×

খেলা

বিড়ম্বনায় হতাশ হামজা

Icon

প্রকাশ: ১৮ মে ২০২৪, ১২:০০ এএম

প্রিন্ট সংস্করণ

কাগজ প্রতিবেদক : অনেক দিন ধরে গুঞ্জন ছিল বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত ফুটবলার হামজা চৌধুরী বাংলাদেশের হয়ে লাল-সবুজ জার্সিতে খেলবেন। এরই মধ্যে বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশনের সবুজ সংকেতে সেই গুঞ্জন সম্ভাবনায় রূপ নিতে শুরু করেছে। দেশের জার্সিতে খেলার প্রাথমিক শর্ত হিসেবে বাংলাদেশি পাসপোর্ট ইস্যু করার জন্য গত মঙ্গলবার মায়ের সঙ্গে লন্ডনে বাংলাদেশি দূতাবাসে গিয়েছিলেন হামজা চৌধুরী। তবে সেখানে পাসপোর্ট করতে গিয়ে বিড়ম্বনায় পড়তে হয়েছে তাকে। হামজার ঘনিষ্ঠ সূত্রে জানা গেছে, বিড়ম্বনার শিকার হওয়ায় কিছুটা ক্ষুদ্ধ হয়ে দূতাবাস ত্যাগ করেন হামজা ও তার মা। এরই মাধ্যে বিয়টি নিয়ে বাফুফেকে অবগত করেছেন তিনি। অনলাইনে পাসপোর্টের আবেদন করে প্রয়োজনীয় ডকুমেন্টসসহ মাকে নিয়ে হাইকমিশনে গিয়েছিলেন হামজা। তবে তিনি ভিআইপি ট্রিটমেন্ট পাননি। একজন সাধারণ নাগরিকের মতো তার সঙ্গে আচরণ করা হয়েছে বলে জানা গেছে। হামজার মানের একজন ফুটবলার বাংলাদেশে খেলতে চাইছেন, তার জন্য সব কিছু সহজই তো হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু তার উল্টোটাই হলো। এরই মধ্যে এ বিষয়টি নিয়ে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া দেখা গেছে ফুটবলপ্রেমীদের। এ বিষয়ে কথা বলেছেন বাফুফের অন্যতম সহসভাপতি ও জাতীয় দল কমিটির চেয়ারম্যান কাজী নাবিল আহমেদ। যিনি পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়-সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সাবেক সদস্য। তিনি লন্ডন হাইকমিশনে হামজার পাসপোর্ট সহজ ও দ্রুত সময়ে করার ব্যাপারে কথা বলেছেন। তিনি বরেছেন, ‘বাফুফে হামজার পরিবার ও লন্ডন দূতাবাস দুই পক্ষের সঙ্গে যোগাযোগ রাখছে। এখানে বাফুফের সরাসরি কিছু করার নেই। তবে আমরা উভয় পক্ষের সঙ্গে সমন্বয় করছি। হাইকমিশনকে হামজার বিষয়টি গুরুত্ব সহকারে অনুরোধ করা হয়েছে। তারা এটি বিবেচনা করে সামনের সপ্তাহে হামজার জন্য বিশেষ সূচি রাখছে’। অন্যদিকে হামজা আগামী সপ্তাহে পরিবারের সঙ্গে তুরস্কে বেড়াতে যাওয়ায় তার পক্ষে আবারো দূতাবাসে যাওয়া সম্ভব হবে কিনা তা নিয়ে শঙ্কা তৈরি হয়েছে। এছাড়াও শুরুতেই এত বিড়ম্বনার মধ্যে পড়তে হওয়ায় লাল-সবুজ জার্সিতে তার খেলাও নিয়ে শঙ্কা দেখা দিয়েছে তার পরিবারে। হামজা বাংলাদেশি পাসপোর্ট পেলে বাফুফে ইংল্যান্ড ফুটবল ফেডারেশনের কাছে ছাড়পত্র চাইবে। কারণ ইংল্যান্ড যুব দলের হয়ে খেলেছেন তিনি। ইংলিশ ফেডারেশনের ছাড়পত্র পাওয়ার পর বাফুফেকে ফিফায় আবেদন করতে হবে। ফিফার প্লেয়ার্স স্ট্যাটাস কমিটি সবুজ সংকেত দিলেই বাংলাদেশের জার্সি পরে খেলতে আর কোনো বাধা থাকবে না। বাংলাদেশ জাতীয় ফুটবল দলের বর্তমান অধিনায়ক জামাল ভূঁইয়া ও ডিফেন্ডার তারিক কাজী বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত প্রবাসী ফুটবলার। তারাও একইভাবে নিয়ম মেনে বাংলাদেশ দলে খেলছেন। অন্যদিকে বাংলাদেশ জাতীয় ফুটবল দলের পরবর্তী সূচি ৬ ও ১১ জুন বিশ্বকাপ ও এশিয়ান কাপ বাছাই। সেই বাছাইয়ে হামজার খেলার কোনো সম্ভাবনাই নেই। পাসপোর্ট ও অন্যান্য আনুষ্ঠানিকতা ৩ মাসের মধ্যে সম্পন্ন হলে সেপ্টেম্বর-অক্টোবরে ফিফা উইন্ডোতে ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগ খেলা হামজা বাংলাদেশের হয়ে খেলার বৈধতা অর্জন করতে পারেন। উল্লেখ্য, হামজার মা বাংলাদেশি ও বাবা গ্রেনাডিয়ান। ইংল্যান্ডের লাউগবার্গে ১৯৯৭ সালের ১ অক্টোবর তার জন্ম। ২০১৮-১৯ সালে তিনি ইংল্যান্ড অনূর্ধ্ব-২১ দলের হয়ে সাতটি ম্যাচও খেলেছেন। ইংল্যান্ডের এই প্রবাসী ফুটবলার বাংলাদেশে খেলার আগ্রহ প্রকাশ করেছিলেন দুই বছর আগে। এরই পরিপ্রেক্ষিতে বাফুফে হামজার ক্লাব লিস্টার সিটিকে চিঠিও দিয়েছিল। পরে অবশ্য বিষয়টি নিয়ে আর কোনো অগ্রগতি দেখা যায়নি। নতুন করে সাম্প্রতিক সময়ে হামজাকে নিয়ে বাংলাদেশের তোড়জোড় ?শুরু হয়। প্রিমিয়ার লিগে হামজার অভিষেক হয় ২০১৫ সালে, সে সময় থেকে তিনি লিস্টার সিটিতে আছেন।

সাবস্ক্রাইব ও অনুসরণ করুন

সম্পাদক : শ্যামল দত্ত

প্রকাশক : সাবের হোসেন চৌধুরী

অনুসরণ করুন

BK Family App