার আগে ৯০ বলে ১০ চার ও ৫ ছক্কায় ১১৮ রানের ইনিংস খেলেন এই অলরাউন্ডার। শেষ দিকে নাহিদা আক্তার ২৩ বলে ৩৫ ও অধিনায়ক জাহানারা আলম ১৬ বলে ২৯ রানের ইনিংস খেলে দলকে ৪০০ পার করান।

অবিচ্ছিন্ন সপ্তম উইকেট জুটিতে মাত্র ২৪ বলে ৫২ রান যোগ করেন তারা। রান তাড়ায় শুরু থেকেই নিয়মিত উইকেট হারায় জাবিদ আহসান সোহেল ক্রিকেট একাডেমি। কোনো ব্যাটারই দুই অঙ্ক ছুঁতে পারেননি। ২২.৪ ওভারের মধ্যে ১২টিই মেইডেন করেন আবাহনীর বোলাররা। পাঁচ বোলারের সবাই নেন ২টি করে উইকেট। ৬ ওভারে ৪ মেইডেনসহ মাত্র ৩ রান দেন শরিফা। ৫ ওভারে ৩ মেইডেনসহ ৪ রান খরচ সানজিদা আক্তার মেঘলার। সেঞ্চুরির পর ৫ রানে ২ উইকেট নিয়ে ম্যাচসেরা নির্বাচিত হন স্বর্ণা। সাত ম্যাচে আবাহনীর এটি ষষ্ঠ জয়। পয়েন্ট টেবিলের দুই নম্বরে উঠে এসেছে তারা। এখনো প্রথম জয়ের খোঁজে নবাগত জাবিদ আহসান সোহেল ক্রিকেট ক্লাব।

সাত ম্যাচের সবকটি জিতে শীর্ষে মোহামেডান। এদিকে বিকেএসপির তিন নম্বর মাঠে টস হেরে ব্যাট করতে নামা কলাবাগানের হয়ে ১৩৭ বল খেলে সর্বোচ্চ ৬৭ রান করেন ওপেনার বিথি পারভীন। ৬৬ বলে ৪১ রান আসে তমালিকা সুমনার ব্যাটে। মোহামেডানের হয়ে এক ওভার করেই তিন উইকেট পান ফাতেমা আক্তার। দুটি করে উইকেট পান সালমা খাতুন ও রুমানা আহমেদ। রান তাড়ায় নেমে মোহামেডানকে দুই ওপেনারই ম্যাচ জিতিয়ে দেন মোহামেডানকে। ১৪ চার ও ৩ ছক্কায় ৭০ বলে ১০১ রান করেন জেসিয়া আক্তার। ৬৪ বলে ৫৫ রান আসে মুর্শিদা খাতুন হ্যাপির ব্যাটে।

সাবস্ক্রাইব ও অনুসরণ করুন

সম্পাদক : শ্যামল দত্ত

প্রকাশক : সাবের হোসেন চৌধুরী

অনুসরণ করুন

BK Family App