×

খেলা

রোনালদোকে পেতে চায় মায়ামি

Icon

প্রকাশ: ১১ মে ২০২৪, ১২:০০ এএম

প্রিন্ট সংস্করণ

কাগজ ডেস্ক : একের পর ফুটবলের মহাতারকাদের নিজেদের শিবিরে ভেড়াচ্ছে যুক্তরাষ্ট্রের মেজর লিগ সকারের ক্লাব ইন্টার মায়ামি। এর আগে আর্জেন্টাইন মহাতারকাকে দলে ভিড়িয়েছে তারা। এরপর চলতি মৌসুমে মেসির সঙ্গে যোগ দিয়েছেন তার সাবেক সতীর্থ লুইস সুয়ারেজ। এবার গুঞ্জন উঠেছে ফুটবলের আরেক মহাতারকা ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদোকে দলে ভেড়াতে চায় যুক্তরাষ্ট্রের ক্লাবটি। গতকাল স্প্যানিশ ক্রীড়াবিষয়ক সংবাদমাধ্যম মার্কা এমনটিই জানিয়েছে। তবে এ মৌসুমে রোনালদোকে দলে পাচ্ছে না যুক্তরাষ্ট্রের ক্লাবটি। গত বছর লিওনেল মেসিকে দলে ভিড়িয়েছে মেজর লিগ সকারের ক্লাব ইন্টার মায়ামি। এরপর তারা লুইস সুয়ারেজসহ বার্সেলোনার বেশ কিছু তারকাকে দলে ভিড়িয়েছেন। এবার আরো উচ্চাভিলাষী প্রকল্পে হাত দিতে যাচ্ছে আমেরিকার ক্লাবটি। মেসির পর ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদোকেও তারা দলে ভেড়াতে চাচ্ছে। সময়ের সেরা দুই ফুটবলারকে তারা একই তাঁবুর নিচে আনতে চাচ্ছে এবং এ বিষয়ে তারা সিরিয়াস। সৌদি আরবের সাংবাদিক আব্দুল আজিজ আল-তামিমির বরাত দিয়ে স্প্যানিশ ক্রীড়া পত্রিকা মার্কা জানিয়েছেন, সম্প্রতি ইন্টার মায়ামি যোগাযোগ করেছে রোনালদোর সঙ্গে। তারা জানতে চেয়েছে তিনি মায়ামিতে যোগ দিতে আগ্রহী কিনা। কোনোভাবে সেটার সম্ভাবনা আছে কিনা। অবশ্য রোনালদো এখনো কিছু জানাননি। তবে আগামী মৌসুমে সেটা সম্ভব নয়। কারণ, রোনালদো ২০২৫ সাল পর্যন্ত আল নাসরে থাকবেন। সেক্ষেত্রে ২০২৬ সালে সম্ভব। তখন রোনালদোর বয়স হবে ৪০। সেই বয়সে রোনালদোকে কি মায়ামি দলে নেবে? তবে আধুনিক ফুটবলের দুই চিরপ্রতিদ্ব›দ্বী মেসি ও রোনালদোকে একই তাঁবুর নিচে আনতে পারাটা হবে মায়ামির জন্য বিরাট অর্জন। সেই লক্ষ্যেই তারা এমন কিছু করার কথা ভাবছে হয়তো। পর্তুগিজ সুপারস্টার রোনালদো বর্তমানো সৌদি ক্লাব আল নাসরের জার্সিতে দারুণ ছন্দে আছেন। আন্তর্জাতিক বিরতির আগে সর্বশেষ সৌদি প্রো লিগের ম্যাচেও গোল করেছেন তিনি। আল আহলির বিপক্ষে ১-০ ব্যবধানের জয়ে গোলটি এসেছে রোনালদোর কাছ থেকে। সব মিলিয়ে সৌদি প্রো লিগের এবারের মৌসুমে সর্বোচ্চ ২৩ গোল করেছেন পাঁচবারের ব্যালন ডি’অর জয়ী তারকা। সৌদি প্রো লিগে রোনালদো পরের ম্যাচ খেলবেন ৩০ মার্চ আল তাইয়ের বিপক্ষে। রবার্তো মার্টিনেজ পর্তুগালের কোচ হয়ে আসার পর থেকে এখন পর্যন্ত অপরাজিত আছেন রোনালদোরা। তার অধীনে ১০ ম্যাচের সবকটিতেই জিতেছে পর্তুগাল। যেখানে যেখানে প্রতিপক্ষের জালে ৩৬ গোল দিলেও, নিজেরা হজম করেছে মাত্র দুই গোল। ওই সময়ে পর্তুগিজদের হয়ে ব্যক্তিগত সর্বোচ্চ ১০ গোল এসেছে সিআরসেভেনের পা থেকে।

সাবস্ক্রাইব ও অনুসরণ করুন

সম্পাদক : শ্যামল দত্ত

প্রকাশক : সাবের হোসেন চৌধুরী

অনুসরণ করুন

BK Family App