×

খেলা

টাইগারদের ব্যর্থতায় মুখ খুললেন শান্ত

Icon

প্রকাশ: ২৯ মে ২০২৪, ১২:০০ এএম

প্রিন্ট সংস্করণ

টাইগারদের ব্যর্থতায় মুখ খুললেন শান্ত

কাগজ প্রতিবেদক : আর মাত্র ২ দিন পর শুরু হতে যাচ্ছে বিশ্ব ক্রিকেটের সবচেয়ে বড় আসর টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের নবম আসর। এরই মধ্যে অংশগ্রহণকারী দলগুলো নিজেদের বিশ্বকাপ স্কোয়াড ঘোষণার পাশাপাশি নিবিড়ভাবে নিজেদের বিশ্বকাপ অভিযানের সফলতা-ব্যর্থতার হিসাব কষছে। এখনো পর্যন্ত টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের সব আসর খেলে আসলেও নক আউট পর্ব উতরে যেতে পারেনি টিম টাইগার। তাতে সবার কাছে একটাই প্রশ্ন ঘুরেফিরে এসেছে বারবার যে, বিশ্বকাপে টাইগাররা ব্যর্থ কোন কারণে? কোথায় ঘাটতি আছে তাদের? এবার সে প্রশ্নেগুলোর উত্তর দিয়েছেন টাইগার অধিনায়ক নাজমুল হোসেন শান্ত। তার দাবি ঘরের মাঠে ভালো উইকেটে খেলেন না টাইগাররা আর তাতেই রান রেট কম হয়।

চলতি বছরের ফেব্রুয়ারিতে মাত্র ২৫ বছর বয়সে বাংলাদেশের সব ফরম্যাটের অধিনায়কত্ব পান শান্ত। টি-টোয়েন্টিতে বড় স্কোর করতে না পারার জন্য ঘরের মাঠের উইকেটকে কাঠগড়ায় তুলেছেন তিনি। বার্তা সংস্থা এএফপিকে শান্ত বলেন, ‘প্রথমত আমাদের ভালো উইকেটে খেলতে হবে। অনেকেই এটাকে অজুহাত হিসেবে দেখতে পারেন। কিন্তু এটাই সত্যি আমরা ভালো উইকেটে খুব কম ম্যাচই খেলি’। বাংলাদেশের উইকেট লো স্কোরিং হিসেবেই পরিচিত। বাংলাদেশের বিশ্বকাপ দলে থাকা টপ অর্ডার ব্যাটারদের মধ্যে শুধু তাওহিদ হৃদয়েরই আন্তর্জাতিক টি-টোয়েন্টিতে ১৩০ এর ওপর স্ট্রাইক রেট আছে। দলের অন্যান্য ব্যাটারদেরও স্ট্রাইক রেট রাতারাতি পরিবর্তন সম্ভব নয় বলে জানান শান্ত, ‘ছয় মাসের মধ্যে সব কিছু বদলে ফেলা কঠিন। আমরা যদি ভালো উইকেটে এক-দুই বছর খেলতে থাকি, তাহলে স্ট্রাইক রেটের উন্নতি হবে’।

বিশ্বকাপের আগে প্রস্তুতি হিসেবে চলতি সপ্তাহে হিউস্টনে তিন ম্যাচের টি-টোয়েন্টি সিরিজে যুক্তরাষ্ট্রের কাছে ২-১ ব্যবধানে হেরে বড়সড় লজ্জা পায় বাংলাদেশ। তবে শান্ত বলেন, ‘আমরা কয়েকটি সিরিজ জিতেছি এবং বড় দলের বিপক্ষেও জিতেছি। দল আত্মবিশ্বাসী আছে। সম্প্রতি আমরা যে ম্যাচগুলো খেলেছি, বিশ্বকাপে যদি আমরা সেভাবে খেলতে পারি, আমরা যদি সঠিক সিদ্ধান্ত নিতে পারি ও আমাদের পরিকল্পনা বাস্তবায়ন করতে পারি, তাহলে ভালো কিছু করা সম্ভব’।

এদিকে এক বছরেরও বেশি সময় পর ঘরের মাঠে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে সিরিজ দিয়ে আন্তর্জাতিক টি-টোয়েন্টি খেলতে নামেন গত জানুয়ারিতে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হওয়া ৩৭ বছর বয়সি সাকিব আল হাসান। ৩৮ বছর বয়সি মাহমুুদউল্লাহ রিয়াদের সঙ্গে শেষ বিশ্বকাপে জ¦লে ওঠতে মরিয়া থাকবেন সাকিব। সে প্রসঙ্গে শান্ত বলেন, ‘অবশ্যই আমি চাই নিজেদের সেরা পারফরমেন্স দিয়ে বিশ্বকাপ খেলুক তারা’।

তিনি আরো বলেন, ‘তারা কখন নিজেদের ক্যারিয়ার শেষ করবে এটা তাদেরই সিদ্ধান্ত। একজন অধিনায়ক হিসেবে আমি চাই, তারা দলের সব খেলোয়াড়দের সঙ্গে তাদের অভিজ্ঞতাগুলো শেয়ার করুক’।

অন্যদিকে এবারের বিশ্বকাপ দিয়ে জাতীয় দলের জার্সিতে প্রথমবার বিশ্বকাপ খেলার সুযোগ পেয়েছেন জাকের আলী। বিশ্বকাপে নিজের স্বপ্ন ও লক্ষ্য নিয়ে গতকাল বিসিবিকে দেয়া ভিডিওতে জাকের বলেছেন, ‘দল হিসেবে আমি চাইব, আমরা প্রতিটা ম্যাচে ভালো পারফরম্যান্স করে দেখাতে এবং জিততে। নিজের দেশের জন্য বড় কিছু করার ইচ্ছা আছে। এই বিষয়টা সব সময় ভাবনায় কাজ করে। ইচ্ছা থাকবে, আগে যেসব জিনিস অর্জন করতে পারিনি, সেসব যেন এবার অর্জন করতে পারি’। নিজের ব্যক্তিগত পরিকল্পনা নিয়েও কথা বলেছেন জাকের, ‘যখন থেকে শুনলাম যে, আমি দলে আছি তখন থেকেই ম্যাচ বাই ম্যাচ দেখা শুরু করে দিয়েছি। কার সঙ্গে কীভাবে খেলতে হবে, কোন প্রতিপক্ষের সঙ্গে কী রকম কৌশল নিতে হবে, সেগুলো নিয়ে ভাবছি। সেভাবেই আগাচ্ছি’। বাংলাদেশ দলের নবীন সদস্যদের একজন জাকের। দলের সঙ্গে মানিয়ে নেয়া নিয়ে তিনি বলেন, ‘যেভাবে দলে আমাকে স্বাগত জানানো হয়েছে, সেটা আমার খুব ভালো লেগেছে। সেটা আসলেই বিশেষ কিছু ছিল’। জাতীয় দলে এবারের বিশেষ চমক লেগ স্পিনার রিশাদ হোসেন। শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ৩০ বলে ৩৫ রানের ইনিংস খেলে তাক লাগিয়ে দিয়েছেন সবাইকে। বিসিবিকে দেয়া ভিডিওতে গতকাল রিশাদ জানালেন নিজের পরিকল্পনার কথা। রিশাদ বলেছেন, ‘সব ব্যাটারই চায় বড় শট খেলতে। আমিও সেটিই চাই।

নিজের প্রতি আত্মবিশ্বাস রাখাটা খুব গুরুত্বপূর্ণ ছক্কা মারার ক্ষেত্রে। আমি চেষ্টা করি। বোলার বা অন্য কিছু দেখি না, বল দেখি শুধু। তবে তিনি চান সব বিভাগেই অবদান রাখতে। রিশাদ জানান, ‘দলে ব্যাটিং-বোলিং-ফিল্ডিং; তিন দিক থেকেই কিছু দেয়ার চেষ্টা করব। ক্রিকেট শুরু করেছি লেগ স্পিনার হিসেবে, কিন্তু জানতাম দেশকে কিছু দিতে হলে তিন বিভাগেই দিতে হবে। তিন দিক থেকে দিতে গেলে আমাকে ব্যাটিংয়ের দিক থেকেও একটু খাটতে হবে। চেষ্টা করেছি ব্যাটিংয়ে উন্নতি করতে’। এখন বিশ্বকাপ শেষেই বলে দিবে টাইগারদের সামর্থ্য কতটুকু।

সাবস্ক্রাইব ও অনুসরণ করুন

সম্পাদক : শ্যামল দত্ত

প্রকাশক : সাবের হোসেন চৌধুরী

অনুসরণ করুন

BK Family App