×
Icon এইমাত্র
কমপ্লিট শাটডাউন কর্মসূচি চালিয়ে যাওয়ার ঘোষণা দিয়েছে কোটা আন্দোলনকারীরা বাংলাদেশ টেলিভিশনের মূল ভবনে আগুন দিয়েছে দুর্বৃত্তরা। বিটিভির সম্প্রচার বন্ধ। কোটা সংস্কার আন্দোলনে সারা দেশে এখন পর্যন্ত ১৯ জন নিহত কোটা ইস্যুতে আপিল বিভাগে শুনানি রবিবার: চেম্বার আদালতের আদেশ ছাত্রলীগের ওয়েবসাইট হ্যাক ‘লাশ-রক্ত মাড়িয়ে’ সংলাপে বসতে রাজি নন আন্দোলনকারীরা

খেলা

ঢাকা প্রিমিয়ার ডিভিশন নারী ক্রিকেট লিগ

বড় জয়ে শুভ সূচনা মোহামেডানের

Icon

প্রকাশ: ১৮ মে ২০২৪, ১২:০০ এএম

প্রিন্ট সংস্করণ

 বড় জয়ে শুভ সূচনা মোহামেডানের
কাগজ প্রতিবেদক : ঢাকা প্রিমিয়ার ডিভিশন নারী ক্রিকেট লিগে উদ্বোধনী ম্যাচেই বড় জয় পেয়েছে মোহামেডান স্পোর্টিং ক্লাব। গতকাল মোহামেডান প্রথম ম্যাচেই ২৫৪ রানে হারিয়েছে জাবিদ আহসান সোহেল ক্রিকেট ক্লাবকে। লিগের প্রথম দিনেই সেঞ্চুরির দেখা পেয়েছেন মোহামেডানের জাসিয়া আক্তার। বিকেএসপির এক নম্বর মাঠে গতকাল টসে জিতে আগে ব্যাট করতে নামেন মোহামেডান অধিনায়ক সালমা খাতুন। এই ম্যাচে জাসিয়া ৬৯ বলে ১০২ রানের বিধ্বংসী ইনিংস খেলেন। রুমানা আহমেদের ব্যাট থেকে এসেছে ইনিংসের দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ৪১ রান। মোহামেডান ৮ উইকেটে ৩০৫ রান সংগ্রহ করে। জবাবে জাবিদ আহসান সোহেল ক্রিকেট ক্লাব অলআউট হয়ে যায় মাত্র ৫১ রানে। এদিকে বিকেএসপির তিন নম্বর মাঠে আরেক নবাগত আনসার ও ভিডিপিকে ৮ উইকেটে হারিয়ে আসর শুরু করেছে রূপালী ব্যাংক ক্রীড়া পরিষদ। আনসারের দেয়া ২১২ রানের লক্ষ্য তাড়ায় নেমে তা রূপালী ব্যাংক পাড়ি দেয় ২১ বল হাতে রেখেই। ফারজানা হক পিংকি সর্বোচ্চ ৯৪ রান করে অপরাজিত থাকেন। লতা মন্ডল দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ৫৯ রান করেন। এছাড়া বিকেএসপির চার নম্বর মাঠে দিনের অপর ম্যাচে সিটি ক্লাবকে ৬৫ রানে হারিয়েছে কলাবাগান ক্রীড়া চক্র। আগে ব্যাট করে কলাবাগান ১৮৮ রান সংগ্রহ করেছিল। দলের পক্ষে সর্বোচ্চ ৫২ রান করে ফাতেমা তুজ জোহরা। সিটি ক্লাবের হয়ে ফেরদৌসি সর্বোচ্চ ৪ উইকেট শিকার করেন। নারী প্রিমিয়ার লিগের পর্দা ওঠেছে গতকাল। বিকেএসপির তিন মাঠে হচ্ছে খেলাগুলো। প্রথম দিনে জয় পেয়েছে গত আসরের চ্যাম্পিয়ন রূপালী ব্যাংক, মোহামেডান স্পোর্টিং ক্লাব, কলাবাগান ক্রীড়া চক্র। প্রথম দিনে সেঞ্চুরি করেছেন মোহামেডানের জাসিয়া আক্তার, পাঁচ উইকেট নিয়েছেন একই ক্লাবের সাবিকুন নাহার। বিকেএসপির এক নম্বর মাঠে বড় জয় পেয়েছে মোহামেডান স্পোর্টিং ক্লাব। ২৫৪ রানের ব্যবধানে তারা হারিয়েছে জাবিদ আহসান সোহেল ক্রিকেট ক্লাবকে। ম্যাচে শুরুতে ব্যাট করে ৮ উইকেট হারিয়ে ৩০৫ রান করে মোহামেডান। রান তাড়ায় নেমে ৫১ রানে অলআউট হয়ে যায় জাবিদ আহসান ক্রিকেট ক্লাব। মোহামেডানের হয়ে এ ম্যাচে সেঞ্চুরি হাঁকান ভারতের নারী ক্রিকেটার জাসিয়া আক্তার। ১৬ চার ও ৩ ছক্কার ইনিংসে ৬৯ বলে ১০২ রান করে নীলা ইসলামের বলে তার হাতেই ক্যাচ দিয়ে আউট হন জাসিয়া। দলটির পক্ষে ৪৬ বলে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ৪১ রান আসে রুমানা আহমেদের ব্যাটে। জাবিদ আহসান ক্রিকেট ক্লাবের হয়ে ১০ ওভারে ৪৯ রান দিয়ে তিন উইকেট নেন নীলা ইসলাম। রান তাড়ায় নেমে জাবিদ আহসানের হয়ে তিনজনই শুধু দুই অঙ্কে পৌঁছাতে পারেন। দুই ওপেনারের মধ্যে মণিকা আক্তার ২৬ বলে ১১ ও এশা রহমান ২৪ বলে ১০ রান করেন। ২৩ বল খেলে সর্বোচ্চ ১৭ রান করেন মুর্শিদা নাজনীন। মোহামেডানের হয়ে ৩ ওভারে ৪ রান দিয়ে পাঁচ উইকেট পান সাবিকুন নাহার। লিগের উদ্বোধনী দিনে বিকেএসপির দুই নম্বর মাঠে বাংলাদেশ আনসার ও ভিডিপিকে ৮ উইকেটে হারিয়েছে বর্তমান চ্যাম্পিয়ন রূপালী ব্যাংক ক্রীড়া পরিষদ। শুরুতে ব্যাট করে ৯ উইকেট হারিয়ে ২১১ রান করে বাংলাদেশ আনসার। ওই রান ৪৬ ওভার ৩ বলে তাড়া করে রূপালী ব্যাংক। আগে ব্যাট করা আনসারের সর্বোচ্চ রান আসে সুলতানার ব্যাটে। ৪ বাউন্ডারি ও ৩ ছক্কায় ৮৮ বলে ৭৬ রান করেন সুলতানা। এছাড়া ৬৬ বলে ৩৬ রান আসে আরবিন তানির ব্যাটে। রূপালী ব্যাংকের হয়ে ৮ ওভারে ৩২ রান দিয়ে ৩ উইকেট নেন পূজা চক্রবর্তী। রান তাড়ায় নেমে খুব একটা কষ্ট করতে হয়নি রূপালী ব্যাংককে। ১২৩ বলে ৯৪ রান করে অপরাজিত থাকেন ফারজানা হক পিংকি। ৮৫ বলে ৫৯ রান করে রিটায়ার্ড হার্ট হন লতা মণ্ডল। ৩৭ বলে ৩৬ রান করে অপরাজিত থেকে দলের জয় নিশ্চিত করে মাঠ ছাড়েন অধিনায়ক নিগার সুলতানা জ্যোতি। বিকেএসপির চার নম্বর মাঠে কলাবাগান ক্রীড়া চক্র ৬৫ রানে জয় পেয়েছে সিটি ক্লাবের বিপক্ষে। এই ম্যাচে শুরুতে ব্যাট করে ১৮৮ রানে অলআউট হয়ে যায় কলাবাগান। ওই রান তাড়া করতে নেমে ১২৩ রানে অলআউট হয় সিটি ক্লাব। কলাবাগানের হয়ে ৭০ বলে সর্বোচ্চ ৫২ রান আসে ওপেনার ফাতেমা তুজ জোহরার ব্যাটে। ৬২ বলে ৩১ রান করেন বিথী পারভিন। সিটি ক্লাবের হয়ে ১০ ওভারে ৩০ রান দিয়ে চার উইকেট নেন ফেরদৌসি। রান তাড়ায় নেমে একদমই সুবিধা করতে পারেনি সিটি ক্লাব। দলটির পক্ষে সর্বোচ্চ ৩৮ বলে ৩৪ রান আসে মিষ্টি রানি সাহার ব্যাটে। ৬৩ বলে ৩২ রান করেন মিশু খান, এছাড়া ১৮ রান করেন কামরুন নাহার। এই তিনজনের বাইরে আর কোনো ব্যাটারই দুই অঙ্ক ছুঁতে পারেননি। কলাবাগানের হয়ে ৯ ওভারে ৩১ রান দিয়ে চার উইকেট নেন মাহারুন নেসা জয়া।

সাবস্ক্রাইব ও অনুসরণ করুন

সম্পাদক : শ্যামল দত্ত

প্রকাশক : সাবের হোসেন চৌধুরী

অনুসরণ করুন

BK Family App