×

খেলা

বিশ্বকাপের আগেই বাংলাদেশ ভারত ম্যাচ

Icon

প্রকাশ: ১৭ মে ২০২৪, ১২:০০ এএম

প্রিন্ট সংস্করণ

বিশ্বকাপের আগেই বাংলাদেশ ভারত ম্যাচ
কাগজ প্রতিবেদক : নিউইয়র্কের আইজেনহাওয়ার পার্কের মাঠ এখন টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের জন্য পুরোপুরি প্রস্তুত। যাকে বলা হচ্ছে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটের প্রথম মডিউলার স্টেডিয়াম। নাসাউ ক্রিকেট স্টেডিয়ামের দর্শক ধারণক্ষমতা ৩৪ হাজার। আধুনিক এই স্টেডিয়াম আনুষ্ঠানিকভাবে উদ্বোধন হয়েছে গত বুধবার। যার উদ্বোধন করেছেন বিশ্বের দ্রুততম মানব ও টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের অ্যাম্বাসেডর উসাইন বোল্ট। এই মাঠেই আগামী ১ জুন ভারতের বিপক্ষে বিশ্বকাপের অফিশিয়াল প্রস্তুতি ম্যাচ খেলবে টাইগাররা। বাংলাদেশ সময় রাত সাড়ে ৮টায় শুরু হবে প্রস্তুতি ম্যাচটি। বিশ্বকাপের আগে দুই দলেরই একমাত্র প্রস্তুতি ম্যাচ হতে পারে এটি। আইসিসির প্রস্তাবিত সূচি অনুযায়ী ২৮ মে ডালাসে যুক্তরাষ্ট্রের বিপক্ষে বাংলাদেশের আরেকটি প্রস্তুতি ম্যাচ রাখা আছে। তবে বিসিবির আপত্তিতে তা না হওয়ার সম্ভাবনাই বেশি বলে জানা গেছে। নাসাউ ক্রিকেট স্টেডিয়ামের দর্শক ধারণক্ষমতা ৩৪ হাজার। নিউইয়র্কের মাঠটিতে দুটি আন্তর্জাতিক দলের মধ্যে প্রথম ম্যাচ হবে সেটি। এ মাঠে আগামী ১০ জুন দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে এখানেই বিশ্বকাপের মূল টুর্নামেন্টের ম্যাচও খেলবে বাংলাদেশ। নিউইয়র্কের স্টেডিয়ামটিকে বলা হচ্ছে ক্রিকেটের প্রথম ‘মডিউলার’ স্টেডিয়াম। সাধারণত স্টিল ও অ্যালুমিনিয়াম দিয়ে তৈরি এমন স্থাপনাকে চাইলে এক জায়গা থেকে আরেক জায়গাতেও নিয়ে যাওয়া যায়। কার্যত এটি একেবারে স্থায়ী স্থাপনা নয়। ফলে তৈরি করতেও তুলনামূলক অনেক কম সময় লাগে। নিউইয়র্ক শহরের পূর্বে প্রায় ২৫ মাইল বা ৪০.২ কিলোমিটার দূরে এ ভেন্যুর অবস্থান। এবারের টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের আয়োজক যুক্তরাষ্ট্র ও ওয়েস্ট ইন্ডিজ। আমেরিকার মাটিতে অনুষ্ঠিত হবে ১৬টি ম্যাচ। এর ৮টিই হওয়ার কথা রয়েছে নিউইয়র্কের নাসাউ ক্রিকেট স্টেডিয়ামে। নাসাউ ক্রিকেট স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত হতে যাওয়া ভারত-পাকিস্তান ম্যাচের সব টিকেট বিক্রি হয়ে গেছে। বিশেষজ্ঞদের আশা কানায় কানায় পূর্ণ থাকবে এই স্টেডিয়াম। যার অবকাঠামোর সঙ্গে মিল রয়েছে লাস ভেগাসের ফর্মুলা ওয়ান রেসিং কারের সার্কিটের সঙ্গে। পাশাপাশি এই মাঠে বসানো হয়েছে ড্রপ-ইন পিচ। এই পিচগুলো তৈরি হয়েছে ফ্লোরিডা শহরে। এই পিচে স্বাভাবিক ঘাসের সঙ্গে পাঁচ শতাংশ সিন্থেটিক ফাইবার মেশানো হয়েছে। যাতে এর দৃঢ়তা বজায় থাকে। গত বুধবার আনুষ্ঠানিকভাবে এ স্টেডিয়ামের উদ্বোধন করেছেন বিশ্বের দ্রুততম মানব ও টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের শুভেচ্ছাদূত উসাইন বোল্ট। এখন আন্তর্জাতিক ক্রিকেট ম্যাচ আয়োজনের জন্য প্রস্তুত এটি। প্রায় শূন্য থেকে গত পাঁচ মাসে বানানো হলো এ স্টেডিয়াম। গত ফেব্রুয়ারির শুরুর দিকে এ স্টেডিয়ামের নির্মাণকাজ শুরু হয়। গত বছর ফর্মুলা ওয়ানের লাস ভেগাস গ্রাঁ প্রিঁর অস্থায়ী গ্র্যান্ডস্ট্যান্ডকেও এখানে স্থাপন করা হয়েছে। ব্যবহার করা হবে ড্রপ-ইন পিচ। অস্ট্রেলিয়ার অ্যাডিলেডে বানানো পিচগুলো জাহাজে করে ফ্লোরিডা, সেখান থেকে সড়কপথে নিউইয়র্কে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। মূল মাঠের পাশাপাশি অনুশীলনের জন্যও পিচ আনা হয়েছে। আইসিসির ইভেন্টের প্রধান ক্রিস টেটলি স¤প্রতি সাংবাদিকদের বলেছেন, ‘একটা পার্ককে আমরা বিশ্বমানের দেখতে একটি স্টেডিয়াম বানিয়েছি।’ আগামী ১ জুন শুরু হতে যাওয়া বিশ্বকাপের আগে নতুন এ ভেন্যুতে পরীক্ষামূলক ইভেন্ট আয়োজন করবে আইসিসি। দল ঘোষণার পর প্রতিটি দেশই তাদের বিশ্বকাপ জার্সি উন্মোচন করেছে। এক্ষেত্রে দল ঘোষণার মতোই কালক্ষেপণ করছে বাংলাদেশ। এখনো বিশ্বকাপের জার্সি উন্মোচন করেনি দেশের ক্রিকেটের নিয়ন্তা সংস্থা-বিসিবি। জানা গেছে, বৈশ্বিক এই টুর্নামেন্টের জার্সি উন্মোচনের ঘোষণা আসতে আরও দিন দুয়েক লাগতে পারে। এ প্রসঙ্গে গণমাধ্যমে বিসিবির মিডিয়া কমিটির চেয়ারম্যান তানভীর আহমেদ টিটুর ভাষ্য, ‘জার্সি উন্মোচন হবে, আলাপ-আলোচনা চলছে। দু-এক দিনের মধ্যে সিদ্ধান্ত জানিয়ে দেয়া হবে।’ উল্লেখ্য, আগামী ২ জুন স্বাগতিক যুক্তরাষ্ট্র ও কানাডার ম্যাচ দিয়ে বিশ্বকাপের পর্দা উঠলেও ৮ জুন বিশ্বমঞ্চের মিশনে মাঠে নামবে বাংলাদেশ। সেদিন শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে খেলবে শান্তর দল। পরের ম্যাচে দক্ষিণ আফ্রিকার মোকাবিলা করবে লাল-সবুজেরা। গ্রুপপর্বে শেষ দুই ম্যাচে নেদারল্যান্ডস ও নেপালের বিপক্ষে খেলবে হাথুরুসিংহের শিষ্যরা। যুক্তরাষ্ট্রে পৌঁছে আগামী ২১, ২৩ এবং ২৫ মে স্বাগতিকদের বিপক্ষে তিনটি টি-টোয়েন্টি ম্যাচ খেলবে টাইগাররা। এছাড়া ভারতের সঙ্গে অফিশিয়াল প্রস্তুতি ম্যাচও খেলার কথা আছে।

সাবস্ক্রাইব ও অনুসরণ করুন

সম্পাদক : শ্যামল দত্ত

প্রকাশক : সাবের হোসেন চৌধুরী

অনুসরণ করুন

BK Family App