×

খেলা

ডার্বি জিতে শিরোপা নিশ্চিত করল ইন্টার মিলান

Icon

প্রকাশ: ২৪ এপ্রিল ২০২৪, ১২:০০ এএম

প্রিন্ট সংস্করণ

কাগজ ডেস্ক : রাতটা ছিল ইন্টার মিলানের জন্য স্বপ্নের মতো, হবে নাই বা কেন? মিলান ডার্বিতে গতকাল রাতে চিরপ্রতিদ্ব›দ্বী এসি মিলানকে ২-১ গোলে হারিয়েছে তারা। আর তাতে পাঁচ ম্যাচ হাতে রেখে সিরি-য়া লিগের শিরোপা অনেকটা নিশ্চিতই করে ফেলেছে নেরাজ্জুরিরা। অন্যদিকে মর্যাদার জয় চেয়ে মাঠে নামা এসি মিলান ২০২২ সালের পর থেকে ইন্টারকে হারাতেই পারেনি। দারুণ এ জয় নিয়ে ইন্টার মিলানের ইতিহাসে এটি ২০তম স্কুডেট্টো বা সিরি-য়া শিরোপা। আর ৮ বছরের কোচিং ক্যারিয়ারে ইনজাগির এটা প্রথম সিরি-য়া শিরোপা। তবে এর আগে খেলোয়াড়ি জীবনে ২০০০ সালে সিরি-য়া জিতেছিলেন লাৎসিওর হয়ে। গতকাল ম্যাচের শুরু থেকেই দাপট দেখিয়েছে ইন্টার মিলান। গোল পেতেও খুব একটা সময় লাগেনি তাদের। শুরু থেকেই চাপে রেখেছিল এসি মিলানকে। তারই সুফল পাওয়া গেল ১৮ মিনিটে। এসি মিলানের সাবেক তারকা ফ্রান্সিসকো এসেরবি কর্নার থেকে পাওয়া বলে হেড করে গোল করে লিড এনে দেন ইন্টারকে। ডি মার্কোর কর্নারে মাথা ছুঁইয়ে বল এসেরবির মাথার কাছে পৌঁছে দেন বেঞ্জামিন পাভার্ড। আর তাতেই লিড নেয় নেরাজ্জুরিরা। ২৫ মিনিটেই লিড দ্বিগুণ করার সুযোগ পেলেও ডি মার্কোর বাড়ানো বলে অবিশ্বাস্য এক সুযোগ মিস করেছেন ইন্টারের আর্জেন্টাইন অধিনায়ক লাউতারো মার্টিনেজ। আক্ষেপ ছিল এসি মিলানেরও। রাফায়েল লেয়াও দুর্দান্ত শট নিয়েছিলেন। তবে সেটা ঠেকিয়ে দেন ইন্টার মিলানের গোলরক্ষক ইয়ান সমার। ৩৮ মিনিটে মার্কাস থুরামের শট গোলবারে লেগে ফিরে আসে। ৪০ মিনিটেই ফের ইন্টারের ত্রাতা হয়ে এসি মিলানের ক্যালিব্রিয়ার শট ফিরিয়ে দেন সমার। তাতে ১-০ গোলে এগিয়ে থেকে বিরতিতে যায় ইন্টার মিলান। বিরতির পর ফিরেই বক্সের বাইরে থেকে নেয়া শটে এক গোল করেন মার্কাস থুরাম। সান সিরোতে তখন ইন্টার সমর্থকরা মেতে উঠেছেন শিরোপার উৎসবে। এরপর এসি মিলান একাধিক সুযোগ তৈরি করেও গোলের খাতা খুলতে পারেনি। তবে ম্যাচের ৮০ মিনিটে সামু চুকওয়েজের ক্রসে হেড করেন লেয়াও। বল ক্রসবারে লেগে চলে আসে ফুকায়ো তোমোরির সামনে। সেখান থেকে হেড করে এসি মিলানের ব্যবধান কমান এই ইংলিশ ডিফেন্ডার। শেষ পর্যন্ত ২-১ গোলের জয় নিয়েই শিরোপা উৎসব করে ইন্টার। অবশ্য শেষ দিকে দুটি লাল কার্ডও হয়। ৯০+৩ মিনিটের মাথায় হাতাহাতির কারণে এসি মিলানের থিও হার্নান্দেজ ও ইন্টারের ডেনজেল ডামফ্রাইস লাল কার্ড দেখেন। এ জয়ে ৩৩ ম্যাচে ইন্টারের পয়েন্ট ৮৬। সমান ম্যাচে দুইয়ে থাকা এসি মিলানের পয়েন্ট ৬৯। পরের পাঁচ ম্যাচ জিতলেও এসি মিলানের পয়েন্ট হবে ৮৪। তাতে ইন্টারকে টপকে যাওয়ার আর সম্ভাবনা থাকছে না এসি মিলানের। তাই গতকাল থেকেই নিজেদের ২০তম লিগ শিরোপার উৎসব শুরু করেছে নেরাজ্জুরিরা। অন্যদিকে কোচ হিসেবে সিরি-য়া লিগে প্রথম শিরোপা জিতলেও এর আগে অন্য প্রতিযোগিতায় সাফল্য ঠিকই পেয়েছেন সিমোনে। খেলোয়াড়ি জীবন শেষে সিমোনে তার কোচিং ক্যারিয়ার শুরু করেন লাৎসিওতে। ২০১৬ থেকে ২০২১ পর্যন্ত সেখানে তিনি জেতেন ৩টি শিরোপা। দুটি ইতালিয়ান সুপার কাপ, একটি ইতালিয়ান কাপ। ২০২১-২২ মৌসুমে দায়িত্ব নেন ইন্টারের। দায়িত্ব নেয়ার প্রথম মৌসুমেই ইন্টারকে জেতান ইতালিয়ান কাপ। পরের মৌসুমেও শিরোপাটি ধরে রাখে সিমোনের শিষ্যরা। এছাড়া ইন্টারের হয়ে টানা তিন বছর জেতেন ইতালিয়ান সুপার কাপ। ইন্টারের ডাগআউটে দাঁড়ানো কোচদের মধ্যে একটি অর্জনের ছোট্ট তালিকায়ও নাম লিখিয়েছেন ইনজাগি। মিলানের বিপক্ষে গতকালের জয়টি ইন্টারের ডাগআউটে ছিল সিমোনের ১০০তম। এর আগে ইন্টারের কোচ হিসেবে এই কীর্তি গড়েছেন শুধু চারজন হেলেনিও হেরেরা, রবার্তো মানচিনি, জিওভান্নি ত্রাপাত্তোনি ও আরপাদ ভেইস। ২৪ বছর আগে ল্যাজিওর খেলোয়াড় হিসেবে সিরি-য়া শিরোপা জয় করেছিলেন ইনজাগি। ইন্টারকে এই শিরোপা উপহার দিতে মাঠ ও মাঠের বাইরে অনেক ঝামেলা পোহাতে হয়েছে ইনজাগিকে। কোভিডপরবর্তী চরম আর্থিক সংকটে পরা দলটিকে এভাবে টেনে তোলাও সহজ ছিল না। তবে নিজের কোচিং ক্যারিয়ারে এখন পর্যন্ত যা পেয়েছেন, তা নিয়ে খুশি ৪৮ বছর বয়সি ইনজাগি। বিশেষ করে ইন্টার মিলানের ডাগআউটে নিজের অর্জন নিয়ে তিনি বেশ সন্তুষ্ট। কাল সিরি-য়ার শিরোপা জয়ের পর তিনি বলেন, ‘তিন বছরে ছয়টি ট্রফি জয় এবং একটি চ্যাম্পিয়ন্স লিগ ফাইনাল খেলা, এতটা সাফল্য পাওয়ার কল্পনা করা কঠিনই। আপনাকে পুরো তিন বছরকে একসঙ্গে দেখতে হবে। এ বছর আমাদের ভালো কেটেছে। কিন্তু এই জয়ের পথ অনেক লম্বা সময় নিয়ে তৈরি করা হয়েছে।’

সাবস্ক্রাইব ও অনুসরণ করুন

সম্পাদক : শ্যামল দত্ত

প্রকাশক : সাবের হোসেন চৌধুরী

অনুসরণ করুন

BK Family App