×

খেলা

দরির জোড়া গোলে শিরোপার হাতছানি বসুন্ধরার

Icon

প্রকাশ: ২৮ এপ্রিল ২০২৪, ১২:০০ এএম

প্রিন্ট সংস্করণ

দরির জোড়া গোলে শিরোপার হাতছানি বসুন্ধরার
কাগজ প্রতিবেদক : বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগ ফুটবলের দ্বিতীয় লেগে গতকাল শেখ জামাল ধানমন্ডির বিপক্ষে ২-০ গোলের জয় পেয়ে টেবিলের শীর্ষে থেকে শিরোপার কাছাকাছি অবস্থান করছে বসুন্ধরা কিংস। কিংসের হয়ে গতকাল জোড়া গোল করেছেন ব্রাজিলিয়ান ফরোয়ার্ড দরিয়েলতন। টুর্নামেন্টে এ পর্যন্ত ১৩ ম্যাচে ৩৪ পয়েন্ট নিয়ে টেবিলের শীর্ষস্থানে অবস্থান করেছে কিংস। দিনের অন্য ম্যাচে ব্রাদার্স ইউনিয়নের বিপক্ষে ৫-০ গোলের জয় পেয়েছে চট্টগ্রাম আবাহনী। বন্দরনগরীর দলটির হয়ে গতকাল জোড়া গোল করেছেন নাইজেরিয়ান ফরোয়ার্ড পাওল সেন কমলাফে। এছাড়া গোল এসেছে দেশের তরুণ মিডফিল্ডার নাসির চৌধুরি, ফরোয়ার্ড রিয়াজ উদ্দিন সাগর ও নাইজেরিয়ান স্ট্রাইকার ডেভিড ফেগুর পা থেকে। এ জয়ে টুর্নামেন্টে মোট ১৩ ম্যাচে ১৬ পয়েন্ট নিয়ে টেবিলের পাঁচে অবস্থান করছে চট্টগ্রাম আবাহনী। এদিকে দিনের অন্য ম্যাচে পুলিশ এফসির বিপক্ষে গোলশূন্য ড্র পেয়েছে মোহামেডান স্পোর্টিং ক্লাব। এ পর্যন্ত ১৩ ম্যাচে ২৭ পয়েন্ট নিয়ে টেবিলের শীর্ষ দুই-এ অবস্থান করছে সাদা-কালোরা। বসুন্ধরা কিংস অ্যারেনায় গতকাল হলুদ কার্ডের কারণে কিংসের মধ্যমাঠে ছিলেন না ব্রাজিলিয়ান মিডফিল্ডার মিগেল ফিগেইরা। তার জায়গায় খেলেছেন চার মাস পর চোট কাটিয়ে ফেরা শেখ মোরসালিন। শুরু থেকেই মাঠে ছিলেন এই তরুণ। গোল কিংবা অ্যাসিস্ট না পেলেও স্বাভাবিক ছন্দেই দেখা গেছে তাকে। ফেডারেশন কাপে পুলিশের কাছে হারা শেখ জামাল এদিনও বেশ অগোছাল ছিল। মাত্র দুইজন বিদেশি নিয়ে খেলতে নামে দলটি। যদিও ম্যাচের প্রথম ভালো সুযোগ পায় জামালই। ১৫ মিনিটে মাঝ মাঠ থেকে আতিকুর রহমানের থ্রæ পাস কিংসের বক্সের সামনে পান সেনেগালের ফরোয়ার্ড আবু তোরে। কিন্তু তার গায়ের সঙ্গে সেঁটে ছিলেন তপু বর্মণ, তাতে শট নেয়ার সুযোগ না পেয়ে বলের নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে মাটিতে পড়ে যান, এগিয়ে এসে বল গøাভসে নেন আনিসুর রহমান। মাটিতে পড়ে যাওয়ায় পেনাল্টির আবেদন জানিয়ে মেজাজ হারিয়ে হলুদ কার্ড দেখেন তোরে। দুই মিনিট পরেই দারুণ আক্রমণ থেকে গোল পেয়ে যায় কিংস। রবসন রবিনহোর বাঁকানো ক্রস বক্সে শাকিল হোসেন পা চালিয়েও নাগাল পাননি, দূরের পোস্টে থাকা দোরিয়েলতন লাফিয়ে ডান পায়ের শটে জাল খুঁজে নেন। আক্রমণে চাপ অব্যাহত রেখে বিরতিতে যাওয়ার আগেই ব্যবধান বাড়িয়ে নেয় কিংস। যোগ করা সময়ে আবারও দোরিয়েলতন ঝলক। রবিনহোর কর্নারে দারুণ হেডে লক্ষ্যভেদ করেন এই ব্রাজিলিয়ান ফরোয়ার্ড। চলতি লিগে এটি তার ১১তম গোল। দ্বিতীয়ার্ধের শুরুতেই ব্যবধান আরও বাড়িয়ে নিতে পারত কিংস কিন্তু ৫২ মিনিটে রাকিব হোসেনের জোরালো শট পোস্ট কাঁপায়। শেষ দিকে রবিনহো গোলকিপারকে একা পেয়েও বল জালে পাঠাতে পারেননি। তাতে আর ব্যবধান বাড়েনি কিংসের। শেখ জামালও পারেনি ম্যাচে সমতা ফিরতে। এদিকে প্রিমিয়ার লিগে ঐতিহ্যবাহী মোহামেডান স্পোর্টিংয়ের পাশাপাশি পুলিশ এফসিও ভালো করে চলেছে। পয়েন্ট ব্যবধানে বেশ ফারাক থাকলেও দুই ক্লাবই শক্তির দিক দিয়ে একে অন্যের কাছাকাছি। গতকাল দুই ক্লাব ফিরতি পর্বে শক্তির পরীক্ষা দিয়েছে। তাতে করে কেউই জিততে পারেনি। মোহামেডান ও পুলিশের ম্যাচটি গোলশূন্য ড্র হয়েছে। অথচ প্রথম পর্বে মোহামেডান তীব্র প্রতিদ্ব›িদ্বতার পর ৩-২ গোলে পুলিশকে হারিয়েছিল। ময়মনসিংহের রফিক উদ্দিন ভূঁইয়া স্টেডিয়ামে প্রথমার্ধে মোহামেডানের সঙ্গে সমানতালে খেলেছে পুলিশ। গোলের আক্রমণও করেছিল। কিন্তু লন্ডন প্রবাসী সাবেক ক্রিকেটার হালিম শাহের ছেলে সৈয়দ কাজেম শাহ সুযোগ পেয়েও দলকে এই ম্যাচে গোল এনে দিতে পারেননি। ম্যাচ ঘড়ির ১৮ মিনিটে কাজেম সতীর্থের কাটব্যাক থেকে নিচু শটে গোলকিপারকে পরাস্ত করলেও বল বারের নিচে লেগে প্রতিহত হয়। প্রথমার্ধের যোগ করা সময়ে তার আরও একটি প্রচেষ্টা ব্যর্থ হয়। তার নেয়া দূরপাল্লার শট গোলকিপার সুজন প্রতিহত করেন। বিরতির পর আক্রমণ-প্রতি আক্রমণ নির্ভর খেলা হয়েছে। দুই দলই সুযোগ পেয়েছে। কিন্তু গোল করতে পারেনি। শেষ দিকে মোহামেডানের একজন ফুটবলার কাটব্যাক থেকে ফাঁকায় ঠিকমতো প্লেসিং করতে পারেননি। পারলে হয়তো তিন পয়েন্ট নিশ্চিত হতে পারতো। দিনের অন্য ম্যাচে রাজশাহী স্টেডিয়ামে চট্টগ্রাম আবাহনী ৫-০ গোলে ব্রাদার্স ইউনিয়নকে বিধ্বস্ত করেছে। প্রথমার্ধে বিজয়ী দল ২-০ গোলে এগিয়ে ছিল। লিগে টানা তৃতীয় জয়ের পর আবারও ড্রয়ের মুখ দেখল মোহামেডান। ১৩ ম্যাচে ষষ্ঠ ড্রয়ে শিরোপা দৌড় থেকে পিছিয়ে পড়ল সাদা-কালোরা। ২৭ পয়েন্ট নিয়ে দ্বিতীয় স্থানে আছে আলফাজ আহমেদের দল। তাদের চেয়ে সাত পয়েন্টে এগিয়ে থেকে শীর্ষে বসুন্ধরা কিংস (৩৪)। সমান ম্যাচে তৃতীয় ড্রয়ে ১৮ পয়েন্টে চতুর্থ স্থানেই পুলিশ। চট্টগ্রাম আবাহনী চতুর্থ জয়ে ১৬ পয়েন্ট পেয়ে পঞ্চম স্থানে উঠে এসেছে। ব্রাদার্স ইউনিয়ন দশম হারে আগের ৩ পয়েন্ট নিয়ে তলানিতে থেকে ধীরে ধীরে রেলিগেশনের দিকে যাচ্ছে।

সাবস্ক্রাইব ও অনুসরণ করুন

সম্পাদক : শ্যামল দত্ত

প্রকাশক : সাবের হোসেন চৌধুরী

অনুসরণ করুন

BK Family App