×

খেলা

আইপিএল নিয়ে যা বললেন তাসকিন

Icon

প্রকাশ: ১০ মে ২০২৪, ১২:০০ এএম

প্রিন্ট সংস্করণ

আইপিএল নিয়ে যা বললেন তাসকিন
কাগজ প্রতিবেদক : বিশ্বের সর্ববৃহৎ ফ্র্যাঞ্চাইজি টুর্নামেন্ট আইপিএলের এবারের আসরে বাংলাদেশকে একমাত্র খেলোয়াড় হিসেবে প্রতিনিধিত্ব করেছে মোস্তাফিজুর রহমান। তবে আসরে যাওয়ার সুযোগ ছিল আরেক টাইগার পেসার তাসকিন আহমেদেরও। জানা যায়, আইপিএলের কয়েকটি ফ্র্যাঞ্চাইজি এই টাইগার পেসারকে দলে ভেড়াতে চেয়েছিল। এবার নিজের আইপিএল খেলার সম্ভাবনা থাকলেও খেলতে না পারার ব্যাপারে মুখ খুলেছেন তাসকিন। তিনি জানান, আইপিএলে খেলতে না পারায় কোনো আফসোস নেই তার। বোর্ডের সিদ্ধান্তকেই তিনি সর্বোচ্চ সম্মান করেন। এদিকে কথা উঠে মোস্তাফিজকে আইপিএল থেকে ফিরিয়ে আনার ব্যাপারে উদ্ভুত বিতর্ক নিয়ে। সেখানেও বোর্ডের সিদ্ধান্তের প্রতি ইতিবাচক তাসকিন। তিনি জানান, আইপিএলে মোস্তাফিজ ভালো খেলছে। তবে বিশ্বকাপকে সামনে রেখে দলের প্ল্যানিং ও কালচারের সঙ্গে মানিয়ে নিতেই তাকে ফেরানো হয়েছে। জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে ৫ ম্যাচের টি-টোয়েন্টি সিরিজের ৪র্থ ম্যাচকে সামনে রেখে সংবাদ সম্মেলনে এমন কথা বলেন তাসকিন। যদিও পরে চলতি আসরে খেলার জন্য দুটি ফ্র্যাঞ্চাইজি থেকে তাসকিনের সঙ্গে যোগাযোগ করা হয়েছিল। কলকাতা নাইট রাইডার্স ও পাঞ্জাব কিংস তাসকিনকে দলে ভেড়াতে চেয়েছিল বলে তিনি নিজেই জানিয়েছিলেন। তবে বিসিবির আপত্তিতে শেষ পর্যন্ত কোনো দলের সঙ্গেই চুক্তি করেননি তিনি। মিরপুরে সংবাদ সম্মেলনে তাসকিন জানালেন আইপিএল খেলতে না পেরে কোনো আফসোস নেই, শুধু দোয়া চাইলেন। টাইগার এই পেসার বলেন, ‘যে জিনিসটা চলে গেছে এটা তো আর নিয়ন্ত্রণে নেই। ইনশাআল্লাহ সামনে খেলব, সামনে অবসর সময় পাব। শুধু আইপিএল না, আরও অনেক লিগ আছে। নীতি প্রায় একই। একেকজনের বডি টাইপ একেকরকম। এজন্য বোর্ড সতর্ক থাকে।’ তাসকিন আরও যোগ করেন, ‘ফাস্ট বোলার যাদের দেখছেন সবারই কোনো না কোনো ইনজুরি ম্যানেজ করতে হচ্ছে। হয়ত আমার বডি টাইপ বা বোলিং টাইপ ডিফারেন্ট এজন্য আমি এবার যেতে পারিনি। আমার তো টেস্ট খেলারও কথা ছিল। শেষ মুহূর্তে কাঁধের চোট ম্যানেজ করার জন্য আমি বিরতিতে গেছি। হয়ত ভবিষ্যতে খেলব ইনশাআল্লাহ, আফসোস নাই কোনো। শুধু দোয়া কইরেন।’ এদিকে চলমান আইপিএলে চলতি আইপিএলে বাংলাদেশ থেকে একমাত্র প্রতিনিধি ছিলেন মোস্তাফিজুর রহমান। চেন্নাই সুপার কিংসের হয়ে অভিষেক আসরটা স্মরণীয় করেই রেখেছেন। সবমিলিয়ে ৯ ম্যাচ খেলেছেন। উইকেট শিকার করেছেন ১৪ টি। যদিও টুর্নামেন্টের মাঝপথেই দেশে ফিরতে হয়েছে টাইগার এই পেসারকে। জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে চলমান সিরিজে খেলানোর জন্য দেশে ডাকা হলেও প্রথম তিন ম্যাচে বিশ্রামেই ছিলেন মোস্তাফিজ। অবশ্য শেষ দুই ম্যাচের দলে নেয়া হয়েছে তাকে। এদিকে আইপিএলের মাঝপথে মোস্তাফিজকে ফেরানোর বিষয়টি অনেকেরই পছন্দ হয়নি। এ নিয়ে কম আলোচনা-সমালোচনাও হয়নি। প্রসঙ্গে তাসকিন বলেন, ‘আল্লাহর রহমতে মোস্তাফিজ এবারের আইপিএলে অনেক ভালো করেছে। আমার মনে হয় ওকে আনার কারণ টিম প্ল্যানিং ও কালচারে যাতে ভূমিকা রাখতে পারে। একই সঙ্গে কয়েকদিন বিশ্রামের ব্যবস্থা, কারণ ও আমাদের মূল বোলার। আইপিএল ভালো কেটেছে, যথেষ্ট অভিজ্ঞতা নিয়েছে। সবাই ফ্রেশ ও ফিট থাকলে ভালো কিছু হবে ইনশাআল্লাহ।’ বাংলাদেশ দলের পেসারদের নিয়ে তাসকিন বলেন, ‘আগের চেয়ে অনেক বেশি ফাস্ট বোলার উঠে আসছে এটা অনেক ভালো লক্ষণ। জাতীয় দলে পেসাররা আগের চেয়ে ধারাবাহিক হয়েছি এটা ঘরোয়া ক্রিকেটেও অনুপ্রেরণা দেয়। সুযোগ পেলে আমাদের পেসাররা যদি বাইরে ফ্র্যাঞ্চাইজি লিগও খেলে, সব মিলিয়ে উন্নতি আরও বেশি হবে। ফাস্ট বোলারদের প্রসেসটা অনেক ভালো হয়েছে। সবাই আগের চেয়ে বেশি সিরিয়াস, লাইফস্টাইল এবং মেইনটেইন্যান্স। এই জিনিসগুলো সহায়তা করছে বোলারদের ভালো করতে। আমার বিশ্বাস এই ধারাবাহিকতা থেকে সামনে আরও ভালো কিছু হবে।’ এদিকে আইপিএলে এবারের আসরে রানের বন্যা দেখল ক্রিকেটবিশ্ব। তবে সেই টি-টোয়েন্টি ফরম্যাটেই রানখড়ায় ভুগছে বাংলাদেশ। এ ব্যাপারে তাসকিন বলেন, ‘আইপিএলের কন্ডিশন আর এখানের কন্ডিশন একটু ভিন্ন। প্রতিপক্ষও ভিন্ন। আইপিএলে হাই স্কোরিং ম্যাচ হয়, উইকেটও আলাদা। বাংলাদেশে তুলনামূলকভাবে হাই স্কোরিং ম্যাচ একটু কমই হয়। যদিও জিম্বাবুয়ে, দেখুন আসলে আন্তর্জাতিক সিরিজ। যারাই খেলছি, সবাই কিন্তু শতভাগ দিয়ে ম্যাচ জেতার চেষ্টা করছি। হয়তো তুলনামূলকভাবে আইপিএলের তুলনায় তারা একটু দুর্বল। তবে আমাদের ভালো ক্রিকেট খেলেই জিততে হচ্ছে।’ জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে জয়ের পরেও কেন রান বেশি রান হচ্ছে না তা নিয়ে সমালোচনা হচ্ছে। তবে তাসকিন বলছেন ভিন্ন কথা, ‘আসলে যত কথা হচ্ছে জিম্বাবুয়ে নিয়ে, আবার যদি একটা ম্যাচ হেরে যাই, তাহলে কিন্তু অন্য রকম কথা হবে যে জিম্বাবুয়ের কাছে হেরেছি। ছোট দলের সঙ্গে জিতলে কৃতিত্বটা কম পাই। দুর্ভাগ্য হলো, আমাদের অনেক রকম কথাই শুনতে হয়। কিন্তু যখন খেলতে নামি, প্রতিপক্ষ যে-ই হোক, সেরাটা দিয়েই চেষ্টা করি। হয়তো কখনো ভালো হয়, খারাপ হয়। উন্নতির ধারাটা রেখে সবাই বিশ্বকাপে ভালো করার চেষ্টা করছে।’

সাবস্ক্রাইব ও অনুসরণ করুন

সম্পাদক : শ্যামল দত্ত

প্রকাশক : সাবের হোসেন চৌধুরী

অনুসরণ করুন

BK Family App