×

সাময়িকী

মৌ মধুবন্তী

উড়িয়ে দেবো প্রতিবন্ধকতা

Icon

প্রকাশ: ০৫ জুলাই ২০২৪, ১২:০০ এএম

প্রিন্ট সংস্করণ

প্যাঁচা নামে চাঁদজোছনায়,

মায়ামাঠ শীত কাঁচুলি গায়ে দিয়ে দৌড়ায় অনভ্যাসের আলপথে-

ওখানে শংখ কুসুম বিভাস!

জড়োয়া হাসি, ঝুল বারান্দায় নাটকীয় ছায়া

ছায়ার ভেতরে জ্বর কাঁপছে কাঁকন হাতে

নিজ গৃহকোণে নিজেই সীমানা টানে।

হায় জীবনের কংকনা!

শীতল দুপুর নেশার ঘোরে ইশারা করে

অপেক্ষার নদী ভাঁজ করে রাখে দুই হাতে

উপেক্ষা করে ইশারা, কাছেই কিছু দূরত্ব জমায়-

কুমড়ো ফুলের মত চোখ দুটো হলুদফোঁটা

অবজ্ঞাচ্ছলে পানি ঢালে বিব্রতকর পরিস্থিতিতে। কিছু পানি গড়িয়ে পড়ে।

কিছু জমে থাকে, চোখে আর কত ধরবে

এই নারকীয় যন্ত্রণা।

একমাত্র মানুষই পারে বহুদূর হেঁটে গিয়ে ফিরে আসতে। পায়ে পায়ে পথ বাড়ে,

পায়ের তলায় জমাট ভূগোল, আখরোট

চুম্বন, নচিকেতা দামাল-সামাল, অনিমেখ

কামনার শিরশির অনুভূতি, সব কিছু এক পাহাড় সমান দাঁড়িয়ে পড়ে পথ আগলে।

নীরবে, নিঃশব্দে দুঃখ জমে জমে পাহাড়

পাহাড়ের গায়ে আজ বিকট শব্দ, ভাঙচুর

এখন সমাজ সভ্যতা সবাই একজোট।

এতো আওয়াজ কেন?

পাহাড় ভাঙতে আওয়াজ হবে

আওয়াজ হবে অন্দর খুলতে

দুঃখ গড়েছে পাথর, পাথর গড়িয়ে পড়ছে

শব্দের উৎস, ইতিহাস সব রচনা করা হয়েছে

শব্দের ভেতরে গাঁথুনির বিকট আর্তনাদ আজ সময়কে ধারণ করতে ব্যর্থ বটে, তবু

একদিন সবকিছু সুনসান শীতল মাঠমায়া

হবে, ইচ্ছের পঙ্ক্তিমালা ফোটাক বাতাসে

আর্তনাদের বোমারু।

আমি ফিরে যাব যে পথ আমাকে যেতে দেয়নি আমার লক্ষ্যে।

আমি ফিরে যাবোই।

যাবো-

সাবস্ক্রাইব ও অনুসরণ করুন

সম্পাদক : শ্যামল দত্ত

প্রকাশক : সাবের হোসেন চৌধুরী

অনুসরণ করুন

BK Family App