×

খেলা

ইংল্যান্ডের কাছে হেরে স্বপ্নভঙ্গ বাবরদের

Icon

প্রকাশ: ০১ জুন ২০২৪, ১২:০০ এএম

প্রিন্ট সংস্করণ

কাগজ ডেস্ক : বিশ্বকাপের আগে অংশগ্রহণকারী দলগুলো নিজেদের প্রস্তুতিকে ঝালিয়ে নিতে যখন প্রস্তুতি ম্যাচ খেলছে তখন ইংল্যান্ডের সঙ্গে চার ম্যাচের টি-টোয়েন্টি সিরিজ আয়োজন করেছিল পাকিস্তান। তবে সমস্যার চক্রে ঘূর্ণায়মান পাকিস্তান দল ২-০ ব্যবধানে সিরিজ হাতছাড়া করেছে। আর তাতেই নিজেদের বিশ্বকাপ প্রস্তুতিতে চিড় ধরেছে ম্যান ইন গ্রিনদের। চার ম্যাচ টি-টোয়েন্টি সিরিজে আগের তিন ম্যাচের দুটি বৃষ্টির কারণে পরিত্যক্ত হয়। একটি জেতে ইংল্যান্ড। শেষ ম্যাচটি ছিল তাই ইংলিশদের সিরিজ জয়ের মিশন আর পাকিস্তানের সিরিজ বাঁচানোর। তবে শেষ রক্ষা হলো না পাকিস্তানের, চতুর্থ ও শেষ টি-টোয়েন্টি ম্যাচে ৭ উইকেট আর ২৭ বল হাতে রেখেই জয় তুলে নিয়েছে ইংল্যান্ড।

লন্ডনে টস হেরে প্রথমে ব্যাট করতে নেমে পাকিস্তানকে ৬ ওভারে ৫৯ রানের সূচনা এনে দেন দুই ওপেনার মোহাম্মদ রিজওয়ান ও বাবর আজম। ৫টি চার ও ১টি ছক্কায় ২২ বলে ৩৬ রান করেন বাবর। যার মাধ্যমে আন্তর্জাতিক টি-টোয়েন্টিতে বিরাট কোহলির পর দ্বিতীয় ব্যাটার হিসেবে ৪ হাজার রানের মাইলফলক স্পর্শ করেন এই ব্যাটার। বাবরকে শিকার করে পাকিস্তানের উদ্বোধনী জুটি ভাঙেন ইংল্যান্ডের পেসার জোফরা আর্চার। বাবর ফেরার পর ইংল্যান্ডের স্পিনার আদিল রশিদের শিকার হয়ে সাজঘরে ফেরেন ৩টি চারে ১৬ বলে ২২ রান করা রিজওয়ান। দলীয় ৬৫ রানে দুই ওপেনারের বিদায়ের পর ৮৬ রানে পঞ্চম উইকেট হারিয়ে চাপে পড়ে পাকিস্তান। ষষ্ঠ উইকেটে ২৩ বলে ৪০ রান তুলে দলকে চাপমুক্ত করেন উসমান খান ও ইফতিখার আহমেদ। ১৫তম ওভারে উসমান (৩৮) ও ১৮তম ওভারে ইফতিখার (২১) আউট হলে পাকিস্তানের বড় সংগ্রহের আশা শেষ হয়ে যায়। শেষ দিকে নাসিম শাহর ১৬ রানের সুবাদে ২০ ওভারে ৭ উইকেটে ১৫৭ অলআউট হয় পাকিস্তান। ইংল্যান্ডের রশিদ, লিভিংস্টোন ও উড ২টি করে উইকেট নেন।

১৫৮ রানের জবাবে ৩৮ বলে ৮২ রানের সূচনা পায় ইংল্যান্ড। ৬টি চার ও ২টি ছক্কায় ২৪ বলে ৪৫ রান করে পেসার হারিস রউফের বলে বিদায় নেন ওপেনার ফিল সল্ট। দলের রান ১শ পার করে রউফের দ্বিতীয় শিকার হন ৭টি চার ও ১টি ছক্কায় ২১ বলে ৩৯ রান করা আরেক ওপেনার ও অধিনায়ক জস বাটলার। সল্ট, বাটলারের পর রানের দেখা পেয়েছেন উইল জ্যাকস, জনি বেয়ারস্টো ও হ্যারি ব্রুকও। সব মিলিয়ে ইংল্যান্ডের প্রস্তুতিটা হয়েছে বেশ ভালোই। ২৭ রানে ২ উইকেট নিয়ে ম্যাচসেরা হন লেগ স্পিনার আদিল রশিদ। ম্যাচসেরার পুরস্কার নিতে এসে আরেকটি ট্রফি জয়ের আশার কথাই শুনিয়েছেন আইসিসি র?্যাঙ্কিংয়ের শীর্ষ এই বোলার। তিনি বলেন, ‘লক্ষ্য হচ্ছে সেখানে গিয়ে আরেকটি ট্রফি জেতা। সঠিক মানসিকতা থাকতে হবে, বাকিটা এমনিতেই হয়ে যাবে ইনশাআল্লাহ।’ এদিকে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে এমন সহজ ম্যাচ হারার পর সমালোচনার ঝড় উঠেছে পাকিস্তান ক্রিকেটে। নিজের ইউটিউব চ্যানেলে সাবেক পাক ব্যাটার রমিজ রাজ বলেছেন, ‘সবার আগে বলব, পরীক্ষা-নিরীক্ষার মনোভাব থেকে বেরিয়ে আসতে। সঠিক সমন্বয় নিয়ে মাঠে নামো এবং আল্লাহর দোহাই, দয়া করে স্ট্রাইক রেট ফোবিয়া থেকে বেরিয়ে এসো। কারণ, পাকিস্তানের ওই পর্যায়ের ক্রিকেটার নেই। স্ট্রাইক রেটের ওপর ভিত্তি করে দল গড়ার চেষ্টা করে আমরা সবকিছু নষ্ট করছি।’ অনেকে আবার দলের এমন হারের জন্য দুষছেন দলের উইকেটকিপার আজম খানকে। সিরিজের শেষ ম্যাচে ব্যাট করতে নেমে ৫ বল খেলে আজম খান আউট হয়েছেন ০ রানে। এরপর উইকেটের পেছনে দাঁড়িয়ে মিস করেছেন কয়েকটি সহজ ক্যাচ। ম্যাচ ডোবানোর জন্য মনে হয় এর চেয়ে বেশি কিছু লাগে না বলে মন্তব্য করেছেন পাকিস্তান ক্রিকেটের ভক্তরা।

সাবস্ক্রাইব ও অনুসরণ করুন

সম্পাদক : শ্যামল দত্ত

প্রকাশক : সাবের হোসেন চৌধুরী

অনুসরণ করুন

BK Family App