×

খেলা

হামজাকে নিয়ে ভিন্ন কথা সালাউদ্দিনের

Icon

প্রকাশ: ০৮ জুন ২০২৪, ১২:০০ এএম

প্রিন্ট সংস্করণ

কাগজ প্রতিবেদক : বাংলাদেশের জার্সিতে হামজা চৌধুরীর খেলার কথা শোনা যাচ্ছে অনেকদিন ধরেই। হামজা চৌধুরী বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত ইংলিশ ফুটবলার। ইতোমধ্যেই বাংলাদেশের হয়ে খেলতে বাংলাদেশি পাসপোর্টের আবেদন করেছেন তিনি। বাফুফের সাধারণ সম্পাদক ইমরান হোসেন তুষার ইতোমধ্যেই গণমাধ্যমকে জানিয়েছেন এ তথ্য। এছাড়া হামজার পাসপোর্ট করতে সব ধরনের যোগাযোগ করা হচ্ছে বলে জানিয়েছেন বাফুফে সহসভাপতি কাজী নাবিলও।

পুরো দেশের ফুটবলে হামজা এখন আলোচিত বিষয়। অথচ বাফুফে সভাপতি কাজী সালাউদ্দিন বললেন উল্টো কথা। হামজা চৌধুরীর বাংলাদেশে আসার কথাকে রূপকথা বলে উড়িয়ে দিয়েছেন তিনি। বাংলাদেশের হয়ে খেলার ইচ্ছার কথা হামজা এখনো বাফুফে বসকে জানাননি বলে জানিয়েছেন সালাউদ্দিন। অন্যদিকে বাফুফে কর্তারা নিয়মিতই বলে যাচ্ছেন শিগগির বাংলাদেশের হয়ে খেলবেন লিস্টার সিটির তারকা ফুটবলার।

গতকাল বসুন্ধরা কিংস অ্যারেনায় বাংলাদেশ-অস্ট্রেলিয়া ম্যাচের পর সালাউদ্দিন বলেছেন, ‘আমি বলি, আপনারা যারা সংবাদ করছেন হামজাকে নিয়ে, হামজা আমার কাছে কখনোই বাংলাদেশের হয়ে খেলার কথা বলেননি। এটা শুধুই সংবাদপত্র এবং টেলিভিশনের তৈরি একটা মিথ (রূপকথা)। তাকে এসে বলতে দেন সে খেলবে, কী করতে হয় করে দিব।’

এছাড়া বাফুফে সভাপতি জানিয়েছেন হামজা চাইলেই খেলতে পারবেন লাল-সবুজের হয়ে। সেক্ষেত্রে তাকে সব ধরনের সুযোগ-সুবিধা দেয়া হবে। তিনি বলেন, ‘হামজা যদি খেলতে আসে তাকে আমরা স্বাগত জানাব। যা চায় তা-ই দিব। তবে সমস্যা হচ্ছে, হামজা কখনো এ কথা বলেনি। আপনারা বলছেন সে বাংলাদেশের হয়ে খেলতে চায়।’ যেখানে বাফুফে কর্তারা বলছেন তারা হামজাকে দ্রুত দলে আনার সর্বোচ্চ চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে। আগামী ফিফা প্রীতি ম্যাচের আগেই বাংলাদেশ জাতীয় দলে আনতে চান হামজাকে। সেখানে এই খবরকে গণমাধ্যমের তৈরি বলে উড়িয়ে দিলেন বাফুফে সভাপতি। তার এই সাংঘর্ষিক মন্তব্য বাফুফের ভেতরের কর্মকর্তাদের সমন্বয়কে আবারো প্রশ্নবিদ্ধ করেছে। প্রশ্ন ওঠে হামজা ইস্যুতে কে সত্যি বলছেন বাফুফে সভাপতি? নাকি সাধারণ সম্পাদক ইমরান হোসেন তুষার। এদিকে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে খেলার সময় মাঠে হ্যারি স্টারের সঙ্গে হামজাকে নিয়ে খুনশুটি করেছেন তপু। নিজের ফেসবুক পেজে তপু বলেছেন, ‘হ্যারি স্টারের সঙ্গে কথা হয়েছে। ও কিন্তু বল ছুঁতে পারেনি। অধিনায়ক জ্যাকসন ও স্টার মিলে একসময় আমাকে উত্ত্যক্ত করার চেষ্টা করেছে। আমি ওদের বলেছি, হামজা কিন্তু তোমার বন্ধু। তখনই একটু ঠাণ্ডা হয়েছে। স্টার আবার মজা করে বলেছে, তাহলে হামজাকে বলব বাংলাদেশের হয়ে যেন না খেলে! আমি আবার বলেছি, তুমি বললেই তো হবে না। হামজার মায়ের দেশ এটা। ও খেলবেই। তখন স্টার হেসে আমাকে জড়িয়ে ধরে পরিস্থিতি আরো স্বাভাবিক করে ফেলে।’

সাবস্ক্রাইব ও অনুসরণ করুন

সম্পাদক : শ্যামল দত্ত

প্রকাশক : সাবের হোসেন চৌধুরী

অনুসরণ করুন

BK Family App