×

খেলা

চেলসিকে হারিয়ে আধিপত্য ধরে রাখল আর্সেনাল

Icon

প্রকাশ: ২৫ এপ্রিল ২০২৪, ১২:০০ এএম

প্রিন্ট সংস্করণ

কাগজ ডেস্ক : প্রিমিয়ার লিগে গতকাল রোমাঞ্চকর রাতে কাই হ্যাভার্টজ ও বেন হোয়াইট জোড়া গোলে চেলসিকে ৫-০ গোলে হারিয়েছে আর্সেনাল আর তাতে শিরোপা জয়ের দৌড়ে দ্বিতীয়স্থানে থাকা লিভারপুল থেকে ৩ পয়েন্ট ব্যবধান নিয়ে এগিয়ে গেল মিকেল আরতেতার দল। অন্যদিকে ইতালিয়ান কাপে প্রতিপক্ষ ল্যাজিওর বিপক্ষের ম্যাচে শেষমুহূর্তে আরকাডিয়াস মিলিকের গোলে দুই লেগ মিলিয়ে ৩-২ ব্যবধানে এগিয়ে থেকে ফাইনাল নিশ্চিত করেছে জুভেন্টাস। এদিকে সৌদি প্রো লিগের আরেক ম্যাচে আল আইনকে ২-১ গোলের ব্যবধানে হারিয়েছে আল হিলাল। ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগের এবারের মৌসুমে শিরোপার লড়াইয়ে বেশ ভালোভাবেই নিজেদের জানান দিচ্ছে আর্সেনাল। পয়েন্ট টেবিলে ম্যানচেস্টার সিটি ও লিভারপুলের সঙ্গে তাদের লড়াই হচ্ছে সমানে সমানে। সেই ধারাবাহিকতায় এমিরেটস স্টেডিয়ামে গতকাল আর্সেনালের কাছে ৫-০ গোলে বিধ্বস্ত হয়েছে চেলসি। ঘরের মাঠ এমিরেটস স্টেডিয়ামে ম্যাচের শুরু থেকেই দাপট দেখিয়ে খেলতে থাকে আর্সেনাল। তাতেই ম্যাচের ৪ মিনিটেই গোল উৎসবের উপলক্ষ পেয়ে যায় তারা। ডেকলান রাইসের পাস ধরে দূরূহ কোণ থেকে বাম পায়ের শটে বল জাল ভেড়ান লিয়ান্দ্রো ট্রোসার্ড। গোল পেয়ে আক্রমণের ধার আরও বাড়িয়ে দেয় গানার্সরা। তাতে ২৩ মিনিটে ভালো একটি সুযোগ আসে। কিন্তু রাইসের শট অল্পের জন্য ক্রসবারের উপর দিয়ে যায়। এরপর কয়েকটি ভালো সুযোগ নষ্ট করেন বুকায়ো সাকা ও কাই হাভার্টজ। কিন্তু এই দুজনের শট ফিরিয়ে ব্যবধান দ্বিগুণ হতে দেননি চেলসি কিপার পেত্রোভিচ। তবে চেলসিও কম আক্রমণ করেনি। ম্যাচের ৩০তম মিনিটে মার্ক কুকুরেইয়ার শট আর্সেনাল গোলরক্ষক ডেভিড রায়া ফেরানোর পর এনজো ফার্নান্দেজের নিচু শট অল্পের জন্য যায় পোস্টের বাইরে। প্রথমার্ধের বাকি সময়ে আর কোনো শট রাখতে পারেনি দুদল। তাতে লিড নিয়েই বিরতিতে যায় আর্সেনাল। বিরতি থেকে ফিরে দ্বিতীয়ার্ধের শুরুতেই আক্রমণের ধার আরো বাড়িয়ে দেয় আর্সেনাল। ৫২ মিনিটে সতীর্থের কাছ থেকে বল পেয়ে জোরালো শট নেন রাইস, বল এক ডিফেন্ডারের পায়ে লেগে চলে যায় বেন হোয়াইটের কাছে। কোনাকুনি শটে দূরের পোস্ট দিয়ে ব্যবধান দ্বিগুণ করেন এই ইংলিশ ডিফেন্ডার। ঝাঁপিয়েও ঠেকাতে পারেননি চেলসি গোলরক্ষক পেত্রোভিচ। ৫৭ মিনিটে ব্যবধান ৩-০ করে আর্সেনাল। এবার মার্টিন ওডেগোরের লং পাস নিয়ন্ত্রণে নিয়ে নিখুঁত শটে আগুয়ান গোলরক্ষককে পরাস্ত করেন হাভার্টজ। এরপর ৬৫ মিনিটে হাভার্টজের আরেক শট পোস্টের ভেতরের কানায় লেগে জালে ঢুকে যায়। এর পাঁচ মিনিট পর প্লেসিং শটে লক্ষ্যভেদ করেন আর্সেনালের হোয়াইট। তাতে চলতি লিগে প্রথমবার পাঁচ গোল হজম করল মাওরিসিও পচেত্তিনোর দল। তবে অসুস্থতার কারণে নিজেদের সর্বোচ্চ স্কোরার কোল পালমারকে পায়নি চেলসি। কিন্তু সেটি বড়জোর গোল করতে না পারার অজুহাত হতে পারে। এত বড় হারের আসলে কোনো যৌক্তিক ব্যাখ্যাই চলে না। গতকালের ৫-০ গোলের বড় ব্যবধান নিয়ে জয়ের মাধ্যমে সব প্রতিযোগিতা মিলিয়ে চেলসির বিপক্ষে নিজেদের ইতিহাসে সবচেয়ে বড় জয় পেয়েছে আর্সেনাল। তাতে ৩৪ ম্যাচে ৭৭ পয়েন্ট আর্সেনালের। ৩৩ ম্যাচে ৭৪ পয়েন্ট নিয়ে দ্বিতীয় লিভারপুল। তৃতীয় ম্যানচেস্টার সিটির সংগ্রহ ৩২ ম্যাচে ৭৩। আর্সেনাল শীর্ষে থাকলেও লিগের ভাগ্য নির্ভর করছে সিটির ওপর। কারণ আর্সেনালের চেয়ে ২ ম্যাচ এবং লিভারপুলের চেয়ে ১ ম্যাচ কম খেলেছে সিটি। অন্যদিকে ইতালিয়ান কাপে গতকাল ল্যাজিওর কাছে সেমিফাইনালে দ্বিতীয় লেগে ২-১ গোলে পরাজিত হয়ে দুই লেগ মিলিয়ে ৩-২ ব্যবধানে এগিয়ে থেকে ইতালিয়ান কাপের ফাইনাল নিশ্চিত করেছে জুভেন্টাস। প্রথম লেগে ২-০ গোলে জয় পাওয়া জুভেন্টাস ল্যাজিওর মাঠে গতকাল ৪৮ মিনিটেই ২-০ গেলে পিছিয়ে পড়ে অস্বস্তিতে পড়ে। ল্যাজিওর হয়ে দুটি গোলই করেছেন ভ্যালেন্টিন ক্যাস্তেলানোস। তবে ৮৩ মিনিটে বদলি খেলোয়াড় মিলিকের গোলে ম্যাচ হেরেও দুই লেগ মিলিয়ে ফাইনাল নিশ্চিত করে তুরিনের জায়ান্টরা। এমন জয়ের পরে পোলিশ স্ট্রাইকার মিলিক বলেছেন, ‘আমরা একটি ভালো দলের বিপক্ষে কঠিন লড়াইয়ের মুখে পড়েছিলাম। কিন্তু শেষ পর্যন্ত ফাইনাল নিশ্চিত করতে পারায় আমরা দারুণ খুশি। ফাইনালে আমাদের ভালো খেলতে হবে। সেটা করার ব্যাপারে আমরা মুখিয়ে আছি।’ তবে জুভেন্টাস কোচ মাসিমিলিয়ানো আলেগ্রি বলেছেন, ‘সবচেয়ে বড় স্বস্তির বিষয় হচ্ছে আমরা ফাইনালে উঠেছি। লিগের শেষে এটাই আমাদের সামনে আত্মবিশ্বাস বাড়াবে। এখনো চ্যাম্পিয়ন্স লিগের জায়গার জন্য কয়েক পয়েন্ট বাকি রয়েছে।’ ল্যাজিওর বিপক্ষে এমন জয়ের মাধ্যমে ১৫ বারের মতো কোপা ইতালিয়ার শিরোপা জয়ের দৌড়ে টিকে থাকল জুভেন্টাস। যেখানে সিরি-এ লিগে ১২ ম্যাচে মাত্র দুই জয়ে তৃতীয় স্থানে থাকা জুভেন্টাস চ্যাম্পিয়ন্স লিগের পজিশনের জন্য লড়াই চালিয়ে যাচ্ছে।

সাবস্ক্রাইব ও অনুসরণ করুন

সম্পাদক : শ্যামল দত্ত

প্রকাশক : সাবের হোসেন চৌধুরী

অনুসরণ করুন

BK Family App