×
Icon ব্রেকিং
বরগুনায় সেতু ভেঙে বিয়ের মাইক্রোবাস খালে, নিহত ১০

খেলা

ইতিহাসের পাতায় লেভারকুসেন

Icon

প্রকাশ: ২০ মে ২০২৪, ১২:০০ এএম

প্রিন্ট সংস্করণ

ইতিহাসের পাতায় লেভারকুসেন

কাগজ ডেস্ক : জার্মান ফুটবলের ইতিহাসের পাতায় নাম লিখিয়েছে বায়ার লেভারকুসেন। জার্মানির বুন্দেসলিগায় প্রথম দল হিসেবে পুরো মৌসুমে অপরাজিত থেকে লিগ শেষ করার কৃতিত্ব অর্জন করেছে ক্লাবটি। গতকাল ঘরের মাঠে মৌসুমের শেষ ম্যাচে অসবার্গকে ২-১ গোলে পরাজিত করে সব মিলিয়ে ৫১ ম্যাচে অপরাজিত থেকে এবারের মৌসুম শেষ করল জাভি আলোনসোর দল। গতকালের ম্যাচে লেভারকুসেনের হয়ে জাল কাঁপিয়েছেন ভিক্টর বোনিফেস এবং রবার্ট আনদ্রিখ। শুধু নিজেদের দেশের লিগে নয়, ইউরোপীয় ফুটবলেও এখন পর্যন্ত অপরাজিত লেভারকুসেন। সব ধরনের প্রতিযোগিতা মিলিয়ে ৫১ ম্যাচে অপরাজিত থাকার রেকর্ড গড়েছে তারা। ইউরোপীয় ফুটবলের ইতিহাসে কোনো দল এক মৌসুমে টানা এত ম্যাচে অপরাজিত থাকতে পারেনি। এদিকে মেজর লিগ সকারের ম্যাচে গতকাল মেসির দল ১-০ গোলে হারিয়েছে ডিসি ইউনাইটেডকে। ইনজুরির কারণে গত বুধবার ওরলান্ডোর বিপক্ষে গোলশূন্য ড্রয়ের ম্যাচে মাঠে নামেননি মেসি। ডিসির বিপক্ষে অবশ্য শুরুর একাদশেই ছিলেন তিনি। কিন্তু দলের সেরা তারকা ফিরলেও আক্রমণভাগের দুর্বলতা বেশ ভুগিয়েছে ইন্টার মায়ামিকে। মেসির পাশাপাশি সুযোগ তৈরি করতে পারেননি উরুগুইয়ান স্ট্রাইকার লুইস সুয়ারেজও। বরং তার কারণে একাদশে জায়গা হারানো কাম্পানা বেঞ্চ থেকে নেমেই গোল করে দলের জয় নিশ্চিত করেছেন। বুন্দেসলিগা মৌসুমের শেষ ম্যাচে হফেনহাইমের কাছে ৪-২ গোলে হেরেছে বায়ার্ন মিউনিখ। মিউনিখের এই ম্যাচে হারটা ছিল বিষাদ ও অস্বস্তির। ম্যাচের ৬ মিনিটের মধ্যে ২-০ ব্যবধানে এগিয়ে গিয়েছিল তারা। অথচ এরপর পুরো ম্যাচে তো কোনো গোল পেলই না, উল্টো হফেনহাইমের কাছে ৪ গোল হজম করতে হয়েছে তাদের।

ইতিহাসের পর ইতিহাস গড়ে যাচ্ছে জার্মান ক্লাব বায়ার লেভারকুসেন। কিছুদিন আগেই মৌসুমের ৪৯ ম্যাচ অপরাজিত থাকতেই ইউরোপীয় ক্লাব ফুটবলে নতুন ইতিহাস লিখেছিল বুন্দেসলিগার ক্লাবটি। এরপর গতকাল সব ধরনের প্রতিযোগিতা মিলিয়ে ৫১ ম্যাচে অপরাজিত থাকার রেকর্ড গড়েছে তারা। এর আগে গত মাসে ইতিহাসে প্রথমবারের মতো বুন্দেসলিগা শিরোপা নিশ্চিত হয়ে গিয়েছিল লেভারকুসেনের। গতকাল ভিক্টর বোনিফেস এবং রবার্ট আনদ্রিখের প্রথমার্ধের গোলে লেভারকুসেনের জয় নিশ্চিত হয়। এ সপ্তাহে ইউরোপা লিগের ফাইনালে আটালান্টা ও জার্মান কাপের ফাইনালে ক্লেইসারস্লটার্মের মুখোমুখি হবে জাভি আলোনসোর দল। যে কারণে এখনো তাদের সামনে ট্রেবল জয়ের ভালো সম্ভাবনা রয়েছে। গতকাল ঘরের মাঠ বে এরেনাতে ১২ মিনিটেই লিড পায় লেভারকুসেন। আমিনে আডিলের শটে অসবার্গ গোলরক্ষক টমাস কুবেক ভুল করতে বসলে বোনিফেস পোস্টের খুব কাছে থেকে বল জালে জড়ান। মধ্যমাঠের তারকা আনদ্রিখ ২৭ মিনিটে ব্যবধান দ্বিগুণ করেন। অসবার্গের টিনএজার মার্ট কোমোর ৬২ মিনিটে দুর্দান্ত স্ট্রাইকে এক গোল পরিশোধ করেন। কিন্তু এই গোল লেভারকুসেনের দুর্দান্ত মৌসুমকে নষ্ট হতে দেয়নি। চলতি লিগ মৌসুমে ৩৩ ম্যাচে ২৮ জয় ও ৬ ড্র পেয়েছে লেভারকুসেন। ইউরোপের শীর্ষ পাঁচ লিগের ১২তম দল হিসেবে অজেয় থেকে মৌসুম শেষ করল জার্মান চ্যাম্পিয়নরা। ১৮৮৮-৮৯ মৌসুমে প্রথম এই কীর্তি গড়েছিল ইংল্যান্ডের প্রেস্টন নর্থ এন্ড। সেটি ছিল আবার ইংল্যান্ডের সর্বোচ্চ স্তরের প্রথম মৌসুম। এরপর ১৯১২-১৩ মৌসুমে একই কীর্তি গড়ে ইতালির শীর্ষ লিগের ক্লাব প্রো ভেরসেলি। তালিকায় পরের নামটিও ইতালির। ১৯২২-২৩ মৌসুমে অপরাজিত থেকে লিগ শেষ করে জেনোয়া। এছাড়া তালিকায় আছে- অ্যাতলেতিক বিলবাও (১৯২৯-৩০), রিয়াল মাদ্রিদ (১৯৩১-৩২), ড্রেসডনার (১৯৪২-৪৩), পেরুজিয়া (১৯৭৮-৭৯), বার্লিনা (১৯৮২-৮৩), এসি মিলান (১৯৯১-৯২), আর্সেনাল (২০০৩-০৪), জুভেন্টাস(২০১১-১২)। সবমিলিয়ে ইউরোপিয়ান শীর্ষ ৫ লিগে একবিংশ শতাব্দীর তৃতীয় দল হিসেবে এ কীর্তি গড়ল লেভারকুসেন। ৩৪ ম্যাচ শেষে তাদের পয়েন্ট ৯০। দ্বিতীয় স্থানে থাকা বায়ার্ন মিউনিখের চেয়ে ১৭ পয়েন্ট বেশি। গতকাল শেষদিনে হেরেছে গতবারের চ্যাম্পিয়ন বায়ার্ন।

গতকাল এমএলএসে মায়ামির চেজ স্টেডিয়ামে বৃষ্টিবিঘিœত হওয়ায় ম্যাচটি শুরু হয়েছিল দেরিতে। এরপর মাঝপথেও হানা দেয় বৃষ্টি। এর মাঝে কিছুটা খেই হারালেও, ম্যাচজুড়ে দাপট ছিল স্বাগতিক গোলাপি জার্সিধারীদের। তবুও ম্যাচটা হয়তো গোলশূন্য ড্রয়েই শেষ হবে বলে মনে হচ্ছিল। পরবর্তীতে যোগ করা সময়ের চতুর্থ মিনিটে চমক দেখান লিওনার্দো কাম্পানা। তার একমাত্র গোলেই ১-০ ব্যবধানে জয় নিয়ে মেসিবাহিনী মাঠ ছাড়ে। সার্জিও বুসকেটস প্রায় মাঝমাঠ থেকে দারুণভাবে বাড়ানো বল পেয়ে যান কাম্পানা। ইকুয়েডরের এই ফরোয়ার্ড প্রথমে বলটি নিয়ন্ত্রণ নিয়ে দুর্দান্ত ভলিতে জালে জড়িয়ে দেন। তাতেই নিশ্চিত পয়েন্ট খোয়াতে যাওয়া মায়ামি পূর্ণ তিন পয়েন্ট নিশ্চিত করে। এই জয়ে তারা ১৫ ম্যাচ শেষে এমএলএসের ইস্টার্ন কনফারেন্সের শীর্ষেই থাকল। ১৫ ম্যাচে ৯ জয় ৪ ড্র ও ২ হারে মায়ামির পয়েন্ট এখন ৩১।

সাবস্ক্রাইব ও অনুসরণ করুন

সম্পাদক : শ্যামল দত্ত

প্রকাশক : সাবের হোসেন চৌধুরী

অনুসরণ করুন

BK Family App